কিভাবে ফ্রিল্যান্সিং করলে সফল হওয়া যায়?

সম্মানিত পাঠক, আজ আমি আলোচনা করব কিভাবে আপনারা ঘরে বসে ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে জেনে খুব সহজে আয় করতে পারেন ।

তো চলুন শুরু করি ।

ফ্রিল্যান্সিং কি ?

আপনার মনে প্রশ্ন জেগেছে, আসলে ফ্রীলান্সিং জিনিসটা কি ? ফ্রিল্যান্সিং হলো কোন প্রতিষ্ঠান কাজ বা চুক্তিভিত্তিক পদ্ধতিতে যে কেউ স্বাধীনভাবে নিজের দক্ষতা অনুযায়ী কাজ করতে পারা।যেখানে কাজের স্বাচ্ছন্দ্যের পাশাপাশি কাজের স্থান ও সময় কোনো ধরাবাধা নিয়ম নেই । যদি আমি সোজা ভাবে বলি তাহলে এটা হল স্ব উদ্যোগ এর কাজ।

 ফ্রিল্যান্সিং এর জনপ্রিয়তা কি?

ফ্রিল্যান্সিং স্ব উদ্যোগ এর কাজ বলে, কাজের স্বাচ্ছন্দ্যের পাশাপাশি কাজের স্থান ও সময় কোনো ধরাবাধা নিয়ম না থাকায় এ পেশার জনপ্রিয়তা রয়েছে।

 ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ কি?

ফ্রিল্যান্সিংয়ে অনেক ধরনের কাজ রয়েছে, যেমন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, ডাটা এন্ট্রি, আর্টিকেল রাইটিং স্টরি রাইটিং, মার্কেটিং, ওয়েব ডেভলপিং ইত্যাদি ।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে কি লাগবে?

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে প্রথমেই লাগবে কাজ জানা। কাজটা যদি আপনি না জানেন তাহলে আপনার সকল পরিশ্রম বৃথা যাবে। আপনি আগে কাজ জানুন তারপরে কাজ করুন। তারপরে যে জিনিসটা প্রয়োজন হবে তা হলো কম্পিউটার বা একটি ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ তার পাশাপাশি ইন্টারনেট কানেকশন ।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ কিভাবে শেখা যায?

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শিখতে চান তাহলে উপরে বর্ণিত যে কোন একটা বিষয় এর উপর কাজ শিখবেন । এই কাজের জন্য রয়েছে বিভিন্ন ট্রেনিং সেন্টার। সেখানে আপনি যে কোন একটা কাজের জন্য ট্রেনিং নিতে পারেন। এছাড়াও আপনি নিজে থেকেও ইউটিউব দেখে দেখে কাজ শিখতে পারেন।

 কে কাজ দিবে ?

আপনাকে কাজ দিবে ক্লায়েন্ট সে ক্ষেত্রে আপনার দক্ষতা ও যোগ্যতা লাগবে। আপনি আপনার ক্লায়েন্টের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করে কাজ নিতে পারেন । সেক্ষেত্রে আপনার প্রয়োজন হবে ইংরেজি ভাষা জ্ঞান।

ইংরেজি ভাষা না জানলে আপনি তো তার সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন না আপনার বাংলা ভাষা সে কি বুঝবে? সে তো বুঝবে না। তাকে আপনার যোগ্যতা দেখে যদি মুগ্ধ করতে পারেন তাহলে আপনাকে সে কাজ দিতে বাধ্য । সে আপনার কাজ টা আপনাকে পেমেন্ট করবে ।

পেমেন্টের নিশ্চয়তা কি?

সকলের মনে একটা প্রশ্ন জেগেছে সে তো বিদেশী বায়ার। সে কিভাবে আমাকে অন্য দেশ থেকে এদেশে পেমেন্ট করবে সে যদি টাকা না দেয় আমার কি করার আছে । তাই যদি আপনারা মনে করে থাকেন সেটা ভুল কারণ সে আপনাকে পেমেন্ট করবে। কারণটা হলো সে আপনার কাছ থেকে কাজ করিয়ে নিচ্ছে 100 ডলারে সে ওই কাজটা থেকে পাচ্ছে 1000 ডলার ।

এবার আপনিই বলুন সে কি আপনাকে পেমেন্ট করবে? যদি আপনাকে 100 ডলার না দেয় তাহলে আপনি তার কাজ আর করবেন না তাহলে সে 1000 ডলার ও লাভ হলো না । তাই এখানে সে প্রেমেন্ট করতে বাধ্য।

পেমেন্টের নিশ্চয়তা নিয়ে কাজ করতে চাই ?

আপনাদের কারো মনে সন্দেহ থাকলে, সরাসরি কাজ না করে আপনারা মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন। এবং সেখান থেকে 100% নিশ্চয়তা পাবেন।

কোন মার্কেটপ্লেসে কাজ করব?

বিশ্বব্যাপী কয়েকটা মার্কেটপ্লেস রয়েছে। যেমন, আপওয়ার্ক, ব্যালেন্সার, ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার, গুরু, টু গেট ইত্যাদি । তবে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সবচাইতে ভালো হবে আপওয়ার্ক এবং ফাইবার।

 মার্কেটপ্লেস কিভাবে নিশ্চয়তা দেয়?

হ্যাঁ অতি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। আপনি হলেন এখানে প্রথম পার্টি, আপনাকে যে কাজ দেবে সে দ্বিতীয় পার্টি, যে দুজনকে কাজ এবং পেমেন্ট এর নিশ্চয়তা দেবে সেই হলো তৃতীয় পার্টি, মানে মার্কেটপ্লেস।

আপনি এবং যে কাজ দিবে তার মাঝে রয়েছে মার্কেটপ্লেস । ক্লায়েন্ট কাজ করানোর জন্য মার্কেটপ্লেসে নিয়োগ ছাড়লো। মার্কেটপ্লেসে কাজের নিয়োগ গ্রহণ করল এবং তার কাছ থেকে সে কাজের অগ্রিম পেমেন্ট নিয়ে নিল। এবং সেই কাজটি মার্কেটপ্লেস থেকে আপনার কাছে যাবে । আপনি সেই কাজে আবেদন করবেন। যদি আপনি কাজ পেয়ে যান এবং সেই কাজটা করে মার্কেটপ্লেসে জমা দিবেন। তখন মার্কেটপ্লেস থেকে আপনাকে ডলার পে করবে। আপনি সেটিকে ব্যাংক থেকে উত্তোলন করবেন।

সম্মানিত পাঠক আমি আশা করি আপনারা সকলেই বুঝতে পেরেছেন । এই কাজ করার জন্য আপনার ধৈর্য লাগবে। ধৈর্য্য ধরে কাজ করতে থাকুন আপনিও সফল হবেন ফ্রিল্যান্সিংয়ে।

Read More

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top