ল্যাপটপ হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় সমস্যা ও সমাধান – এবং কিছু কৌশল

আসসালামু আলাইকুম পাঠক। আশা করি আপনি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। আজ আমি আপনার সাথে কথা বলতে চলেছি “ল্যাপটপ” বিষয় নিয়ে। কিভাবে ল্যপটপকে চালু করবেন। তাছাড়া ল্যপটপ চালু সংক্রান্ত যাবতীয় সমস্যা এবং তার সমাধান নিয়ে এই টিউটোরিয়ালটি সাজানো হয়েছে। তো চলুন শুরু করা যাক।

কেন এই আর্টিকেল

 

বর্তমান যুগে ল্যাপটপ বা কম্পিউটার আসলে একটা প্রয়োজনীয় ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস হয়ে দাড়িয়েছে। ভালো চাকরির করার পূর্বশর্ত হলো কম্পিউটার সম্পর্কে দক্ষতা থাকা। কখনো কখনো এটা ছাড়া আমাদের রুজি-রোজগার বন্ধ হয়ে যায়। যেমনঃ ব্যাংক কর্মকর্তা, ফ্রী ল্যান্সার, ওয়েব ডেভেলপার, ইঞ্জিনিয়ার ইত্যাদি। তাই ল্যাপটপ সম্পর্কে দক্ষতা থাকা জরুরি। আর দক্ষতা হলো জ্ঞান থাকা এবং বাস্তব জীবনে জ্ঞানের প্রয়োগ থাকা। এজন্য ল্যাপটপের ওপর জ্ঞান থাকলেই চলবে না বরং এটাকে কিভাবে চালাতে হয় তাও শিখতে হবে।

তাই বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে গেলে ল্যাপটপ শেখা অপরিহার্য হয়ে দাড়ায়। তাছাড়া বাংলাদেশ সরকার বর্তমানে আইসিটি ওপর অনেক গুরুত্ব দিচ্ছেন। আর ল্যাপটপ চালানোর জন্য এটি অন বা চালু করা আবশ্যক। তাই এই টিউটোরিয়ালটি নিয়ে আমি আব্দুল্লাহ আপনার সামনে হাজির হয়েছি।
আমরা যারা নতুন ল্যাপটপ কিনেছি হয়তো চালু করতে পারছি না। যদি এই সমস্যায় পড়েন তাহলে আমার আর্টিকেলটি আপনার জন্য উপকারী হবে। তো কথা না বাড়িয়ে টিউটোরিয়ালটি শুরু করছি।

ল্যাপটপ চালু করার কৌশল —

১. ল্যাপটপের ভাজ (fold) খুলুন অর্থাৎ (unfold) করুন।
২. ভাজ খোলার পর কি-বোর্ড Layout দেখতে পাবেন।
৩. কি-বোর্ড Layout এর বামদিকের ওপরে একটা পাওয়ার বাটন দেখতে পাবেন।
৪. পাওয়ার বাটনে ক্লিক বা পুশ করুন।
৫. যদি আপনার ল্যাপটপে উইন্ডোজ ৭ দেওয়া থাকে এবং একাধিক উইন্ডোজ দেওয়া থাকে তবে সেক্ষেত্রে Enter বাটনে প্রেস করতে হতে পারে।
৬. উইন্ডোজ ওপেন হতে কিছুটা সময় অপেক্ষা করুন।
অতঃপর আপনার ল্যাপটপ চালু হয়ে যাবে।

ল্যাপটপ চালু করতে সমস্যা

আপনার ল্যাপটপ রান হচ্ছে না, বিপ বিপ শব্দে আপনার কানের বারোটা বাজিয়ে দিচ্ছে। তাহলে চলুন জেনে আসি এর কারণ। যদি উইন্ডোজ রান হতে বা ল্যাপটপ স্টার্ট হতে অনেক সময় সমস্যা হয়। তবে তার কারণও আছে। তাহলে নিচের কয়েকটি কারণে উইন্ডোজ রান হতে বা ল্যাপটপ স্টার্ট হতে চায় না।

কারণঃ

১. ল্যাপটপে চার্জ না থাকা।
২. ল্যাপটপে ব্যাটারি নষ্ট হওয়া।
৩. ল্যাপটপে উইন্ডোজ ইনিস্টল না থাকা।
৪. র‍্যামে সমস্যা হলে।
৫. ল্যাপটপের উইন্ডোজে ভাইরাস দ্বারা আক্রমণ ঘটলে।

ল্যাপটপ চালু না হওয়ার সমস্যার সমাধান

 

ল্যাপটপে চার্জ না থাকা

ল্যাপটপ চালু হওয়ার পূর্বশর্ত হলো ল্যাপটপে চার্জ থাকা। যদি যন্ত্র নিজে চলবার জন্য শক্তি না থাকে তাহলে কেমন করে চলবে। তাই ল্যাপটপ অন বা চালু না হলে অবশ্যই চার্জ আছে কিনা দেখে নিবেন।

ল্যাপটপের ব্যাটারি নষ্ট হওয়া

ল্যাপটপের চালু না হওয়ার পিছনে অন্যতম কারণ হলো ল্যাপটপের ব্যাটারি নষ্ট হওয়া। তাই ল্যাপটপের ব্যাটারি নষ্ট হয়েছে কিনা চেক করার জন্য অন্য ল্যাপটপের ব্যাটারি খুলে নিজের ল্যাপটপে ইনিস্টল করুন। যদি ব্যাটারি নষ্ট হয় তাহলে পাওয়ার বাটনে চাপ মারার সাথে সাথে এটি চালু হতে শুরু করবে। এছাড়াও আপনি চার্জার দিয়ে চার্জ দেওয়া অবস্থায় পাওয়ার বাটন প্রেস করুন। দেখবেন আপনার ল্যাপটপ চালু হতে শুরু করেছে।

ল্যাপটপের উইন্ডোজে ভাইরাস দ্বারা আক্রমণ ঘটলে

ল্যাপটপ একটি ইলেক্ট্রেনিক ডিভাইস। আর এটি কম্পিউটার প্রোগ্রাম দিয়ে রান হয়। তাই এতে ভাইরাস লাগা অসম্ভব নয়। তবে ভয় নেই কেননা কম্পিউটার ভাইরাস প্রতিহত করতে বিভিন্ন এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার কোম্পানি আপনার জন্য এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইন্টারনেটে রেখে দিয়েছে। কতগুলো ভাইরাস কেবল উইন্ডোজকে আক্রমণ করে এবং ল্যাপটপকে চালু না হওয়ার প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। একটা ভালো এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার দিয়ে উইন্ডোজ ভাইরাস ধ্বংস করা যায়। তাই ল্যাপটপে এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইনিস্টল করে উইন্ডোজ ভাইরাস ধ্বংস করে দিন এতে করে পরবর্তীতে ল্যাপটপ চালু হতে আর সমস্যা তৈরি করতে পারবে না।

[ বি.দ্রঃ নিচের টিউটোরিয়ালটি করার জন্য অবশ্যই দক্ষ ব্যাক্তির কাছে নিয়ে যাবেন। ]

ল্যাপটপে উইন্ডোজ ইনিস্টল না থাকা

ল্যাপটপে চার্জ আছে, ল্যাপটপের ব্যাটারি নষ্ট হয়নি তবুও চালু হচ্ছে না। তাহলে আপনাকে দেখতে হবে ল্যাপটপে উইন্ডোজ ইনিস্টল আছে কিনা। যদি ল্যাপটপে উইন্ডোজ ইনিস্টল না করা থাকে তাহলে একটা উইন্ডোজের ডিক্স কোনো কম্পিউটার সার্ভিস দোকান থেকে কিনে বা ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে একজন দক্ষ ব্যাক্তিকে দিয়ে উইন্ডোজ ইনিস্টল করে নিতে পারেন। উইন্ডোজ ইনিস্টল করলে আপনি ল্যাপটপকে চালু করতে পারবেন। নতুবা আপনার ল্যাপটপ চালু হবে না।

র‍্যামে সমস্যা হওয়া

আপনার ল্যাপটপ যদি রান করাতে দিয়ে বিপ বিপ শব্দ করে তাহলে বুঝতে হবে এটা র‍্যামের দোষ। কেননা র‍্যামের কোনো সমস্যা হলে ল্যাপটপ বিপ বিপ শব্দ করে। ল্যাপটপ যেহেতু এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সহজেই স্থানান্তর করা যায় তাই র‍্যাম নড়ে যাওয়া বা সরে যাওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। তাই ল্যাপটপ খুলে র‍্যামকে সঠিক জায়গায় স্থাপন করলে এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আবার র‍্যামের কানেক্টরে ধুলাবালি জমলে এমনটা হয়ে থাকে। একটা রাবার দিয়ে কানেক্টরগুলোকে ঘষে পরিষ্কার কর‍্যে পারেন। পাশাপাশি র‍্যাম স্লটটিকে শক্ত ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করতে পারেন। যদি এতেও কাজ না হয় তাহলে অন্য ভালো ল্যাপটপের র‍্যাম লাগিয়ে নিতে পারেন। যদি ভালো ল্যাপটপের র‍্যাম লাগিয়ে ল্যাপটপ চালু হয় তাহলে বুঝতে হবে র‍্যামটি সমস্যাযুক্ত। বাজার থেকে একটা ভালো র‍্যাম কিনে এনে প্রতিস্থাপন করলে ইনশাল্লাহ ল্যাপটপ চালু করতে সক্ষম হবেন।

 

এতক্ষণ ধরে আলোচনাকৃত টিউটোরিয়াল টি Step By Step follow করলে আশা করি আপনি আপনার ল্যাপটপকে চালু করতে সক্ষম হবেন। যদি আপনার ল্যাপটপকে চালু করতে সক্ষম না হন তবে কমেন্ট করে অবশ্যই জানাবেন।

তাহলে আমরা ল্যাপটপ চালু করে শিখে গেলাম এখন আমরা শিখব কিভাবে ল্যাপটপ বন্ধ করতে হয়। তো চলুন ল্যাপটপ বন্ধ করার টিউটোরিয়াল টি শুরু করা যাক।

এই টিউটোরিয়ালটি কেবল Windows 10 এর জন্য প্রযোজ্য হবে। ল্যাপটপ আপনি দুই ভাবে বন্ধ করতে পারবেন। প্রথমত স্টার্ট মেনুতে গিয়ে। দ্বিতীয়ত কি-বোর্ড ব্যাবহার কর। প্রথমে আমি আপনাকে স্টার্ট মেনুতে গিয়ে কিভাবে ল্যাপটপ বন্ধ করতে হয় তা জানাব। পরবর্তীতে কি-বোর্ড ব্যাবহার করে কিভাবে ল্যাপটপ বন্ধ করতে হয় তা জানাব।

স্টার্ট মেনুতে গিয়ে ল্যাপটপ বন্ধ করার কৌশল —

১. স্টার্ট (Start) বাটনে প্রেস করুন।
২. নিচের মতো একটা উইন্ডো ওপেন হবে।

৩. উইন্ডোর পাওয়ার বাটনে প্রেস করলে আবার উইন্ডো পাবেন। সেখানে থাকবে Sleep, Shut down, Restart।
৪. উইন্ডো থেকে Shut down বাটনে ক্লিক করতে হবে।

ল্যাপটপের Shut down হতে কিছুটা সময় দিন।

কি-বোর্ড ব্যাবহার করে ল্যাপটপ বন্ধ করার কৌশল —

১. সকল প্রোগ্রাম থেকে বের হয়ে আসুন।
২. ল্যাপটপকে একাবার Refresh করুন।
৩. কি-বোর্ডের Alt এবং F4 একসাথে প্রেস করুন।
৪. নিচের মতো একটা উইন্ডো আসবে।


৫. এরপর Ok বাটনে ক্লিক করলেই আপনার ল্যাপটপ বা কম্পিউটার বন্ধ হয়ে যাবে।
ল্যাপটপ বন্ধ হতে প্রয়োজনীয় সময় দিন সব কিছু বন্দ হলে ল্যাপটপ ভাজ করে রেখে দিন।
ল্যাপটপ বন্ধ করার ক্ষেত্রে একটা বিষয় খেয়াল রাখবেন তাহলো সকল প্রোগ্রাম থেকে বের হয়ে বন্ধ করা। আশা করি আমার এই টিউটোরিয়ালটি ভালো লেগেছে। সবার স্বুস্থ্যতা কামনা করে আজকের মতো শেষ করছি। আল্লাহ হাফেজ।

কিছু কথা

এই টিউটোরিয়ালে দেখানো ট্রিক্স গুলো follow করতে গিয়ে ল্যাপটপ নষ্ট বা আপনার অর্থহানি ঘটলে এই আর্টিকেল এবং এই ওয়েবসাইট দায়ী থাকবে না। আর এই আর্টিকেল থেকে উপকৃত হলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

Read More

2 thoughts on “ল্যাপটপ হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় সমস্যা ও সমাধান – এবং কিছু কৌশল”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top