করোনা ভাইরাস নিয়ে আমাদের বাংলাদেশের কিছু পরিস্থিতি।

আস্সালামু আলাইকুম। কেমন আছেন? জানি আমার এই প্রশ্নটা করা এখন ঠিক না কারণ, আমরা করোনা ভাইরাসের কারণে অনেক খারাপ পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি। কিন্তু তবুও আমাদের উচিত আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করা, কারাণ তিনি আমাদের এখনো অনেক সুস্থ রেখেছেন। তাই আমরা সবাই বলি আলহামদুলিল্লাহ। বন্ধরা আমি আপনাদের সামনে আজকে যে বিষয়টি নিয়ে হাজির হয়েছি, তা হলো করোনা ভাইরাস নিয়ে বাংলাদেশের কিছু পরিস্থিতি। আশা করি মনোযোগ সহকারে পোষ্টটি পড়লে অনেক কিছু জানতে পারবেন। চলুন আর কথা না বাড়িয়ে আসল কথায় চলে যাই।

বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্ব হূমকির মূখে। যেহেতু এই ভাইরাসটির কোন ঔষুধ না থাকায় তা অনেক ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে অনেক অল্প সময়ে। এবং এই ভাইরাসটির কোন ঔষুধ তৈরি করা সম্ভব হচ্ছে না কারণ এই ভাইরাসটির প্রকাশের পর থেকে ৩৮০ বার তার রূপ রং প্রকৃতি পরিবর্তন করেছে। আর বর্তমানে সারা বিশ্বের অবস্থা ভয়াবহ হওয়ায় বাংলাদেশে অনেক জায়গায় লক ডাউন করে দেওয়া হয়েছে। যার কারণে দরিদ্র মানুষ গুলো অনেক কষ্টে রয়েছে। তার তাদের এই কষ্টের সুযোগ নিয়ে অনেক মানুষেরা তাদের দয়া মানুষের কাছে প্রকাশ করার জন্য বিভিন্ন ভাবে তাদের সাহায্য করছে। যার মাধ্যমে তারা বুঝিয়ে দিচ্ছে তারা গরিবদের অনেক ভালোবাসেন। কিন্তু অনেকেই তা প্রচার জন্য করে থাকেন। মানুষ দান করার সময় অনেক ফটো ভিডিও করে তা ফেসবুক ইউটিউবের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। যেখানে তার এই সাহায্যের কথা প্রকাশ পায়। কিন্তু তা কি ঠিক? একদমই ঠিক না কারণ ইসলামে বলা আছে তোমরা ডান হাত দিয়ে দান করলে বাম যেন তা জানতে না পায়। অর্থাত তা প্রচার না করা। বা নিয়ে গর্ববোধ না করা। কিন্তু আমরা এমন ভাবে দান করি যার মাধ্যমে আমাদের বাম হাত না শুধু অন্যের বাম হাত সহকারে পুরো শরীরটাই জানতে পারে। তাহলে ভাই এই দান করে কী লাভ। দান করবেন আল্লাহ তায়ালা সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য। যাতে করে তিনি আপনার সন্তুষ্টি হয়ে আপনার সাথে সাথে আমাদের সকলকে এই করোনা ভাইরসের হাত থেকে রক্ষা করেন।

এবার আশা যাক মধ্যবিত্তদের বর্তমানে করোনার কারণে গরিবরা কষ্ট থাকার কারণে আমরা অনেকেই তাদের সাহায্য সহযোগিতা করে থাকি। কিন্তু কেউ কী কখনো মধ্যবিত্তদের কথা ভেবেছেন। তারা কোন পরিস্থিতিতে আছেন। হতে পারে তারা গরিবদের থেকে বেশি কষ্টে আছে। কারণ গরিবরা কষ্টে আছে তাই আমরা তাদেরকে সহযোগিতা করায় তারা কিছুটা হলেও সুখে রয়েছে। কিন্তু মধ্যবিত্তরা তো দিন রুজি করে দিন খেত কিন্তু বাংলাদেশের এই পরিস্থিতে দিন রুজি করে দিন খাওয়াটা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু তবুও আমরা তাদের এই পরিস্থিতে তাদের পাশে দাড়াচ্ছি না। তাই তারা কারো কাছ থেকে কোন সহযোগিতা পাচ্ছেনা। তাই আমরা গরিবদের সহযোগিতার পাশাপাশি মধ্যবিত্তদেরও সহযোগিতা করার চেষ্টা করবো। আর বেশি আল্লাহর ইবাদত করে আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করবো। যাতে তিনি আমাদেরকে এই পরিস্থিতিতে থেকে উদ্ধার করে। তাহলে আজকে এই পর্যন্তই আল্লাহ হাফেজ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap