পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড : আমাদের এই ওয়েবসাইটে ভোটার আইডি কার্ড নিয়ে, বিভিন্ন পোস্টে বিভিন্ন লোকেরা জিজ্ঞাসা করে, পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার উপায় কি।

আপনি যদি অনলাইনের মাধ্যমে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ফ্রী ডাউনলোড করার চিন্তা করে থাকেন।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম
পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম

তাহলে এটার কোনো সুযোগ নেই। কিন্তু অনলাইন থেকে মাত্র 21 টাকা ফি দিয়ে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড খুব সহজে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

নতুন ভোটার হওয়ার পরে অনলাইন থেকে নতুন ভোটারদের ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার সুযোগ থাকলেও।

পুরাতন ভোটারদের ফ্রিতে ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার কোন অপশন দেওয়া নেই।

তার জন্য সর্বনিম্ন 230 টাকা সরকারি ফি জমা দিয়ে এনআইডি রি-ইস্যু জন্য আবেদন করার প্রয়োজন হয়।

কিন্তু নতুন বা পুরাতন সকল ভোটারদের ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারেন। মাত্র 21 টাকা সরকারি ফি জমা প্রদান করে।

আপনি যদি পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে চান। তাহলে শুধু মাত্র 21 টাকা বিকাশ, নগর, রকেট থেকে পরিশোধ করে যে, কেউ জাতীয় পরিচয়পত্র অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার উপায়

আপনি যদি অনলাইন থেকে পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড জাতীয় পরিচয়পত্র অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে চান।

তাহলে আপনাকে সরাসরি- prottoyon.gov.bd অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে হবে। এবং সে ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে হবে। নিচের ছবিটি দেখুন-

উক্ত ওয়েব সাইটে একাউন্ট খুলতে, কোন ফি দিতে হবে না আপনারা ফ্রী একাউন্ট খুলুন অপশনে ক্লিক করে দিবেন। এবং তারপর নাগরিক অপশনে ক্লিক করবেন। নিচের ছবি দেখুন-

তবে, সরাসরি নাগরিক একাউন্ট পেজে নিয়ে যাবে। উক্ত ফরমটি পূরণ করার জন্য 10 ডিজিট বা 17 ডিজিট জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর, জন্ম তারিখ, এবং মোবাইল নাম্বার প্রয়োজন হবে। ফরমটি সঠিকভাবে পূরণ করে নিবন্ধন করুন বাটনে ক্লিক করে দিবেন। নিচের ছবি দেখুন-

আপনারা উপরের ছবিতে নিজের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার জন্ম তারিখ এবং মোবাইল নাম্বার দেয়ার পর জন্ম নিবন্ধন করণে ক্লিক করে দিবেন।

তারপর আপনার সামনে 6 ডিজিটের একটি ভেরিফিকেশন কোড চলে আসবে। কোডটি প্রবেশ করিয়ে জমা দিন বাটন এ ক্লিক করবেন তাহলে স্টেশন হয়ে যাবে এবং মোবাইলে পাসওয়ার্ড চলে আসবে নিচের ছবিটি দেখুন।

উপরের ছবিটির মতো লগইন কার্যক্রম সম্পন্ন করার পর। আপনাকে নিচের ছবির মত একটি ড্যাশবোর্ড দেয়া হবে। যেমন-

উপরিউক্ত ছবিতে, লাল চিহ্ন দ্বারা অংশে ক্লিক করতে হবে। তারপর পেজটি লোড হয়ে জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য প্রিন্টের অপশন এ নিয়ে যাবে।

সেখানে আপনার স্মার্ট কার্ডের নম্বর এবং জন্মতারিখ দেখানো হবে সেখান থেকে প্রিন্ট করুন বাটনে ক্লিক করে দিবেন।

নিচের ছবিতে দেখুন-

উপরের ছবির মত প্রিন্ট করুন বাটনে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে পুরাতন ভোটারদের, জাতীয় পরিচয়পত্র অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য নির্ধারিত যে খরচ গুলো দেখাবে। সর্বমোট 21 টাকা 36 পয়সা দিতে হবে। নিচের ছবিটি দেখুন-

অপরাধে উৎসবের মতো পরিশোধ করুন বাটনে ক্লিক করে দিতে হবে পেজ লোড হয়েছে। পরিষদের অপশন চলে আসবে। এখানে ডেবিট কার্ড, মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ফি পরিশোধ করা যাবে। নিচের ছবিটি দেখুন-

আপনারা ফি পরিশোধ করার জন্য মোবাইল ব্যাংকিং অপশনটি সিলেক্ট করে নেবে। তারপর বিকাশ রকেট নগদ যেকোনো একটি একাউন্ট এ ক্লিক করবেন যা আপনার রয়েছে।

আমার নিজের এনআইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য রকেট একাউন্ট থেকে ফি পরিশোধ করেছি। আপনি আপনার পছন্দমত একটি মাধ্যম সিলেক্ট করুন। নিচের ছবিটি দেখুন-

তানিয়া মে ফিল পরিষদের মাধ্যমে সিলেক্ট করার পর 1 নং ছবিতে একটি পেজ চলে আসবে। এখানে মোবাইল একাউন্ট এর ঘরে আপনার বিকাশ, রকেট, নগদ এর মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করবেন।

অ্যাকাউন্ট নাম্বার এর শেষে অতিরিক্ত সংখ্যা থাকলে অবশ্যই সেটি ব্যবহার করে দেবেন। এর ঘরে আপনার পিন নম্বরটি দিয়ে সাবমিট বাটনে ক্লিক করবেন।

সাবমিট বাটনে ক্লিক করার পর পেজটি লোড হয়ে 2 নং ছবির মত চলে আসবে। এবং আপনার মোবাইল নাম্বারে একটি সিকিউরিটি কোড চলে যাবে।

সে কোডটি প্রবেশ করিয়ে Go বাটনে ক্লিক করে দিবেন। তারপর এনআইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করার জন্য নির্ধারিত ফি পরিশোধ এবং নিচের ছবির মত চলে আসবে দেখুন-

তারপর আপনার পেমেন্ট সম্পর্কিত তথ্য দেখাবে আবেদন এর আইডি নাম্বার দেখাবে।

এবং আপনার ভোটার আইডি কার্ডের অনলাইন কপি রঙিন পিডিএফ ফরমেটে ডাউনলোড করার জন্য একটি লিংক দেওয়া হবে।

আপনি মাত্র একটি ক্লিক করে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। নিচের ছবিটি দেখুন-

জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করার সংরক্ষণ করে রাখবেন। উক্ত অনলাইন কপি দিয়ে, আপনি প্রয়োজনীয় সকল প্রকার কাজ করতে পারবেন।

শুধু একবার ডাউনলোড হবে, বারবার ডাউনলোড করা সম্ভব হবে না। পুনরায় ডাউনলোড করতে চাইলে, আবার ফ্রী পরিশোধ করতে হবে।

ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন এর সার্ভার থেকে লোড হয় বিধায় এটি তথ্য সম্পূর্ণ সঠিক।

অনলাইন থেকে এই একটিমাত্র উপায়ে ব্যবহার করে পুরাতন ভোটাররা তাদের জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

মনে করুন আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড কোন কারণবশত হারিয়ে গেছে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর টি মনে আছে।

সে ক্ষেত্রে আপনারা সহজেই এই প্রক্রিয়া অবলম্বন করে, অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন কঁপি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আজ আমাদের এই আর্টিকেলে আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হল, পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম। আপনি যদি পুরান ভোটার হয়ে থাকেন। এবং আপনার আইডি কার্ড যদি কোন কারণে নষ্ট হয়ে যায় বা হারিয়ে যায়।

সে ক্ষেত্রে নতুন একটি আইডি কার্ড প্রয়োজন। সে ক্ষেত্রে আপনারা অপরাধেও পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করে সহজে অনলাইন কঁপি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। মাত্র 21 টাকার বিনিময়ে।

তো বন্ধুরা আমাদের আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ার পর আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

আর বিশেষ করে এই আর্টিকেলটি আপনার বন্ধুদের জানাতে একটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap