ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় 100% নিশ্চিত উপায়

ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করার 100% নিশ্চিত উপায়ঃ হ্যাঁ বন্ধুরা ঠিকই শুনেছেন। বর্তমানে ফেসবুকে চ্যাটিং করে বিভিন্ন স্ট্যাটাস আপলোড করে এবং বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিয়ে প্রচুর সময় নষ্ট করেছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন ফেসবুক থেকে ইনকাম করা যায়? ফেসবুক ছাড়াও অন্যান্য অনেকগুলো জনপ্রিয় অনলাইনে ইনকাম করার মাধ্যম রয়েছে। যেগুলো আমি ইতিমধ্যে আমার এই ওয়েবসাইটে খুঁটিনাটি সকল বিষয়ে আলোচনা করেছি।

আজকের এই টিউটোরিয়ালে আলোচনা করছি কিভাবে ফেসবুক ব্যবহার করে ঘরে বসে আয় করবেন। আমরা সকলেই জানি, ফেসবুক হচ্ছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোশ্যাল মিডিয়াগুলোর মধ্যে একটি সোশ্যাল মিডিয়া, বর্তমানে ফেসবুকে 2.5 বিলিয়ন এর অধিক অ্যাক্টিভ ইউজার রয়েছে।

ফেসবুক থেকে কিভাবে আয় করা যায় তার জনপ্রিয় কিছু মাধ্যম আলোচনা করা হলোঃ

ফেইসবুক থেকে আয় করার কৌশল।
ফেইসবুক থেকে আয় করার কৌশল।

যদিও ফেসবুক থেকে আয় করার অনেকগুলো জনপ্রিয় মাধ্যম রয়েছে আজকে আমি সেখান থেকে সবচেয়ে বহুল পরিচিত এবং বেশি ব্যবহৃত যে মাধ্যম গুলো রয়েছে সেগুলো নিয়েই আলোচনা করছি।

কত টাকা আয় করা সম্ভবঃ

ফেসবুক থেকে কত টাকা ইনকাম করা সম্ভব। এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করবে আপনার পণ্যের ক্যাটাগরি বা আপনার কাজের ক্যাটাগরি অথবা আপনি কেমন মার্কেটিং করছেন তার উপর। আপনি যদি ভালোভাবে মার্কেটিং করতে পারেন তাহলে ফেসবুক থেকে প্রতি মাসে 20 হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। আরও পড়ুনঃ ব্লগের মাধ্যমে আয় করুন।

আপনি যদি ফেসবুকে ইনকাম করা শুরু করেন অর্থাৎ ফেসবুকে ব্যবসা শুরু করেন, প্রথম অবস্থায় আপনার কমিউনিটি ছোট থাকায় একটু কষ্টসাধ্য হয়ে যাবে চালু রাখুন, কিন্তু যদি আপনার ব্যবসাটি চালু রাখতে পারেন তাহলে ভবিষ্যত খুব উজ্জ্বল।

ফেসবুক বিজনেস/মার্কেটপ্লেস (Facebook Marketplace) এর মাধ্যমে আয়ঃ

ফেসবুক থেকে আয় করার যতগুলো জনপ্রিয় মাধ্যম রয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং উল্লেখযোগ্য মাধ্যম হল ফেসবুক বিজনেস। অর্থাৎ ফেসবুকের মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন। ফেসবুক বিজনেস পেজ তৈরি করে কিভাবে আপনার ব্যবসা পরিচালনা করবেন তার পূর্ণাঙ্গ টিউটোরিয়াল এখানে আলোচনা করা হলোঃ

Facebook marketplace
Facebook marketplace

ফেইসবুক পেজ তৈরিঃ (Create a Facebook Page) ফেসবুক বিজনেস অর্থাৎ ফেসবুকে ব্যবসা করতে চাইলে প্রথমে আপনাকে ফেসবুকে একটি পেজ তৈরী করতে হবে। আপনার যদি একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থাকে আপনি চাইলে সহজেই সে অ্যাকাউন্ট থেকে একটি পেজ তৈরী করে নিতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে কোন প্রকার খরচ করতে হবে না।

facebook page creation
facebook page creation

স্টোর সেটাপঃ (Store Settup) ফেসবুক পেজ তৈরি করার পর আপনি যে সে বাবা পণ্য নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন সে পণ্য বা সেবা সম্পর্কে ফেসবুকে আপডেট রাখুন। অর্থাৎ আপনার পণ্যের একটি স্টোর সেটআপ করুন। আপনি যদি ফেসবুকে একটি স্টোর বা একটি সার্ভিস এর পেজ তৈরি করে মার্কেটিং করেন তাহলে খুব সহজেই এখান থেকে পণ্য বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন।

মার্কেটিংঃ (Marketing) শুধুমাত্র পেজ তৈরি করে সেখানে পণ্য আপলোড করলেই হবে না সেটার জন্য আপনাকে মার্কেটিং করে কাস্টমারের কাছে পৌঁছাতে হবে। আপনি চাইলে বিভিন্ন পেজ ফেসবুক প্রোফাইল অথবা ফেসবুক গ্রুপে শেয়ার করে আপনার পণ্যের বা সার্ভিসের খুব সহজেই মার্কেটিং করতে পারেন। আপনি যত মার্কেটিং করতে পারবেন প্রচার করতে পারবেন আপনার পণ্য বা সেবা বিক্রয় হওয়ার সম্ভাবনা তত বেড়ে যাবে।

বোস্টঃ (Boost) আর যদি আপনি এইভাবে মার্কেটিং না করতে চান, সে ক্ষেত্রে কিছু টাকা খরচ করে ফেসবুকে বুষ্ট করে দিন আপনার পণ্যগুলো কাস্টমারের কাছে পৌঁছে যাবে।

ফেইসবুক মার্কেটপ্লেস (Facebook marketplace) এর সুবিধা সমূহঃ

  • টার্গেটেড কাষ্টমারের নিকট সেবাটি সহজেই পৌছাতে পারবেন
  • টার্গেটেড লোকেশনে মার্কেটিং করতে পারবেন।
  • ঘরে বসে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন।
  • আপনার পণ্যের ফ্রিতে মার্কেটিং করতে পারবেন।
  • আপনার পণ্যের ফ্রি বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন।
  • আপনার লোকেশনে আপনার ফ্রেন্ড সারকেল থাকায় অনেক কাষ্টমার পাবেন

যে বিষয়গুলি লক্ষ রাখতে হবেঃ

  • চাহিদা সম্পন্ন প্রোডাক্ট রাখতে হবে।
  • মূল্যর দিকে খেয়াল রাখতে হবে।
  • কাষ্টমারের চাহিদার মূল্যায়ন করতে হবে।

ফেইসবুক মনিটাইজ করে আয়ঃ

বর্তমানে ফেসবুকে একটি নতুন ফিচার যুক্ত হয়েছে যেখানে যুক্ত হয়ে একজন ফেসবুক ইউজার ছোট ছোট ভিডিওগুলোকে মনিটাইজ করে প্রচুর পরিমাণে ইনকাম করতে পারে। এখানে আনলিমিটেড ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে। আবার রয়েছে বেশ কিছু সীমাবদ্ধতা।

Facebook monetization income
Facebook monetization income

ফেসবুক মনিটাইজেশন করে ইনকাম করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করে তারপর ইনকাম শুরু করতে হবে। এটি ইউটিউবে ইনকাম করার মতোই ইনকাম করার একটি সুযোগ ফেসবুক করে দিয়েছে।

অর্থাৎ ইউটিউবে যেমন গুগল অ্যাডসেন্স মনিটাইজ করে টাকা ইনকাম করা যায় ফেসবুকে ঠিক তেমনি ভাবে অ্যাড ব্র্যাক এর বিজ্ঞাপন মনিটাইজ করে আনলিমিটেড ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে।

ফেসবুক মনিটাইজেশন এর জন্য শর্ত সমূহঃ

ফেসবুকে ‍ads Break মনেটাইজ করে আয় করতে চাইলে নিম্নে শর্তগুলো পূরণ করতে হবে।

  • একটি ফেসবুক পেজ থাকতে হবে
  • কমপক্ষে 10000 লাইক থাকতে হবে
  • 3 মিনিটের একটি ভিডিওর মধ্যে মিনিমাম 1 মিনিট ভিউ হতে হবে
  • কমপক্ষে 30000 ভিউ হতে হবে
  • ফেসবুকে আপলোড করা ভিডিও গুলো ইউনিক হতে হবে
  • আপলোড করা ভিডিও গুলো অবশ্যই ক্যাপচার করা হতে হবে

আপনার ফেসবুক পেজে যদি উপরোক্ত বিষয়গুলো পরিপূর্ণ থাকে তাহলে ফেসবুক স্টুডিওর মাধ্যমে Ads breack মনিটাইজ করে আয় করতে পারবেন। এবং এখান থেকে আনলিমিটেড ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে।

এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আয়

ফেসবুকের মাধ্যমে বিভিন্ন কোম্পানির এফিলিয়েট লিংক শেয়ার করে বিক্রি করে আয় করা সম্ভব। বর্তমানে অনেকে ফেসবুক ব্যবহার করে এফিলিয়েট মার্কেটিং করে ঘরে বসে আয় করছেন লক্ষ লক্ষ টাকা। এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে হলে প্রথমেই যে ওয়েবসাইট বা যে প্রোডাক্টের এফিলিয়েট মার্কেটিং করতে চান সে প্রোডাক্ট এর লিঙ্ক এনে ফেসবুকে প্রমোট করতে হবে। ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার ও প্রসার করবেন আপনার এফিলিয়েট লিংক থেকে তত বিক্রয় হবে। যত বেশি বিক্রয় হবে আপনার কমিশন তত বাড়তে থাকবে।

Amazon, Ebay, Ali express এর মত বড় বড় এফিলিয়েট মার্কেট প্লেসে এর এফিলিয়েট লিংখ তৈরি করে ফেইসবুক থেকে আয় করছেন এমন অনেক মার্কেটার আছে।

সিপিএ মার্কেটিং করে আয়

ফেসবুকের মাধ্যমে সিপিএ মার্কেটিং করে আয় করা যায়। Click Bank বা অন্যান্য যেসকল সিপিএ মার্কেটিং এর মার্কেট প্লেস রয়েছে সেখান থেকে ফেসবুকের মাধ্যমে প্রমাণ করে ঘরে বসে আয় করা যায় আপনারা চাইলে সিপিএ মার্কেটিং করে ফেসবুকের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

ইন্সটেন্ট আর্টিকেল এর মাধ্যমে আয়

ফেসবুক থেকে ইনকাম করার আরও একটু মার্কেটপ্লেস হল ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল। ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর ফেসবুক প্রগ্রামে আয় করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে হবে। এবং আপনার ওয়েবসাইটটি ফেসবুকে ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল এর জন্য আবেদন করতে হবে। যদি আপনার ওয়েবসাইটটি মানসম্মত হয় এবং ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল প্রকাশ করার মত নীতিমালা মধ্যে থাকে তাহলে ফেসবুক থেকে আপনাকে এ অনুমোদন দেওয়া হবে। এবং ফেসবুকে আপনার ওয়েবসাইটের সকল আর্টিকেল প্রদর্শিত হবে । দর্শকরা আপনার আর্টিকেলগুলো পড়তে থাকবে। আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনাকে কমিশন দেওয়া হবে।

লোকাল প্রোডাক্ট বিক্রয় করে আয়

ফেসবুকের মাধ্যমে লোকাল প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে পারবেন। আপনি যদি ফেসবুকের মাধ্যমে লোকাল প্রোডাক্ট বিক্রি করে আয় করতে চান সেক্ষেত্রে আপনাকে বেশ কিছু বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে।

যেমন,

প্রোডাক্ট এর গুণগত মান নিশ্চিত করন: আপনি যে প্রোডাক্টটি ফেসবুকের মাধ্যমে মার্কেটিং করবেন সেই প্রোডাক্টের গুণগতমান সম্পর্কে আপনাকে নিশ্চিত রাখতে হবে। যদি আপনার পণ্যের গুণগত মান ঠিক না থাকে তাহলে আপনি একই প্রোডাক্ট একই কাস্টমারের কাছে দ্বিতীয় বার বিক্রি করতে পারবেন না এমনকি আপনার রিপোর্ট একশন খারাপ হয়ে গেলে সেই প্রোডাক্টটি মার্কেটে আর চলবে না।

মূল্য নির্ধারণঃ আপনি যে প্রোডাক্টটি ফেসবুকের মাধ্যমে বিক্রয় করতে চাচ্ছেন সেটির এমন মূল্য নির্ধারণ করতে হবে যে মূল্যটি অন্য লোকাল মার্কেটে একই থাকে। আপনি যদি লোকাল মার্কেট এর চেয়ে আপনার প্রোডাক্টের মূল্য বেশি রাখেন সেক্ষেত্রে কাস্টমাররা আপনার পণ্যটি কিনতে আগ্রহী হবে না।

ডেলিভারি নিশ্চিত করনঃ আপনি যে প্রোডাক্টটি ফেসবুকের মাধ্যমে বিক্রয় করবেন সেটি কাস্টমারের কাছে ডেলিভারি নিশ্চিত করতে হবে সেজন্য আপনাকে যথাযথ ব্যবস্থা রাখতে হবে।

কমিউনিকেশনঃ আপনি যখন ফেসবুকে মার্কেটিং করে পণ্য বিক্রয় করবেন তখন কাস্টমারদের সাথে কমিউনিকেশন বা যোগাযোগ রাখতে হবে। কাস্টমার কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে তাৎক্ষণিকভাবে সে বিষয়ে সম্পর্কে তাকে ক্লিয়ার করতে হবে। যখন আপনার কমিউনিকেশন ভালো থাকবে তখন আপনার পণ্য বিক্রয় অনেকগুণ বেড়ে যাবে।

পেজ বিক্রয় বা প্রমোশন করে আয়

ফেসবুক পেজ তৈরি করে লাইক বাড়িয়ে সেগুলো বিভিন্ন কম্পানির কাস্টমারের কাছে বিক্রয় করতে পারেন যেন তারা আপনার ফেসবুক পেজটি নিয়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে মার্কেটিং করতে পারে। অথবা অন্য কোন পেজ আপনার পেজের মাধ্যমে প্রমোট করে তাদের পেজে লাইক বাড়িয়ে দিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে অনেক লোকাল কোম্পানি রয়েছে যারা তাদের ফেসবুক পেজকে লাইক বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন কোম্পানি বা মার্কেটের কাছে পেমেন্ট করে থাকে।

লোকাল বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে আয়ঃ

আপনার যদি একটি ভাল মানের ফেসবুক পেজ থাকে তাহলে তাহলে  বিভিন্ন লোকাল কোম্পানিকে প্রমোট করে আয় করতে পারেন। ভালো একটি পেজ থাকলে অনেক কোম্পানি আপনাকে আপনার পেজে তাদের কোম্পানিকে প্রচার প্রসার করার জন্যে অনুরোধ করবে এবং আপনি তাদের বিজ্ঞাপন গুলো আপনার ফেসবুকের পেজের মাধ্যমে প্রমোট করে দিয়ে আয় করতে পারবেন।

সর্বোপরি আমাদের পরামর্শঃ

আপনি যদি বুদ্ধি খাটিয়ে ফেসবুকের মাধ্যমে ভালো মার্কেটিং করতে পারেন তাহলে ফেসবুক থেকে প্রতি মাসে 20 হাজার টাকা থেকে শুরু করে 2  লাখ টাকার অধিক আয় করা খুবই সহজ ব্যাপার।

যদি এই লেখাটি আপনার কাছে ভালো লাগে তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন। এবং এ ব্যাপারে আপনার যদি কোন পরামর্শ থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।

You May Like

1 thought on “ফেসবুকে কিভাবে টাকা আয় করা যায় 100% নিশ্চিত উপায়”

Leave a Comment