ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে কাজ করে। ফরেক্স ট্রেডিং শিখুন 7 দিনে অনলাইনে আয় করুন

ফরেক্স ট্রেডিং ইন্টারনেট থেকে টাকা আয়ের জগতে একটি সুপরিচিত নাম। ফরেক্স ট্রেডিং শব্দটার সাথে আমরা অনেকেই কমবেশি পরিচিত। কেউ হয়তো শুনেছি ফরেক্স ট্রেডিং করে অনেক টাকা ইনকাম করা যায়। কেউ কেউ হয়তো ভাবছেন শুরু করবেন ফরেক্স ট্রেডিং। কিন্তু ঠিক কোন উপায়ে বা কোন কোনো ধাপ শিখে আস্তে আস্তে ট্রেডিংয়ে আগানো উচিৎ এই প্রশ্ন আমাদের অনেকেরই।

কেউ কেউ আবার অনেক প্রত্যাশা নিয়ে ফরেক্স শেখা শুরু করেন, কিন্তু কিছু দিন পর উপযুক্ত কোনো গাইড লাইন না পেয়ে, নানা রকম প্রশ্ন মাথায় নিয়ে চিন্তিত হয়ে ফিরে যান। হয়ে যান আশাহত। তবে আমাদের সকলের মধ্যেই কিন্তু একজন সফল ফরেক্স ট্রেডার হওয়ার ইচ্ছেটা রয়েই যায়।

আপনাদের কথা মাথায় রেখেই আমাদের আজকের এই লেখাটিতে আমরা ফরেক্স ট্রেডিং কি, ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে করে, ফরেক্স ট্রেডিং থেকে আয় করার উপায় নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব। তো আর দেরি কেন, চলুন শুরু করা যাক!

ফরেক্স ট্রেডিং কি? কিভাবে ফরেক্স ট্রেডিং কাজ করে
ফরেক্স ট্রেডিং কি? কিভাবে ফরেক্স ট্রেডিং কাজ করে

অনলাইন ট্রেডিং কি

এই বিশ্বায়নের যুগে মানুষ এখন ঘরে বসে ব্যবসা বাণিজ্য করছে। অনলাইনের মাধ্যমে কোনো সফটওয়্যার এর সাহায্যে ফিজিক্যাল মুদ্রা ছাড়াই পণ্য বেঁচা কেনা করার পদ্ধতিকে অনলাইন ট্রেডিং (FX) বলা হয়।

অনলাইন ট্রেডিং সারাবিশ্বেই অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং সম্ভাবনাময় একটি প্ল্যাটফর্ম। অনলাইন ট্রেডিং এর জগতে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে ফরেক্স। এখন আমরা ফরেক্স নিয়ে আলোচনায় ঢুকে যাব।

ফরেক্স কি

ফরেক্স এর পূর্নরূপ হলো ফরেন এক্সচেঞ্জ। ফরেক্স হলো এমন একটি বাজার যেখানে বিদেশী মুদ্রা গুলোর এক্সচেঞ্জ বা বেঁচা কেনা হয়ে থাকে। এই ফরেক্স একটি গ্লোবাল মার্কেট। এখানে কোনো নির্দিষ্ট দেশের আধিপত্য নেই৷ বরং এই বাজারে বিভিন্ন আলাদা আলাদা দেশেএ মুদ্রার লেনদেন হয়ে থাকে।

ফরেক্সকে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যস্ত মার্কেট বলা হয়। কারন এখানে বর্তমানে প্রত্যেকদিনে প্রায় ৫.১ ট্রিলিয়ন ডলারের লেনদেন হয়। ফরেক্সে বিশ্বজুড়ে সপ্তাহের ৫ দিন, ২৪ ঘন্টাব্যাপী ট্রেডিং চলতে থাকে।

আশা করছি ফরেক্স  সম্পর্কে আপনি কিছুটা হলেও ধারনা পেয়েছেন।

ফরেক্স ট্রেডিং কি

উপরে আমরা ফরেক্সের একটা সাধারন সংজ্ঞা পেয়ে গেছি যে, ফরেক্স মানে হলো বিদেশী মুদ্রার আদান প্রদান। এখন ট্রেডিং এর বাংলা অর্থ হলো লেনদেন বা কেনা বেচা করা৷

সুতরাং, সহজ ভাষায় ফরেক্স ট্রেডিং অর্থ হলো বিভিন্ন বিদেশী মুদ্রার কেনা বেঁচার ব্যবসা করা। বিভিন্ন কারনে দেশ গুলোর এই মুদ্রার দামের কমবেশি হয়। তাই কোনো দেশের মুদ্রাকে কম দামের সময় কিনে রেখে বেশি দামের সময় বিক্রি করাকে বুঝায়।

ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে করে

আমরা ইতোমধ্যেই হয়তো বুঝে গেছি যে ফরেক্স ট্রেডিং মানেই হলো কোনো দেশের মুদ্রা কিনে সেটিকে অন্য আরেক দেশের মুদ্রার বিনিময়ে বেঁচে দেওয়া। তবে আদতে এটিকে সহজ মনে হলেও ফরেক্স ট্রেডিং এতটা সহজ ব্যাপার নয়। ঠিকভাবে ফরেক্স ট্রেডিং শিখে এরপর বুঝে শুনে নির্দিষ্ট জায়গায় বিনিয়োগ করতে হয়। প্রচুর ইনভেস্টর ফরেক্সের লাভের ব্যাপারে শুনে এখানে ইনভেস্ট করেন। কিন্তু ৯৫ শতাংশই এক্ষেত্রে খালি হাতে ফিরে যান। এর পেছনে মূল কারন হলো ফরেক্স সম্পর্কিত জ্ঞানের ঘাটতি।

ফরেক্সে ট্রেডিং করার জন্য বেশ কিছু এজেন্ট, কোম্পানি বা ব্রোকার রয়েছে। এই ব্রোকারদের সাহায্য নিয়েই আপনি ফরেক্সে টাকা ইনভেস্ট করা এবং মুদ্রা গুলোর লেনদেন করতে পারবেন। তাই ফরেক্স ট্রেডিং ভালভাবে শিখে এরপর কোনো ভাল ব্রোকার এর সাহায্যে আপনি ফরেক্স ট্রেডার হতে পারবেন।

ফরেক্স মার্কেটে সব সময় বিভিন্ন দেশের মুদ্রার বর্তমান দামের আপডেট থাকে। মুদ্রা কেনা বা বেঁচার সময় ট্রেডারকে সেই মুদ্রার বর্তমান এক্সচেঞ্জ রেট দেখে সিদ্ধান্ত নিতে হয়। গ্লোবাল ফরেক্স মার্কেটে এমনভাবে প্রত্যেক দেশের মুদ্রার বর্তমান দাম আপডেট হতে থাকে। ফরেক্সে ভিন্ন কোনো দেশের মুদ্রা কেনার সময়ে আপনি নিজ দেশের মুদ্রাও ব্যবহার করতে পারবেন। ফলে কোনো দেশের মুদ্রার কম দামের সময় সেখানে ইনভেস্ট করে সেদেশের মুদ্রা কিনে রাখলে এবং বেশি দামের সময় সেই মুদ্রা বিক্রি করে দিয়ে ফরেক্স ট্রেডাররা আয় করে থাকে। এভাবেই এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় লেন দেনের বাজারে পরিণত হয়েছে।

ফরেক্স ট্রেডিং থেকে আয়

ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে করে সে সম্পর্কে হয়তো আপনি ইতোমধ্যেই জেনে গেছেন। এখন আপনাদের মনে প্রশ্ন জাগতে পারেক্স ফরেক্স ট্রেডিং থেকে আয় করব কিভাবে। এখন সেই প্রশ্নের উত্তরটিই দেওয়ার চেষ্টা করব।

ফরেক্স ট্রেডিং থেকে আয় করতে চাইলে প্রথমত ভাল কোনো ব্রোকারের মাধ্যমে ফরেক্সে একাউন্ট ওপেন করতে হবে। ফরেক্সের কিছু ব্রোকারের নাম হলো – Hot Forex, Trading Point, Delta Stock AD, eToro, Fast Brokers, Tadawul FX,  Windsor Brokers ইত্যাদি। ফরেক্সে আয় করার ক্ষেত্রে ভালো ব্রোকার অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ভালো ব্রোকার আপনাকে কম টাকায় একাউন্ট খুলতে সাহায্য করবে। আপনাকে তারা কম বিনিয়োগে ভাল ফরেক্স ট্রেডিং করার সুযোগ দিবে এবং দ্রুত অনলাইন সাপোর্ট দিবে।

ফরেক্স ট্রেডিং থেকে আয় করার ক্ষেত্রে ফরেন এক্সচেঞ্জে কারেন্সির উঠা নামার দিকে লক্ষ্য রেখে আপনাকে কম দামী কিন্তু সম্ভাবনায় কারেন্সি কিনতে হবে। এরপর সেই কারেন্সির দাম বেড়ে গেলে ভাল দামে বিক্রি করে দিতে হবে। আপনি যে ব্রোকারের সাহায্যে ফরেক্সে লেনদেন করবেন তাদের ওয়েবসাইট বা এপসের মাধ্যমে আপনি প্রচুর পরিমাণে এনালাইসিস পাবেন, সেগুলো বিশ্লেষণ করেই মূলত ইনভেস্ট করতে হবে। তাই ফরেক্স ট্রেডিং থেকে আয় করার ক্ষেত্রে আপনাকে ফরেক্স ভালভাবে শিখে নিতে হবে।

মোবাইলে ফরেক্স ট্রেডিং

আমাদের অনেকেরই ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ কম্পিউটার নেই। কিন্তু তা বলে তো ট্রেডিং থেমে থাকবেনা। মোবাইল ফোন দিয়েই আপনি অতি সহজেই ফরেক্স ট্রেডিং করতে পারবেন। তাছাড়া অনেক ফরেক্স ট্রেডার ল্যাপটপ দিয়ে করেন, কিন্তু জরুরী প্রয়োজনে মোবাইল ফোন থেকে ফরেক্স ট্রেডিং এনালাইসিস করতে হয়। তখন অনেকে লগ ইন করতে সমস্যায় পড়েন। এই সমস্যার সমাধান পেতে লেখাটির এই অংশে চোখ রাখতে হবে।

মোবাইল থেকে ফরেক্স ট্রেডিং করার জন্য প্রথমে আপনাদেরকে Metatrader 4 বা MT4 অ্যাপসটি প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করে নিতে হবে এবং ইন্সটল করতে হবে।

তারপর ব্রকার এর কাছ থেকে আপনার ই-মেইলে পাওয়া mt4 অ্যাকাউন্ট ডিটেইলস দিয়ে লগইন করতে হবে। মোবাইলে আনার একাউন্টে লগইন করা কিছুটা ভিন্ন। তাই অনেকে  লগইন করতে সমস্যায় পড়েন। এখানে যেভাবে দেখানো হয়েছে সেভাবেই লগইন করলে আশা করি সফলভাবে লগ ইন করতে পারবেন।

সফটওয়্যারটিতে লগ ইন করার পর সেটিং ওপেন করবেন। সেটিংস ওপেন করার পর বামপাশের উপরের মেনুতে ক্লিক করার সাথে সাথেই ম্যানেজ একাউন্ট দেখতে পারবেন।  সেখানে ক্লিক করার পর নতুন একটি পেজ আসবে।  সেখান থেকে আপনি Log in to add existing account সিলেক্ট করবেন।  তারপর আপনাকে ইমেইল করে যে সার্ভারটি দেওয়া হয়েছিল সেটি লিখে সার্চ করবেন।  সেই সার্ভারটির পেয়ে গেলে সেখানে ক্লিক করে তারপর আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে নিবেন।

এভাবেই আপনারা মোবাইল ব্যবহার করেই ট্রেডিং শুরু করতে পারবেন।  লগইন হয়ে যাবার পর এই অ্যাপসটির মধ্যে অনেকগুলো অপশন দেখতে পাবেন। সেগুলোতে ঘোরাঘুরি করলেই আশা করি মোবাইল থেকে ফরেক্স ট্রেডিং করতে আপনাদের কোনো সমস্যা হবেনা।

আরও পড়ুন: ব্লগিং কি? ব্লগিং করতে এই 31 টি বিষয় আপনাকে জানতেই হবে

ফরেক্স ট্রেডিং কি বাংলাদেশে বৈধ

ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে করে সেই সম্পর্কে আমরা ইতোমধ্যেই জেনে গেছি। এখন, বাংলাদেশে ফরেক্স ট্রেডিং বৈধ কিনা এই প্রশ্ন সকলের মধ্যেই রয়েছে। তাছাড়া যারা ইতোঃপূর্বে ফরেক্স ট্রেডিংয়ের ব্যাপারে জানেন ফরেক্স ট্রেডিং এর মাধ্যমে প্রচুর পরিমানে আয় করা সম্ভব, তারাও এটি বাংলাদেশে বৈধ কিনা সে সম্পর্কে দ্বিধায় থাকেন।

এ সম্পর্কে বাংলাদেশ ব্যাংক কিছুদিন আগে জানিয়েছে যে, ফরেক্স ট্রেডিং বাংলাদেশে সম্পূর্ণ বৈধ। তবে এক্ষেত্রে কিছু কিছু বিধি নিষেধ রয়েছে। বিধি নিষেধ সঠিকভাবে মেনে চলে ফরেক্স ট্রেডিংয়ে ইনভেস্ট করা হলে সেই ক্ষেত্রে ফরেক্স ট্রেডিং অবৈধ হবে না।

ফরেক্স ট্রেডিংয়ের বিধি নিষেধ

বাংলাদেশে বৈধভাবে ফরেক্স ট্রেডিং করতে হলে কিছু কিছু বিধি নিষেধ মেনে চলতে হবে। এগুলো হলো –

  • ফরেক্স ট্রেডিং এর মাধ্যমে বেআইনিভাবে কখনোই বৈদেশিক মুদ্রা বেঁচা কেনা  করা যাবে না।
  • ফরেক্স ট্রেডিং শেখানোর নাম করে কোনো ভুয়া বিজ্ঞাপন দেওয়া যাবেনা। কোন ব্যক্তি যদি ফরেক্স ট্রেডিং শেখানোর নামে ভুয়া প্রশিক্ষণের বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে সে ক্ষেত্রে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
  • ফরেক্স ট্রেডিংয়ে ডিপোজিট করার ক্ষেত্রে বাংলাদেশে অনুমোদিত নয়, এমন কোনো মাধ্যম ব্যবহার করা যাবে না। বাংলাদেশে অনুমোদিত নয়, কিন্তু সারাবিশ্বে জনপ্রিয় এমন কিছু মাধ্যমের মধ্যে রয়েছে পেপাল, স্ক্রীল, নেটেলার ইত্যাদি। সুতরাং কেউ যদি এই ধরনের প্লাটফর্ম গুলো ব্যবহার করে ফরেক্স ট্রেডিং এর কোনো সাইটে ডিপোজিট করে থাকেন সে ক্ষেত্রে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
  • বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক বৈধ বলে বিবেচিত প্ল্যাটফর্মের বাইরে অন্য কোনো প্ল্যাটফর্মে ফরেক্স ট্রেডিং করা যাবেনা। কিছু কিছু ফরেক্স ট্রেডিং প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যেগুলো বাংলাদেশে অননুমোদিত। কিছু প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যেগুলো কেবলমাত্র বিশ্বের প্রথম শ্রেণীর দেশগুলোর জন্য প্রযোজ্য। আপনারা অনেকেই হয়তো  Proxy-server কিনে সেই প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ করেন। এবং সেখানে ইনভেস্ট করেন। তবে এক্ষেত্রে সে সকল প্ল্যাটফর্মের অথরিটি যদি বুঝতে পারে আপনি ভিন্ন কোথাও থেকে Proxy server নিয়ে প্রবেশ করেছেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনার একাউন্টে ব্যান করে দেওয়া হবে। ফলে আপনার ইনভেস্ট করা টাকার পুরোটাই গচ্ছা যাবে। তাই বৈধ প্ল্যাটফর্মগুলোতেই ফরেক্স ট্রেডিং করা নিরাপদ হবে।

ফরেক্স ট্রেডিং কি হালাল

বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষই মুসলিম এবং মুসলিমদের যেকোনো কাজের আগে হালাল এবং হারাম সম্পর্কে জেনে নেওয়া অত্যন্ত জরুরি। ফরেক্স ট্রেডিং যেহেতু বেশ নতুন একটি ব্যবসা, অনেকেই এই ব্যবসার পদ্ধতি নিয়েও দ্বিধার মধ্যে আছেন। তাই আমাদের সকলের মধ্যেই ফরেক্স ট্রেডিং কি হালাল নাকি হারাম সে সম্পর্কে প্রশ্ন রয়ে গেছে। লেখাটির এই অংশে আমরা ফরেক্স ট্রেডিং হালাল নাকি হারাম সে সম্পর্কে জানার চেষ্টা করব।

ফরেক্স ট্রেডিং হালাল নাকি হারাম এমন প্রশ্নের উত্তরে আলেমদের কাছ থেকে দুইরকম মন্তব্য পাওয়া গেছে৷ ফরেক্স ট্রেডিং এর মানে হচ্ছে বিভিন্ন দেশের মুদ্রার বেচা কেনা বেঁচা। মুদ্রা ক্রয় বিক্রয়ের ক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক কর্তৃক সেদেশের মুদ্রার একটা নির্দিষ্ট ইন্টারেস্ট রেট থাকে। আপনি বা আমি ফরেক্স ট্রেড শুরু করলে সেই ইন্টারেস্ট রেট আমাদের বেলায়তেও প্রযোজ্য হবে। এই ইন্টারেস্ট গ্রহণ করা মুসলিমদের জন্য সম্পূর্ণভাবে হারাম।

ইন্টারেস্ট গ্রহণের এই ঝামেলা দূর করার জন্য ফরেক্সের অনেক ব্রোকার আজকাল ইন্টারেস্ট ফ্রি একাউন্ট বা  ইসলামিক একাউন্ট বা মুসলিম ফ্রেন্ডলি একাউন্ট এর পদ্ধতি গ্রহণ করেছে। যেসব ব্রোকাররা এই ইন্টারেস্ট ফ্রি একাউন্ট সাপোর্ট করে সেগুলোতে লেনদেন করা হারাম হবেনা। কারন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক যে ইন্টারেস্ট রেট দেয়, সেই হারাম থেকে তখন আমরা মুক্ত।

তাছাড়া ফরেক্স ট্রেডিংয়ে বিভিন্ন দেশের মুদ্রার  কেনা বেচা করা হয়। এক দেশের মুদ্রা বিক্রি করে অন্য দেশের মুদ্রা কিনে রাখার ক্ষেত্রে হারাম কিছু নেই বলে মত দিয়েছেন আলেমরা। তবে একই দেশের মুদ্রা কেঁনাবেচা করলে সেটি হারাম হতে পারে। কারন এক টাকার দাম সব সময় এক টাকাই থাকবে। এক টাকার নোট দুইটাকায় বিক্রি করলে সেটি হবে সুদের নামান্তর। ভিন্ন দেশের মুদ্রা কেনা বেচায় দর পতনের ঝুঁকিও রয়েছে।

অতএব যেহেতু এখানে পরিশ্রম, ঝুকি এবং ইনভেস্ট এর বিষয় আছে সেক্ষেত্রে এই ব্যবসা ইসলামিক দৃষ্টিতে হালাল। তবে অধিকতর নিশ্চিত হওয়ার জন্য কোনো প্রখ্যাত আলেমের সাহায্য নিতে পারেন।

ফরেক্স ট্রেডিং শিখুন

ফরেক্স ট্রেডিং শুরু করার আগে অবশ্যই ট্রেডিং শিখতে হবে। ভালভাবে শেখার আগে হুজুগের বশে ফরেক্সে ইনভেস্ট করলে সম্পূর্ণ টাকা হারানোর সম্ভাবনা থাকে। ফরেক্স ট্রেডিং শেখার জন্য বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান দেশে রয়েছে৷ ইন্টারনেটে নানা বই পুস্তক ও ভিডিও আর্টিকেল রয়েছে। সেগুলো নিয়ে বেশ কিছুদিন ঘাটাঘাটি করলে আপনি ফরেক্স ট্রেডিং শিখতে পারবেন। সংক্ষেপে আমি ফরেক্স ট্রেডিং এর কিছু মৌলিক বিষয় সম্পর্কে এখানে বলছি –

ফরেক্স একাউন্ট

ফরেক্স অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেই মূলত মুদ্রা গুলো লেন দেন করা হয়। তাই ফরেক্স ট্রেডিং শুরু করার পূর্বে প্রথম কাজ হলো ফরেক্স একাউন্ট তৈরী করা। ফরেক্স একাউন্ট গুলো লট সাইজের উপর নির্ভর করে তিন ধরনের হয়ে থাকে। এগুলো হলো-

মাইক্রো ফরেক্স অ্যাকাউন্টঃ

মাইক্রো ফরেক্স একাউন্ট হলো সবচেয়ে ছোট ফরেক্স একাউন্ট। এ ধরনের অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে প্রতি লটে ১০০০ ডলার পর্যন্ত ট্রেড করা যায়।

মিনি ফরেক্স অ্যাকাউন্টঃ

মিনি ফরেক্স একাউন্ট হলো মধ্যম মানের ফরেক্স একাউন্ট। প্রতি লটে ১০,০০০ ডলার পর্যন্ত ট্রেড করার জন্য মিনি ফরেক্স অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা যায়।

স্ট্যান্ডার্ড ফরেক্স অ্যাকাউন্টঃ

স্ট্যান্ডার্ড ফরেক্স একাউন্ট হলো সাধারন ফরেক্স একাউন্ট৷ এই একাউন্টটি অনেক বেশি পরিমাণে টাকা লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। স্ট্যান্ডার্ড অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে প্রতি লটে ১০০,০০০ ডলার পর্যন্ত ট্রেড করা যায়।

উল্লেখ্য যে, প্রতি লটে যত বেশি ট্রেড করা যাবে, লেভারেজ এর জন্য তত বড় অংকের মুদ্রা ট্রেড করা যাবে।

আস্ক

সর্ব নিম্ন যে মূল্যে কোনো ট্রেডার মুদ্রাটি কিনতে আগ্রহী সেই মূল্যকে আস্ক (Ask) বলা হয়। আস্ক প্রাইস বেশিরভাগ সময়েই বিড প্রাইস থেকে বেশি হয়ে থাকে।

বিড

বিড (Bid) হলো যে নির্দিষ্ট দামে কোনো সেলার তার কাছে থাকা কারেন্সি সেল করতে আগ্রহী সেই মূল্য। কোনো বায়ার রিকুয়েষ্ট করলে তখন একজন মার্কেট মেকার একটি বিড স্থাপন করেন। বিড প্রাইসটি সেই কারেন্সির চাহিদার সাথে মিল রেখে ওঠা নামা করে।

বেয়ার মার্কেট

যে মার্কেটে সকল কারেন্সির দাম কমে যায়, এমন মার্কেটকে বলা হয় বেয়ার মার্কেট (Bear Market)। বেয়ার মার্কেট মূলত ট্রেডিং মার্কেটের মন্দা ও অর্থনৈতিক সংকটের একটি প্রধান নির্দেশক।

বুল মার্কেট

যে ধরনের ট্রেডিং মার্কেটে সকল কারেন্সির দামই বেড়ে যায় তাকে বুল মার্কেট (Bull Market) বলা হয়। সারা বিশ্বের অর্থনীতির উন্নতিকে বুঝাতে বুল মার্কেট ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া বুল মার্কেট দ্বারা কোনো মার্কেটের উন্নতি বুঝানো হয়।

লেভারেজ

ফরেক্সে সব সময় ইনভেস্টরের সমান টাকা থাকেনা। মাঝেমধ্যে লাভ বাড়াতে মূলধন ধার করতে হয়। ধার করা এইমূলধনকে বলা হয় লেভারেজ। লেভারেজের পরিমাণ বেশি হলে ফরেক্স মার্কেট প্রভাবিত হয়। অনেক ট্রেডারই মাঝেমধ্যে লেভারেজ ব্যবহার করে মার্কেটে তাদের পজিশন বুস্ট করে থাকেন।

লট

ফরেক্সের কারেন্সি সব সময় লট আকারে এক্সচেঞ্জ করা হয়ে থাকে। অর্থাৎ সহজ ভাষায় কোনো নির্দিষ্ট পরিমানে অর্থ ট্রেডিং করা হলে, সেই পরিমাণ অর্থকে একত্রে লট বলা হয়। লট এর সাইজ বড় হলে, লাভ ও ক্ষতির সম্ভাবনা একই সাথে বেশি হবে। উপরের দিকে যে আমরা বিভিন্ন ধরনের একাউন্টের কথা জেনেছি সেগুলোও লট সাইজ হিসেবেও ব্যবহৃত হয়।

মার্জিন

কারেন্সি ট্রেডিং এর ক্ষেত্রে ব্যবহার করার জন্য ভিন্ন কোনো অ্যাকাউন্টে রাখা অর্থকে মার্জিন বলা হয়। মার্জিন মানি আর্থিকভাবে ব্রোকারকে সচ্ছল রাখতে সহায়তা করে। তাছাড়া ট্রেডার এর শর্ত ও বাধ্য বাধকতা পূরণে সক্ষম হওয়ার ক্ষেত্রে মার্জিন বিশাল ভূমিকা পালন করে।

ফরেক্স ট্রেডিং বই

পোস্ট পড়ে এতক্ষনে হয়তো আপনারা ফরেক্স ট্রেডিং শেখার গুরুত্ব জেনে গেছেন। ফরেক্স ট্রেডিং শেখার জন্য বিভিন্ন ধরনের বই পাওয়া যায়। যেহেতু ফরেক্স ট্রেডিং সারাবিশ্বেই জনপ্রিয়, তাই এই বইগুলা বিশ্বের নানা ভাষায় লিখিত হয়েছে।

আপনি বই পড়ে ফরেক্স ট্রেডিং শেখার মনস্থির করলে ইংরেজি ভাষার বই পড়তে আমি উৎসাহিত করব। কারন, বাংলা ভাষার ফরেক্স ট্রেডিং বই গুলোতে সাধারণত এন্ট্রি লেভেলের তথ্য দিয়ে পূর্ন থাকে। তাই গভীরভাবে ফরেক্স ট্রেডিং শিখতে হলে ভাল ইংরেজি বই পড়তে হবে। গুগলে সার্চ করলেই প্রচুর পরিমাণে ভাল বই পাওয়া যাবে।

শেষ কথা

এই ছিল ফরেক্স ট্রেডিং এর খুঁটিনাটি বিষয়াদি নিয়ে আমাদের আজকের পোষ্ট। এই আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে থাকলে আপনি ফরেক্স ট্রেডিং কি, ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে করে ও মোবাইলে ফরেক্স ট্রেডিং নিয়ে আশা করি বিস্তারিত জেনে গেছেন। আপনাদের আরো কোনো প্রশ্ন থাকলে আমাদের কমেন্টবক্সে জানাতে ভুলবেন না।

আরও পড়ুন

1 thought on “ফরেক্স ট্রেডিং কিভাবে কাজ করে। ফরেক্স ট্রেডিং শিখুন 7 দিনে অনলাইনে আয় করুন”

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap