অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায়

আমাদের এই পোস্টে আপনাদের সাথে আলোচনা করব অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায় নিয়ে।

আমরা জানি, মানুষ অনলাইনকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন উপায়ে, ব্যবসা করে যাচ্ছে। আপনিও চাইলে অনলাইন বিজনেস করে অনেক অগ্রসর হতে পারবেন।

বর্তমান সময়ে অনেক ই-কমার্স কোম্পানি গুলো যেমন- রকমারি, দারাজ ইত্যাদি গুলো অনলাইন বিজনেস করে প্রচুর টাকা উপার্জন করছে।

সেই সকল কোম্পানি গুলো অনলাইন মাধ্যম ব্যবহার করে মানুষের কাছে তাদের জনপ্রিয় প্রোডাক্ট বা পণ্য গুলো প্রচার ও বিক্রি করে যাচ্ছে।

অনলাইন বিজনেসকে সরাসরি ই-কমার্স ব্যবসাও বলে থাকে অনেকে। তাই এই আর্টিকেল থেকে জানতে পারবেন, অনলাইন বিজনেস এর খুটিনাটি। শেষ পর্যন্ত নজর রাখুন।

অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায়
অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায়

অনলাইন বিজনেস কি ? (What is online business)

অনলাইন বিজনেস হলো অনলাইনের মাধ্যমে যে, বিজনেস করা হয় তাকেই অনলাইন বিজনেস বলা হয়। অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন প্রোডাক্ট বা পণ্য গুলো মানুষের কাছে সহজেই প্রচার করে বিক্রি করা যায়।

মনে করুন- বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরণের প্রোডাক্ট বা পণ্য খাদ্য দ্রব্য সহ আরো প্রায অনেক জিনিস অনলাইনের মাধ্যমে ক্রয় বিক্রয় করা হয়।

সহজ ভাবে বলতে গেলে দেশের আইনের সাথে যদি কোন বিরোধ না থাকে তাবে সকল প্রকার পণ্য গুলো অনলাইন বিজনেসে বিক্রি করে আয় করা সম্ভব।

তবে দেশের আইন বিরোধি যে, পণ্য গুলো যেমন- মাদক দব্য কোন ভাবেই বিক্রি করা যাবে না। মাদক দ্রব্য বিক্রি করা বাংলাদেশে আইনে দন্ডনীয় অপরাধ।

এ ছাড়া আপনার যে কোন পন্য গুলো অনলাইন বিজনেস হিসেবে বিক্রি করতে পারবেন একদম মূক্ত ভাবে।

অনলাইন এবং অফলাইনে বিজনেস এর মধ্যে পার্থক্য

উক্ত আলোচনাতে জানতে পারলেন, অনলাইন বিজনেস কি? এখন আপনি জানবেন, অনলাইন ও অফ লাইন বিজনেস এর মধ্যে কি ধরণের পার্থক্য আছে। আমাদের জানামতে অনলাইন বিজনেস অনেক ধরণের হতে পারে।

আবার আমরা দোকান-মার্কেট ‍গুলোতে যে ধণের বিজনেস দেখি সেগুলোকে অনলাইন বিজনেস এর আওতাভুক্ত বলা চলে।

মানে অনলাইন বিজনেস হলো এমন একটি বিজনেস যেখানে ক্রেতা বিক্রেতা উপস্থিত থেকে পন্য ক্রয় বিক্রি করে।

অফলাইন এবং অনলাইন বিজনেস এর মধ্যে অনেক পার্থক্য আছে। সেটি আপনি এখানে ক্লিয়ার ভাবে বুঝতে পারবেন।

সুনির্দিষ্ট জায়গা

আপনি যদি অফলাইন বিজনেস করতে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই সুনির্দিষ্ট জায়গা প্রয়োজন হবে। মনে করুন যারা শপিংমল বিজনেস করে তারা বছরের পর বছর একটি নির্দিষ্ট জায়গায় বিজনেস করে।

এই বিজনেস করার জন্য তাদেরকে উক্ত মার্কেট বা দোকান ভাড়া নিয়ে বা ক্রয় করে নিতে হয়েছে।

তবে অনলাইন বিজনেস করার ক্ষেত্রে আপনাকে কোন সুনির্দিষ্ট জায়গা খোজে নিতে হবে না।

যে কোন ব্যক্তি যে কোন জায়গায় বসে অনলাইন বিজনেস করে তাদের প্রোডাক্ট বা পন্য গুলো বিক্রি করতে পারবে।

পণ্য  উপস্থাপন

অফলাইন বিজনেস এ ক্রেতা বিক্রেতা কে সরাসরি পন্য উপস্থাপন করে। বিক্রেতার উপস্থিতিতে ক্রেতা সরাসরি পন্য গুলো যাচাই বাছাই করে নিতে পারে।

তবে অনলাইন বিজনেস এর ক্ষেত্রে এটি একদম আলাদা। এখানে পন্য সরাসরি উপস্থাপন করার প্রয়োজন নেই।

আপনি যে কোন অনলাইন প্লাটফর্ম মানে ফেসবকু, ইউটিউব, ওয়েবসাইট ইত্যাদির মাধ্যমে আপনার পন্যে ছবি তোলেই সেটি আপলোড করার ফলেই বিক্রি করতে পারবেন।

বিজনেস পরিচালনা পদ্ধতি

বিজনেস পরিচালনা পদ্ধতির দিক থেকে অনলাইন বিজনেস করা অফলাইন বিজনেস করার থেকে অনেক লাভজনক ও সুবিধাজনক। কারণ এখানে ঘরে বসে বিজনেস করা যায়।

অন্য দিকে অফলাইনে বিজনেস করতে হলে কাউকে দিয়ে নিজের উপস্থিত থেকে বিজনেস করতে হয়।

পন্য বিক্রির নিয়ম

অফলাইনে বিজনেস পরিচালনা করার বিষয়ে আগেই বলা হয়েছে। যেখানে ক্রেতা ও বিক্রেতা সরাসরি ক্রয় বিক্রয় করে।

এখানে যে পন্য বিক্রি হয় তা প্রায় সব ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিক হয়ে থাকে। কিন্তু অনলাইন বিজনেস এর জন্য বিষয়টি এমন না। অনলাইনে বিজনেসে বিক্রেতার জায়গা থাকে ক্রেতার জায়গায় পণ্য পৌছে দিতে কিছুটা সময় লাগে।

মানে এখানে তাৎক্ষনিক ভাবে পণ্য বিক্রি করা যায় না। এই অনলাইন বিজনেস এর পণ্য বিক্রি করার বিষয়ে ক্রেতার জায়গা দুরত্বের উপর নির্ভর করে।

আপনি যদি উক্ত আলোচনা অনুসরণ করে থাকেন তাহলে আপনিও ‍বুঝতে পারছেন অনলাইন আর অফলাইন বিজনেস এর মধ্যে পার্থক্য কি। যদি না বুঝে থাকেন তাহলে আরো একবার পড়ে নিন।

অনলাইন বিজনেস করার উপায়

অনলাইন বিজনেস শুরু করার উপায় সম্পর্কে অনেকে জানতে চান। আমরা এখানে অনলাইন বিজনেস করার উপায় নিয়ে আলোচন করব।

অনলাইন বিজনেস শুরু করার অনেক উপায় আছে। এর মধ্যে আপনার পছন্দ মতো যে, কোন উপায় ব্যবহার করে অনলাইন বিজনেস শুরু করতে পারবেন।

ফেসবুকের মাধ্যমে অনলাইন বিজনেস

আপনি যদি অনলাইন বিজনেস শুরু করতে চান? তাহলে প্রথমেই ফেসবুক বেছে নিতে পারেন। কারণ এখন বিশ্বের অধিকাংশ মানুষ আজ ফেসবুক ইউজ করে।

আপনার যদি ফেসবুক চালানোর মতো অভিজ্ঞতা থাকে। তাহলেই আপনি অনলাইন বিজনেস শুরু করতে পারবেন।

ফেসবুকে অনলাইন বিজনেস করার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করতে হবে।

আমাদের এই সাইটে ফেসবুক পেজ তৈরির করার উপায় নিয়ে আর্টিকেল পাবলিশ করেছি। চাইলে সেটি পড়ে নিতে পারেন।

অনলাইন ই-কমার্স প্লাটফর্মে অনলাইন বিজনেস

আমরা জানি, বাংলাদেশে অনেক ধরণের ই-কমার্স প্লাটফর্ম আছে। বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য কিছূ ই-কমার্স সাইট হলো রকমারি, দারাজ, আমাজন ইত্যাদি।

এই সকল ই-কমার্স কোম্পানি দেশে অনেক বছর ধরে বিজনেস করে যাচ্ছে। তারা সফলতার সাথে বিজনেস পরিচালনা করে যাচ্ছে।

আপনি যদি ই-কমার্স ওয়েবসাইট গুলোতে ভিজিট করেন তাহলে আপনি সেখানে প্রায় সকল ধরণের পন্য পেয়ে যাবেন।

আপনি যদি নিজের পণ্য গুলো বিক্রি করতে চান তাহলে সেই সকল ই-কমার্স সাইট ‍গুলোতে একটি একাউন্ট তৈরি করে সেখানে পন্য প্রচার করেও বিজনেস শুরু করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইনে বিজনেস

ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইন বিজনেস করা অনলাইনে আরো একটি জনপ্রিয় মাধ্যম। এই মাধ্যমে বিজনেস করার অনেক বড় সুযোগ ও সুবিধা আছে।

আপনি যদি চান তাহলে অনলানে ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইন বিজনেস শুরু করতে পারবেন।

তবে আপনি যেহেতু অনলাইন বিজনেস করবেন, সেহেতু আপনার সাইট আকর্ষণীয় করে তুলতে হবে। আপনার সাইট যত সুন্দর হবে তত পণ্য বিক্রি হবে।

ইউটিউবে অনলাইন বিজনেস

আপনি যদি নিজের বিজনেস প্রচার করতে চান? তাহলে সবার জনপ্রিয় প্লাটফর্ম ইউটিউবকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

আপনি যদি অনলাইন বিজনেস ইউটিউবে করতে চান তাহলে আপনাকে একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে হবে। তারপরে সেখানে  আপনার পন্য গুলোর বিষয়ে জনপ্রিয় করে ভিডিও তৈরি করতে হবে।

উক্ত মাধ্যম গুলো ছাড়া আরো অনেক ভাবে আপনি অনলাইন বিজনেস করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথা:

তো বন্ধুরা, এই পোস্টে আপনাকে জানানো হলো অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইন বিজনেস করার উপায় নিয়ে।

আপনি যদি অনলাইন বিজনে করে নিজের প্রতিষ্ঠান উন্নত করতে চান। তাহলে উক্ত যে কোন একটি মাধ্যম কাজে লাগিয়ে অনলাইন ব্যবসা শুরু করে দিন।

ট্যাগঃ অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায় অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায় অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায় অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায় অনলাইন বিজনেস কি? অনলাইনে বিজনেস করার উপায়

আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। এবং এই পোস্ট আপনার বন্ধুদের জানাতে একটি শেয়ার করুন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap