ভারতীয় ভিসা আবেদন করার নিয়ম (জেনেনিন এখানে)

ভ্রমণকারীদের জন্য, ভারত জনপ্রিয় একটি গন্তব্য স্থল। এই বিষয়টি মাথায় রেখে, দেশটির সরকার অনলাইনে, ভিসা আবেদন করার সুযোগ প্রদান করেছে।

আমাদের এই পোস্টে আপনাদের সাথে আলোচনা করব, ভারতীয় ভিসা আবদেন করার নিয়ম সম্পর্কে।

আপনি যদি উক্ত ভিসা আবেদন করার বিষয়ে, সকল তথ্য জানতে চান, তাহলে আমাদের লেখা শেষ পর্যন্ত অনুসরণ করুন।

আপনি যদি, ভারতীয় ভিসা করতে চান? তাহলে, এখানে অনেক ধরণের ভিসা রয়েছে। আপনার পছন্দ মতো ভিসা আবেদন করে, ভারতে গমন করতে পারবেন।

ভারতীয় ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া

আপনি যদি ভারতে যেতে চান? সেক্ষেত্রে আপনার ভিসা করা দরকর হবে। আপনার হয়তো প্রশ্ন হতে পারে, ভারত যেতে, কি কি ভিসা করা যায়।

তো চলুন জেনে নেওয়া যাক, ভারতীয় ভিসা গুলোর বিষয়ে। ভারতে যাওয়ার জন্য যে, সকল ভিসা করতে পারবেন। সেগুলো হলো-

  • ইন্ডিয়ান ট্যুরিস্ট ই-ভিসা
  • ইন্ডিয়ান বিজনেস ই-ভিসা
  • ইন্ডিয়ান মেডিকেল ই-ভিসা
  • ইন্ডিয়ান মেডিকেল এটেন্ডেন্ট ই-ভিসা ইত্যাদি।

আপনি যদি ভারত/ইন্ডিয়া ভিসা করতে করতে চান? তাহলে উক্ত ভিসা গুলো করে নিয়ে, ভারতে গমন করতে পারবেন।

আপনি যদি ভারত ভিসা করতে চান, তাহলে ভিসা’র আবেদন ফরম পূরণ করার আগে। আপনাকে প্রথমে  ই-ভিসা অনলাইন আবেদন করার জন্য, যোগ্যতা ও শর্ত গুলোর বিষয়ে জানতে হবে।

আপনি যদি ‍উক্ত শর্ত গুলো পূরণ করতে পারেন। তাহলে ইন্ডিয়ান ই-ভিসার জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন। এবং অনলাইনে ভিসার জন্য এপ্লাই (Apply) করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

ভারতীয় ভিসা অনলাইনে আবেদন করার জন্য, আপনাকে এই indianvisa-bangladesh.nic.in/visa/Registration লিংকে প্রবেশ করতে হবে।

উক্ত লিংকে প্রবেশ করার পরে, আপনাকে সঠিক তথ্য দিয়ে আাবেদন ফরম পূরণ করতে হবে।

তো চলুন, ভারতীয় ভিসা আবেদন করার বিষয়ে আরো কিছূ তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

ভারতীয় ভিসা আবেদন করার নিয়ম (জেনেনিন এখানে)
ভারতীয় ভিসা আবেদন করার নিয়ম (জেনেনিন এখানে)

ভারতীয় ভিসা করতে যে, সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন

আপনি যদি ভারত যেতে চান? তাহলে আপনাকে সেই দেশের নির্ধারিত ভিসা করে তার পর যেতে হবে।

আপনি যদি ভারত ভিসা করতে আগ্রহী থাকেন। তাহলে আপনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে। যে সকল ডকুমেন্ট লাগবে সেগুলো নিচের অংশ থেকে জেনে নিন।

আপনার মূল পাসপোর্ট, ভিসা আবেদন প্রেরণ করার তারিখ এর পূর্ব থেকে। মানে 6 মাস মেয়াদ থাকতে হবে।

পাসপোর্টে অন্তত্য ২ টি সাদা পাতা থাকতে হবে। পাসপোর্ট এর নথিপত্র ২য় পৃষ্ঠা এবং ৩য় পৃষ্ঠা বৈধতার মেয়াদ এডোর্সমেন্ট যুক্ত করতে হবে।

ভিসা আবেদন পত্র এর সাথে সকল পুরাতন পাসপোর্ট গুলো জমা দিতে হবে।

বর্তমানে তোলা (সদ্য) রঙিন ছবি, 2×2, (350×350) পিক্সেল সাইজের। উক্ত সাইজের রঙিন ছবি যাতে করে পুরো মুখ মন্ডল দেখা যায় এবং ছবির পিছন (ব্যাক সাইট) যেন সাদা রঙের হয়।

আপনার আবাসস্থলের প্রমান পত্র- যেমন- জাতীয় পরিচয় পত্র (ভোটার আইডি কার্ড), বিদ্যুৎ, গ্যাস, পানি এবং টেলিফোন বিল এর অনুলিপি।

নিজস্ব পেশার প্রমান পত্র- আপনি যদি চাকরি করেন। সে জন্য চাকরি দাতার কাছে থেকে সনদ নিয়ে জমা দিতে হবে।

এবং শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আইডি কার্ড এর অনুলিপি যুক্ত করতে হবে।

এছাড়া অবসর প্রাপ্ত ব্যক্তির অবসর প্রাপ্ত কাগজ পত্র, এবং ব্যবসায়ী ব্যক্তির বাণিজ্য সনদ পত্র প্রয়োজন হবে।

আর্থিক সচ্ছলতার প্রমান পত্র- ভিসা আবেদনকারীদের জন প্রতি 150 মার্কিন ডলার সমান। এর বৈদেশিক মুদ্রার, এনডোর্সমেন্ট।

কিংবা ইন্টারনেশনাল ক্রেডিট কার্ড, বা সর্বশেষ তিন মাস এর ব্যাংক স্টেটম্যান্ট এর অনুলিপি জমা দিতে হবে।

আবেদনকারীকে অনলাইন আবেদন ফরমে দেওয়া নির্ধারিত স্থানে ছবি স্ক্যান করে আপলোড করে দিতে হবে।

ভিসা করে নেওয়ার জন্য সাক্ষাৎকার করার দিন। আবেদন পত্র সাথে নিয়ে আসতে হবে অবশ্যই। এবং সকল পুরাতন পাসপোর্ট জমা দিতে হবে।

আপনি যদি সকল পাসপোর্ট জমা না দেন। তাহলে আপনার ভিসার আবেদন পত্র অস্পুর্ন বা বাতিল বলে গণ্য হবে।

বাংলাদেশী নাগরিকদের পাসপোর্ট এর বিষয়ে সকল ধরণের ভারতীয় ভিসার সাক্ষাৎ, ওয়াক’ইন পদ্ধতিতে গ্রহণ করা হয়।

ভিসা আবেদন করার পরে যা করবেন?

অনলাইনে ভিসা আবেদন করার পরে  সাক্ষাতে ভিসার, আবেদন সাবমিট করতে হবে। ভারতীয় ভিসা চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট বিভাগ ব্যতিত।

অন্যান্য বিভাগে বসবাসকারী’রা আইব্যাক, ঢাকা- যমুনা ফিউচার পার্ক এর জন্য ভিসার আবেদন করতে পারবেন।

অন্য’রা আইভ্যাক, খুলনা/ আইভ্যাক যশোর/ আইভ্যাক ময়মনসিংহ/ আইভ্যাক বরিশাল/আইভ্যাক সিলেটে, উক্ত ভিসা আবদেন করতে পারবে।

এবং যে সকল পাসপোর্ট ধারী চট্টগ্রাম বিভাগ এর বাসিন্দা। যেমন- ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লা, নোয়াখালি তারা আইভ্যাক, চট্টগ্রামে ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে।

এছাড়া, যারা রাজশাহী বিভাগে বসবাস করে। তারা আইভ্যাগ, রংপুর, আইভ্যাক, রাজশাহীতে ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবে।

ভারতীয় ভিসার ফি

আপনি যদি, বাংলাদেশী পাসপোর্ট ধারী ভারতীয় ভিসার জন্য আবদেন করতে চান? তাহলে ভিসা করার জন্য আপনার কোন ফি দরকার হবে না।

কিন্তু ভিসা প্রসেসিং ফ্রি হিসেবে 800/- (আটশত) টাকা প্রদান করতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

ভিসা প্রসেসিং ফি প্রদান করবেন যেভাবে?

আপনি ভারতীয় ভিসা প্রসেসিং ফি প্রদান করতে চাইলে payment.ivacbd.com ওয়েবসাইটে যেতে হবে।

সেই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে, আপনার আবেদন এর জন্য নির্বাচিত হাইকমিশন নির্বাচন করতে হবে।

ওয়েব ফাইল নম্বর দিতে হবে দুই বার। তারপরে আবেদন এর জন্য নির্ধারিত আইভ্যাক নির্বাচন করতে হবে।

আপনার ভারতীয় ভিসা আবেদন এর টাইপ নির্বাচন করতে হবে। আপনার ব্যক্তিগত তথ্য দিয়ে সাবমিট করতে হবে। যেমন- আপনার নাম, মোবাইল নম্বর এবং ই-মেইল এড্রেস।

উক্ত সকল তথ্য পূরণ করা হয়ে গেলে। অনলাইনের মাধ্যমে পেমেন্ট করতে পারবেন।

পেমেন্ট করার জন্য আপনার, ফাস্ট ক্যাশ, সিটি টাচ, ব্যঅংক এশিয়া, ইসলামী ব্যাংক, ডাচ্ বাংলা ব্যাংক, মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ, রকেট, এম ক্যাশ থেকে টাকা পেমেন্ট করতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুা, আমাদের এই পোস্টে আপনি জানতে পারলেন, ভারতীয় ভিসা আবেদন করার নিয়ম সম্পর্কে।

আপনি যদি উক্ত লেখা গুলো শেষ পর্যন্ত অনুসরণ করে থাকেন।

তাহলে আপনিও ভারত যাওয়ার জন্য, সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে ভিসা আবেদন করতে পারবেন।

আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লাগলো কমেন্ট করে জানাবেন। আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে আরো, বিভিন্ন দেশের ভিসা সম্পর্কে জানতে চাইলে নিয়মিত ভিজিট করুন, ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap