মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা

মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম : আপনি যদি বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা পেতে চান? তাহলে আপনাকে কি করতে হবে, কত টাকা খরচ করতে হবে এবং ভিসার জন্য কি কি ডুমেন্ট প্রয়োজন হবে। সেই বিষয়ে আমরা এখানে আপনাকে জানাব।

আপনি যদি বাংরাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা করতে আগ্রহী থাকেন। তাহলে আমাদের দেওয়া আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

আমাদের জানা মতে, বাংলাদেশী শত শত নাগরিক প্রতিনিয়ত বিভিন্ন কাজের স্বপ্ন নিয়ে মালোয়েশিয়া গিয়েছে। তাদের মধ্যে অনেক লোক আছে যারা, উচ্চ শিক্ষার লক্ষ্যে বা নিজের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে মালয়েশিয়াতে যাচ্ছে।

এছাড়া আরো আছে ভ্রমণ করার জন্য বা মালয়েশিয়াতে অবস্থিত নাম করা সকল হাসপাতাল, চিকিৎসা নেওয়ার লক্ষ্যে মালোয়েশিয়াতে যাচ্ছে শত শত বাংলাদেশী বাঙালি নাগরিক।

মালয়েশিয়া যাওয়ার আগে সকলের প্রথম যে, কথা মাথায় চলে আসে, সেটি হলো মালয়েশিয়া ভিসা। আপনি মালয়েশিয়া যেতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই ভিসা করে নিতে হবে। এটি হতে পারে আপনার ভ্রমণ, কর্মস্থান বা ব্যবসা যাই হোক না কেন, সকল মাধ্যমের জন্য আপনার মালয়েশিয়া ভিসা করে নিতে হবে।

মালোয়েশিয়া যেতে হলে যেহেতু আপনার ভিসা করতে হবে সেহেতু, আপনাকে ভিসার ধরণ, ভিসার খরচ, আবেদন করার নিয়ম বিষয়ে সঠিক ধারণা থাকতে হবে।

আমাদের এই পোস্টে আপনাকে মালোয়েশিয়ার ভিসা সংক্রান্ত যাবতীয় জরুরী তথ্য জানতে পারবেন। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক মালোয়েশিয়া ভিসা সম্পর্কে।

মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা
মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা

মালয়েশিয়া ভিসার ধরণ

মালয়েমিয়া ভিসার অনেক ধরণ আছে। আপনি যে, সকল ভিসা করে মালয়েশিয়াতে গমন করতে চান সেগুলো আপনার এখানে জানাব। তার জন্য নিচে দেওয়া তথ্য গুলো থেকে মালয়েশিয়া ভিসার ধরণ সম্পর্কে জেনে নিন।

মালয়েশিয়া স্টুডেন্ট ভিসা

আমরা জানি, মালয়েশিয়াতে অনেক বিখ্যাত ইউনিভার্সিটি আছে। বাংলাদেশের অনেক স্টুডেন্ট মালয়েশিয়াতে স্টুডেন্ট ভিসাতে উচ্চ শিক্ষার জন্য যায়।

এই মালয়েশিয়া স্টুডেট ভিসার প্রসেসিং হতে প্রায় 20 থেকে 30 দিন এর মতো সময় লাগে। পড়াশোনা শেষ করা পর্যন্ত উক্ত ভিসার মেয়াদ থাকে। এই ভিসাতে আপনি একটি প্লাস পয়েন্ট পেয়ে যাবেন।

কারণ আপনার উচ্চ শিক্ষার কোর্স শেষ হতে প্রায় অনেক সময় লেগে যাবে। আপনি পড়াশোনার পাশাপাশি মালয়েশিয়াতে পার্ট টাইম চাকরি করেও ভালো টাকা উপার্জন করার সুযোগ পাবেন।

মালয়েশিয়া বিজনেস ভিসা

আপনি যদি কোন বিজনেস সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে মালোয়েশিয়াতে যেতে চান? তাহলে আপনাকে মালয়েশিয়া বিজনেস ভিসার মাধ্যমে মালয়েশিয়াতে যেতে হবে। উক্ত ভিসা প্রসেসিং করতে সময় লাগে প্রায় 10 দিন এর মতো। এবং উক্ত ভিসার মেয়াদ কাল থাকে ১ থেকে ৩ মাস পর্যন্ত।

মালয়েশিয়া এন্ট্রি ভিসা

মালয়েশিয়া এন্ট্রি ভিসা- অনেক জনপ্রিয় একটি ভিসা। উক্ত ভিসা মালয়েশিয়াতে যাওয়ার জন্য অনেক বিখ্যাত হিসেবে পরিচিত। মালয়েশিয়া এন্ট্রি ভিসার মাধ্যমে বাংলাদেশের নাগরিক অনেক সহজেই মালয়েশিয়া ভ্রমণ করতে পারেন।

উক্ত মালয়েশিয়া এন্ট্রি ভিসার প্রসেসিং হতে সময় লাগে প্রায় 5 থেকে 7 দিন এর মতো। আবার অনেক সময় আরো কম সময় লাগে। উক্ত ভিসার মাধ্যমে আপনি তিন মাসের মতো সময় মালয়েশিয়াতে সম্পুন্ন বৈধভাবে থাকতে পারবেন।

মালয়েশিয়া এম্প্লয়মেন্ট ভিসা

আমরা জানি, যারা মালয়েশিয়াতে যাচ্ছে তারা বেশির ভাগ সময় মালয়েশিয়া এম্প্লয়মেন্ট ভিসাতে গমন করছে। কারণ উক্ত ভিসাতে মালয়েশিয়াতে গেলে অনেক কাজ এর সন্ধান পাওয়া যায়।

আপনার যদি সকল নথি পত্র সঠিক থাকে, তাহলে মাত্র এক মাসের মধ্যেই আপনার মালয়েশিয়া এম্প্লয়েমন্ট ভিসা করে নিতে পারবেন। এখানে অনেক সময় আরো অনেক সময় এর মধ্যেও মালয়েশিয়া এম্প্লয়মেন্ট ভিসা করে নেওয়া যায়।  উক্ত মালোয়েশিয়া এম্প্লয়মেন্ট ভিসার মেয়াদ থাকে ২ থেকে ৫ বছর পর্যন্ত।

মালয়েশিয়া মেডিকেল ভিসা

আপনি যদি কোন চিকিৎসার জন্য মালয়েশিয়াতে যেতে চান? তাহলে আপনাকে অবশ্যই মালয়েশিয়া মেডিকেল ভিসা করে নিতে হবে। উক্ত ভিসা প্রসেসিং হতে বেশি একটা সময় লাগে না।

সব থেকে অল্প সময় মানে ২-৩ দিন এর মধ্যে মালয়েশিয়া মেডিকেল ভিসা সম্পন্ন করে নেওয়া যায়। মালোয়েশিয়ার মেডিকেল ভিসাতে যে, পেশেন্ট যাবে, সে ৩০ দিন মাসে ১ মাস এর মতো অবস্থান করতে পারবে। যদি চিকিৎসার জন্য আরো কিছু সময় লাগে সেক্ষেত্রে আরো কিছু দিন থাকা যায়।

মালয়েশিয়া ভিসা করতে কি কি ডকুমেন্ট দরকার

আপনি যেহেতু মালয়েশিয়াতে যাবেন, সেহেতু আপনার মালয়েশিয়া ভিসা করতে কিছু ডকুমেন্ট দরকার হবে। যে সকল ডুকুমেন্ট আপনার প্রয়োজন হবে সেগুলো হলো-

মালোয়েশিয়া মেডিকেল ভিসার জন্য যে ডকুমেন্ট দরকার– দেশী নাগরিকত্ব সনদ, পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি, লিগেল ডিজিটাল পাসপোর্ট, কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন সনদ, স্পনসরের আকামার কপি, জন্ম নিবন্ধন কপি, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট, ডাক্তারের রিপোর্ট সংক্রান্ত নথি পত্র।

মালয়েশিয়া স্টুডেন্ট ভিসার জন্য যে ডকুমেন্ট দরকার- লিগেল ডিজিটাল পাসপোর্ট, আপনার পছন্দ মতো যে কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের অফার লেটার, প্রয়োজন মতো পাসপোর্ট সাইজের সদ্য তোলা রঙ্গিন ছবি, পূর্বের শ্রেণি গুলোর স্কুল ও কলেজ এর সকল মেইন সার্টিফিকেট। এর সাথে আরো দরকার হবে, পরীক্ষার মার্কশীট গুলো।

মালয়েশিয়া এন্ট্রি ভিসার জন্য যে ডকুমেন্ট দরকার- দেশী নাগরিকত্ব সনদ, পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি, লিগেল ডিজিটাল পাসপোর্ট, কোভিড-19 এর সার্টিফিকেট, সদস্য স্পনসরেআকামার কপি, জন্ম নিবন্ধন কপি, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।

মালয়েশিয়া এম্প্লয়মেন্ট ভিসার জন্য যে ডকুমেন্ট দরকার-  লিগেল ডিজিটাল পাসপোর্ট, দেশী নাগরিকত্ব সনদ, পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি কোভিড-19 এর সার্টিফিকেট, সদস্য স্পনসরেআকামার কপি, জন্ম নিবন্ধন কপি, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট, মেডিকেল ফিটনেসের নথিপত্র।

মালয়েশিয়া বিজনেস ভিসার জন যে ডকুমেন্ট দরকার- লিগেল ডিজিটাল পাসপোর্ট, দেশী নাগরিকত্ব সনদ, পাসপোর্ট সাইজের রঙ্গিন ছবি, কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন সনদ, স্পনসরের আকামার কপি, জন্ম নিবন্ধন কপি, পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট, বিজনেস সংক্রান্ত নথি পত্র।

মালোয়েশিয়া ভিসা করতে কত টাকা প্রয়োজন

মালোয়েশিয়া স্টুডেন্ট ভিসা’র জন্য বেশির ভাগ সময় স্কলারশিপের মাধ্যমে ফ্রিতে স্টুডেট’রা মালয়েশিয়াতে যেতে পারে। আর যদি স্কলারশিপে না যায় তাহলে ভিসা প্রসেসিং এর খরচ হতে পারে প্রায় Rs. ৫৭২০।

  • মালোয়েশিয়া এন্ট্রি ভিসা’র জন্য আপনার খরচ হতে পারে প্রায় INR 1999।
  • মালোয়েশিয়া এম্প্লয়মেন্ট ভিসা’র জন্য আপনার খরচ হতে পারে, প্রতি বছর RM 200।
  • মালোয়েশিয়া বিজনেস ভিসা’র জন্য খরচ হতে পারে প্রায় RS. 5720।
  • মালোয়েশিয়া মেডিকেল ভিসা’র জন্য খরচ হতে পারে,
  • এই ভিসা প্রসেসিং হতে খরচ হয় প্রায় Rs. RS. 5720।
  • উক্ত মালয়েশিয়া ভিসা গুলোর খরচ বিশেষ পরিবর্তন হয়ে থাকে।

মালোয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম (বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা)

মালয়েশিয়া ভিসা প্রসেসিং এর অনেক নিয়ম আছে। কিন্তু তার মধ্যে সব চেয়ে সহজ মাধ্যম হলো অনলাইন ভিসা আবেদন প্রসেসিং।

তার জন্য আমরা সেই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দিব। এখন আপনি স্টেপ অনুযায়ী মালয়েশিয়া ভিসার জন্য আবেদন করবেন। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক বিস্তারিত তথ্য।

আপনার নির্ধারিত ভিসা বাছাই করুন

আমরা জানি, সকল দেশে গমন করতে গেলে ভিসার দরকার হয়। তার পাশাপাশি ভিসা ও কিন্তু অনেক ধরণের হয়ে থাকে। যা আপনি উক্ত আলোচনাতে জেনে নিয়েছেন।

তাই আপনার প্রথম যে কাজটি হবে সেটি হলো- আপনার জন্য নির্ধারিত ভিসা বাছায় করা। যে ভিসার মাধ্যমে আপনি মালয়েশিয়া যাবেন সেটি বেছে নিবেন।

এরপর সরাসরি ভিসা অফিস থেকে জেনে নিবেন বা তাদের ওয়েবসাইট থেকে সকল নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ পত্র তৈরি করবেন। উক্ত সকল নথি ও কাগজপত্র গুলো আপনাকে ভিসা আবেদন করার সময় দরকার হবে।

আপনি অবশ্যই নজর দিবেন যেন কোন ধরণের ভুল বা জাল ডকুমেন্ট আপনার ভিসা আবেদন পত্রে না চলে যায়। কারণ আপনি যদি ভুলবসত কোন প্রকার ভুল বা অপ্রয়োজনীয় তথ্য দেন। তাহলে আপনার ভিসা বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

তাই জেনে নিবেন আপনার ভিসা আবেদন এর প্রসেসিং শেষ হতে কত সময় লাগে। তার পরে আপনার দরকারী সকল নথিপত্র জমা দিয়েছিন কিনা সেটি ছাড়া আপনার ভিসা ফি বাবদ কত টাকা জমা দিতে হবে সেটিও জেনে নিতে হবে।

মালয়েশিয়া ভিসার জন্য অনলাইন আবেদন 

আপনি অনলাইন এর মাধ্যমে মালয়েশিয়ার ভিসা আবেদন  শুরু করবেন। যে ফরম এর মাধ্যমে আপনি মালয়েশিয়া ভিসা প্রসেসিং ‍শুরু করবেন সিট সঠিক ভাবে নির্বাচন করে নিবেন। তার পরে অবশ্যই ডাউনলোড করে নিবেন।

তারপরে ডাউনলোড করা মেইন ফরমটি পূরণ করে তা কপি করে নিজের কাছে রাখবেন। এখন সেই ভিসা আবেদন ফরম নিয়ে ভিসা অফিসে যাবেন।

আপনি যদি নিজে নিজে কম্পিউটার নিয়ে ভিসা আবেদন করতে পারেন তাহলে ভালো। আর যদি না পারেন। তাহলে আপনার পরিচিত কম্পিউটার দোকানে গিয়ে ভিসার আবেদন করে নিবেন। সেই আদেন ফরমটি ভিসা অফিসে সঠিক সময়ে জমা দিবেন।

তারপরে আপনার জন্য একটি বৈদ্যুতিন আবেদনপত্র দেওয়া হবে। সেটি সঠিক ভাবে পূরণ করে নিবেন। সম্পুন্ন ফরম িএকটি বার কোডের সাথে যুক্ত করা শিট এর সাথে একটি মানউন্নত, সাদা ও চকচকে কাগজ এর সাথে কপি করে নিয়ে নিবেন।

আপনার পার্সোনাল ভিসা সম্পর্কে সকল প্রকার গোপন তথ্য মেনে চলতে হবে। এর সাথে একটি সম্মতি মূলক ফরম পূরন করতে হবে। ভিসা আবেদন ফরম এর সাথে সল প্রকার গোপনীয়তা বজায় রেখে পত্র যুক্ত করতে হবে।

আপনাকে সঠিকভাবে অন্তুভূক্ত করতে হবে কারণ এটি ব্যতীত আপনার ভিসা আবেদন গ্রহণ যোগ্য হবে না। তাই আপনাকে ভালো ভাবে আবেদন ফরম গুলো পূরন করে সাবমিট করতে হবে।

সাক্ষাৎকার সঠিক ভাবে করুন

আপনি যখন ভিসা আবেদন এর প্রসেস সম্পন্ন করবেন ঠিক তখন ভিসা অফিসের জন্য আপনার সাক্ষাৎকার সঠিক ভাবে লিপিবদ্ধ করতে হবে।

সাক্ষা্ৎকারটি নিশ্চিত করার পরে আপনাকে সকল প্রকার বায়োমেট্রিক তথ্য দিতে হবে। তার মনে আপনাকে সঠিক উপায়ে আপনার আঙ্গুল ছাপ দিতে হবে।

এরপরে আপনার রঙিন ছবি ‍দিতে হবে। আপনি চাইলে ছবি যে কোন একটি ভিসা এপ্লিকেশন সেন্টার থেকে তুলে দিতে পারবেন। সকল তথ্য সঠিক হওয়ার পরে দেখবেন আপনার মালয়েশিয়া ভিসার জন্য অ্যাপয়েন্টমেন্ট বুক হয়ে যাবে সহজেই।

তারপরে আপনার দেওয়া ইমেইলে একটি কনফার্মেশন মেইল পাঠানো হবে ভিসা অফিস থেকে। আপনি যখন আপনার পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে ভিসা এপ্লিকেশন করবেন। তখন তাদের সকলের জন্য আলাদা আলাদা অ্যাপয়েনমেন্ট এর প্রয়োজন হবে।

ভিসার জন্য প্রযোজ্য ফি প্রদান করুন

মালয়েশিয়া ভিসা করার জন্য আপনাকে যে পরিমানের ফি দিতে হবে। সেটি সঠিক ভাবে কাউন্টারে প্রদান করবেন। আবেদন শেষ হলেই সাথে সাথে সেটি দিয়ে দিবেন এবং মানি রিসিট নিবেন।

পাসপোর্ট সংগ্রহ করে নিন

এখন আপনার মুল কাজ হলো ভিসা প্রসেসিং অফিস থেকে আপনার পাসপোর্ট গ্রহণ করা। তার পাশাপাশি আপনার প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র চেক করে নেওয়া। যাতে কোন ভূল থাকলে সংশোধন করে নিতে পারেন। যদি ভুল নথি জমা দেন তাহলে পরবর্তীতে সমস্যা হতে পারে।

আপনি চাইলে আপনার পাসপোর্ট অতিরিক্ত চার্জ দিয়ে কুরিয়ার এর মাধ্যমে সংগ্রহ করতে পারবেন। আপনার জন্য প্রস্তাবিত এয়ারপোর্টে প্রবেশ এর সঠিক তারিখ, প্রবেশ এর বিশেষ সংখ্যা, প্রয়োজনীয় সকল তথ্য 100% বৈধ্য কিনা এই ভিসার সকল বিবরণ বিবেচনা করে নির্বাচন করতে হবে। এই কাজ গুলো আপনার একান্ত দায়িত্ব।

মালয়েশিয়া ভিসার আবেদন কেন্দ্রঃ www.visasmalaysia.com

আরও পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা, এই পোস্টের মাধ্যেমে আপনি জানতে পারলেন, মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা। আপনি যদি উক্ত তথ্য সঠিক ভাবে অনুসরণ করে থাকেন। তাহলে আপনিও মালয়েশিয়া ভিসা করার উপায় জেনে নিয়েছেন।

ট্যাগঃ মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা

মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা মালয়েশিয়া ভিসা আবেদন করার নিয়ম | বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া ভিসা

আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানবেন। আমাদের সাথে থাকার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আরো বিভিন্ন দেশের ভিসা সম্পর্কে জানতে চাইলে নিয়মিত ভিজিট করুন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap