আপওয়ার্ক নাকি ফ্রিল্যান্সার কোনটি কোনটি আপনার জন্য উপযুক্ত মার্কেটপ্লেস

ফ্রিল্যান্সিং করার জনপ্রিয়তা এখন অধিক হারে বেড়ে গিয়েছে। ফ্রিল্যান্সাররা সাধারণত অনলাইনে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করে থাকে। আমরা আজকে আমাদের আর্টিকেলে ফ্রিল্যান্সিং করার দুটি সেরা মার্কেটপ্লেস নিয়ে আলোচনা করবো, আপওয়ার্ক নাকি ফ্রিল্যান্সার কোনটি হতে পারে আপনার জন্য ভালো।

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিংকে আপনার ক্যারিয়ার হিসেবে গ্রহণ করে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এটি অনেক ভালো সিদ্ধান্ত হবে। এখন অধিকাংশ মানুষই নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং পেশাকে বেছে নিচ্ছে।

এটি খুব ভালো ও লাভজনক একটি পেশা হয়ে থাকে। ফ্রিল্যান্সিং করতে গেলে আপনাকে বিভিন্ন কাজে পারদর্শী হয়ে সেই কাজটি অনলাইনের মার্কেটপ্লেসে করে দেওয়া কে বুঝায়। তবে আপনি যদি খুব ভালো ভাবে এবং সঠিকভাবে কাজটি যদি ক্লায়েন্টকে করে দিতে পারেন তাহলে আপনি ভালো আয় করতে পারবেন।

তবে ফ্রিল্যান্সারদের আয়ের ক্ষেত্রে কোনো নির্দিষ্ট সীমা রেখা বা বিধিনিষেধ নেই, এখানে আপনি যত ভালো কাজ করতে পারবেন বা যত কাজ আপনি আপনার ক্লায়েন্টকে করে দিতে পারবেন, আপনার আয় তত বেশি হবে।

প্রথম অবস্থায় আপনি যখন অনলাইনে আয়ের এর ব্যাপারে চিন্তা করতে থাকবেন, তখন প্রথম দিকে আপনার মার্কেটপ্লেস নিয়ে প্রশ্ন আসতে থাকবে, নামকরা মার্কেটপ্লেস দুটি আপওয়ার্ক ও ফ্রিল্যান্সার। তবে কোনটি হতে পারে আপনার জন্য ভালো সেটা আপনাকে নির্ধারণ করতে হবে তবে সারা বিশ্বে আপওয়ার্কফ্রিল্যান্সার সাইটের ভালো জনপ্রিয়তা রয়েছে।

এই দুইটি ওয়েবসাইটেই আপনি ভাল মতন কাজ করে দেওয়ার মাধ্যমে ভালো টাকা আয় করতে পারবেন, তবে এদের মধ্যে বেশ কিছু পার্থক্য রয়েছে। আর সেই পার্থক্য গুলো যদি আপনি জেনে রাখেন তবে অবশ্যই আপনি নির্ধারণ করতে পারবেন, কোন মার্কেটপ্লেসে আপনার জন্য ভালো হতে পারে।

তবে ফ্রিল্যান্সিং সাইটের অসংখ্য মার্কেটপ্লেস রয়েছে, এসব প্রত্যেকটি মার্কেটপ্লেসের কিছু সুবিধা অসুবিধা রয়েছে। আজকে আমরা এই সেরা দুইটি মার্কেটপ্লেসের পুরো বিস্তারিত আলোচনা করবো।

আমরা অনেকেই আছি যারা এখনো ফ্রিল্যান্সিংয়ের এই সেরা দুই মার্কেটপ্লেস ফ্রিল্যান্সার ও আপওয়ার্ক সম্বন্ধে তেমন কিছু জানি না। আর তাই দেরি না করে চলুন জেনে নেওয়া যাক আপওয়ার্ক নাকি ফ্রিল্যান্সার কোনটি হতে পারে আপনার জন্য ভালো।

ফ্রীল্যান্সর বনাম আপওয়াক আপনার জন্য কোনটি উপযুক্ত মার্কেটপ্লেস
ফ্রীল্যান্সর বনাম আপওয়াক আপনার জন্য কোনটি উপযুক্ত মার্কেটপ্লেস

নিচে এ সম্পর্কে আলোচনা করা হলো:

আপওয়ার্ক কি:

বর্তমান সময়ে আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেস টি সারা বিশ্বে এক বিশেষ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। তবে এই মার্কেটপ্লেস টি ইল্যান্স ও ওডেস্ক নামে দুটি আলাদা মার্কেটপ্লেস ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে এই দুইটি মার্কেটপ্লেস একত্রিত হয়ে আপওয়ার্ক নাম হয়।

এই দুইটি মার্কেটপ্লেস একত্রিত হয় ২০১৫ সালে। আপওয়ার্ক দাবি করে যে তাদের মার্কেটপ্লেসটি ১৮০টি দেশে ১৪ মিলিয়নের বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে। আপওয়ার্ক এর বর্তমান কার্যালয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে।

এই মার্কেটপ্লেস টি থেকে বর্তমান সময় সারাবিশ্বের ফ্রিল্যান্সাররা কাজ করে বাৎসরিক প্রায় ১ বিলিয়ন ডলার আয় করে থাকে। তবে এই মার্কেটপ্লেস টিতে বর্তমানে ৪ মিলিয়ন নিবন্ধিত ক্লায়েন্ট রয়েছে। এবং এখানে প্রায় ১ লক্ষের বেশি কাজ রয়েছে।

ফ্রিল্যান্সার কি:

ফ্রিল্যান্সিং সাইটের একটি অন্যতম ভালো মার্কেটপ্লেস এটি হয়ে থাকে। ফ্রিল্যান্সার একটি মার্কেটপ্লেস যেখানে সাধারণত জব পোস্ট করা যায় ওর জব নেয়া যায়। এর মানে এটাই এখানে আপনি যেমন কাজ পাবেন, তেমনি কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন মানের ফ্রিল্যান্সারদের খুঁজতে পারবেন।

তবে এটি আপ ওয়ার্ক এর মত উন্নত একটি মার্কেটপ্লেস হয়ে থাকে। সাধারণত ফ্রিল্যান্সার সাইট এর যাত্রা শুরু হয় ২০০৯  সালে। প্রধান কার্যালয় অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে হয়ে থাকে। এই মার্কেটপ্লেস টিতে সাধারণত ৩০ মিলিয়নের বেশি নিবন্ধিত সদস্য রয়েছে তবে এর মধ্যে ১৫ মিলিয়ন নিবন্ধিত সদস্যরা নিয়মিত কাজ করে থাকে এই সাইটে।

এখানে বর্তমান সময়ে ৮৫ হাজার বেশি জব রয়েছে। এটি অনেক ভালো একটি মার্কেটপ্লেস হাওয়ায় এখানে অসংখ্য ফ্রিল্যান্সাররা খুব ভালোভাবে কাজ করে আয় করতে পারে। আপনার কাজের প্রতি আপনি যত বেশি দক্ষ হবেন আপনার ডিমান্ড বেশি হবে এবং প্রচুর আয় হবে।

 ১. ব্যবহৃত ইন্টারফেস:

আপওয়ার্ক: এটির ব্যবহৃত ইন্টারফেস ডিজাইন গুলো মূলত তুলনামূলকভাবে সিম্পল মানের এবং অনেক সহজ প্রকৃতির। এখানে অ্যাকাউন্ট খুলতে আপনর কোনো রকম ঝামেলায় পড়তে হবে না। তবে এখানে অ্যাকাউন্ট খোলার পর অবশ্যই এপ্রুভাল পেতে হবে।

ফ্রিল্যান্সার: এখানে ফ্রিল্যান্সারদের মূল আর্কষণ তাদের আর্কষনীয় মানের ড্যাশবোর্ড। তবে এখানে ডিজাইনগুলো মূলত সিম্পলের মধ্যে হলেও গর্জিয়াস।

২. জবের বিভিন্ন প্রকারভেদ:

আপওয়ার্ক: এই মার্কেটপ্লেসে জবের ধরণ দুই ধরণের হয়ে থাকে। এই দুই ধরনের উপর নির্ভর করে ফ্রিল্যান্সাররা তাদের কাজ পরিচালিতো করে থাকে। তারা এই দুটি ধরণকে লক্ষ্য করে তাদের কাজ চালিয়ে যায়। তাদের কে এখানে কাজ চালিয়ে যাওয়াতে কোনো রকম ঝামেলা তে পড়তে হয় না। এই দুই ধরণ নিচে উল্ল্যেখ করা হলো:

ঘন্টা ভিত্তিক: এই ঘণ্টা ভিত্তিক এর মাধ্যমে আপনি আপনার প্রতি ঘন্টা একটি নির্দিষ্ট করে দিয়ে থাকবেন। এবং সেই রেট অনুযায়ী ক্লায়েন্ট আপনাকে ভাড়া নেবে। যেমন মনে করুন আপনি একজন ভাল মানের ওয়েব ডিজাইনার আপনার প্রতি ঘন্টার রেট ১০০ ডলার হয়ে থাকে। বিভিন্ন ক্লায়েন্ট এর কোন আপনাকে তার কাজের জন্য ভাড়া নিবে তখন সে যত ঘন্টা আপনাকে দিয়ে কাজ করাবে তখন তার সাথে এই ১০০ ডলার গুণ হবে। আর আপনি কত ঘন্টা কাজ করলেন এটা তারা তাদের ট্রাফিক সিস্টেম সফটওয়্যার এর মাধ্যমে জেনে থাকবে।

মূল্য ভিত্তিক: এই মূল্য ভিত্তিক জব টি হল বিভিন্ন কাজের একটি অফার করে পোস্ট করে থাকবে। এবং সেই পোস্টে যাবতীয় ফ্রিল্যান্সাররা তাদের ইচ্ছামতো মূল্য দিয়ে বিট করবে। এক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সারদের মধ্যে ক্লায়েন্ট যাকে ইচ্ছা করবে তাকে কাজ প্রদান করবে।

ফ্রিল্যান্সার:

ফ্রিল্যান্স্যার মার্কেটপ্লেসে জব এর ধরন তিন ধরনের হয়ে থাকে। এখানে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সাররা এই তিনটি ধরণ লক্ষ করে কাজ করে থাকে। তবে কোনো ফ্রিল্যান্সার যদি এখানে কাজ করতে চাই তবে অবশ্যই তাকে এই তিন ধরনের মধ্যে কাজ করতে হবে। নিচে এর তিনটি ধরণ উল্লেখ করা হলো:

ঘন্টা ভিত্তিক: সাধারণত ঘন্টা ভিত্তিক হল আপনাকে নির্দিষ্ট একটি ঘন্টার জন্য ক্লায়েন্ট ভাড়া নিয়ে থাকবে এবং আপনার রেট অনুযায়ী সে আপনাকে একটি ঘন্টা মাফিক অর্থ প্রদান করে থাকবে। ফ্রিল্যান্স্যার মার্কেটপ্লেসে এই পদ্ধতিটি সাথে আপওয়ার্কে যথেষ্ট মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

মূল্য ভিত্তিক: এখানে মূলত ক্লায়েন্ট তার জবটি পোস্ট করে থাকে। আর বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সাররা যারা সেই কাজটি ভালোভাবে করে দিতে পারবে সেইসব ফ্রিল্যান্সাররা একটি রেট দিয়ে বিট করে থাকে।

প্রতিযোগিতা ভিত্তিক: এই মার্কেটপ্লেস দিতে এক ধরনের যথেষ্ট প্রতিযোগিতা রয়েছে। আর প্রতিযোগিতা ভিত্তিক জবের ধরন অনেকটা 99 ডিজাইন মার্কেটপ্লেসের মত। যেকোনো একজন ক্লায়েন্ট একটি ভাল লোগো ডিজাইনের জন্য অফার করে অন্যান্য ফ্রিল্যান্সাররা তার লোগোটিকে সাবমিট করে থাকে। এটি সাবমিটেড দেডলাইন পূর্ণ হবার পর একজনকে বিজয়ী ঘোষণা করে এবং পূর্ব ঘোষণা মোতাবেক তাদেরকে ডলার প্রদান করে থাকে

৩. সাবস্ক্রিপশন ও ফি:

আপনি যদি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন তবে আপনাকে সাবস্ক্রিপশন এবং ফি দিকটা বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে এবং আপনি কোনটি বেছে নেবেন আপওয়ার্ক নাকি ফ্রিল্যান্সার।

আপওয়ার্ক:

এখানে সাধারণত ৫টি মাধ্যমে টাকা দিয়ে থাকে, সেই ৫টি মাধ্যম হলো:

  • ডিরেক্ট ডিপোজিট

  • পেপাল

  • ব্যাংক ট্রান্সফার

  • লোকাল ফান্ড ট্রান্সফার।

  • পাইওনিয়ার।

এখানে প্রত্যেকটি পেমেন্ট পদ্ধতিতে ৩% চার্জ কেটে নেয়া হয়। তবে অপরকে জব করার সময় নির্দিষ্ট পরিমাণ একটি চার্জ দিতে হয়। এছাড়াও এই মার্কেটপ্লেসে প্রিমিয়াম মেম্বারশিপ এর একটি বিশেষ সুবিধা রয়েছে।

এখানে প্রথম ৫০০ বা তার কম ডলারের জন্য ২০% কেটে থাকবে। ৫০১  থেকে ১০,০০০  ডলার এর ক্ষেত্রে এখানে ১০% কেটে থাকবে। ও ১০ হাজার ১ ডলার থেকে তার উপরের ক্ষেত্রে ৫% কেটে থাকবে।

ফ্রিল্যান্সার:

ফ্রিল্যান্স্যার মার্কেটপ্লেসে প্রিমিয়াম মেম্বারশিপ এক বিশেষ সুবিধা রয়েছে। আর তাদের প্রেমের নেওয়ার পদ্ধতি ও এখানে আপওয়ার্ক এর মতন।

এখানে ক্লায়েন্টের নিকট থেকে চার্জ কাটা হয় মোট টাকার ৩% এবং ফ্রিল্যান্সারদের থেকে চার্জ কাটা হয় মোট টাকার ১০%। তবে আপনি যদি আপনার সাথে এটির চার্জ নিয়ে তুলনা করতে যান তাহলে ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেস চার্জ অনেক কম হয়ে থাকে।

আর তাই এখানে যারা নতুন ফ্রিল্যান্সার রয়েছে তাদের জন্য অনেক ভালো হবে। আপনি বেশি বাজেটের কাজ করতে চান তাহলে আপনার জন্য আপনার কি সেরা হবে। তার মানে এই আপনি যদি বেশি পরিমাণ আয় করতে চান তবে আপনি আপনার কি কাজ করতে পারেন।

৪. সাপোর্ট বিষয়ক:

আপওয়ার্ক:

আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেসে সার্পোট সিস্টেমে তালিকা অনেক ভালো হয়ে থাকে। এখানে আপনি খুব ভালোভাবে ও বিভিন্ন উপায়ে সাপোর্ট পেয়ে থাকবেন। এখানে লাইভ চ্যাট, ফোন, অনলাইন মেসেজ রিকুয়েস্ট সিস্টেম, এর মাধ্যমে আপনি সাপোর্ট পাবেন।

ফ্রিল্যান্সার:

এই মার্কেটপ্লেসের সাপোর্টের দিকটা যথেষ্ট ভাল হয়ে থাকে। তবে আপনি এখানে সাপোর্ট এর ক্ষেত্রে ফোন কল করে কোনরকম সাপোর্ট সুবিধা পাবেন না। এখানে আপনি যেসব পদ্ধতিতে সাপোর্ট পাবেন সেগুলো হলো লাইভ চ্যাট, অনলাইন মেসেজ, বা ইমেইল, ও FAQ অপশন পাবেন।

সাধারণত আপনি যেকোন মার্কেটপ্লেসে যখন কাজ করবেন তখন সাপোর্টের বিষয়টি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে থাকে। আপনি কত দ্রুত এবং কত ভালো সাপোর্ট পাচ্ছেন সেটা অধিক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকে। আপনি ক্লায়েন্টের নিকট থেকে টাকা আয় করলেন কিংবা আপনার একাউন্টে এই টাকা কোন সমস্যা হল সেক্ষেত্রে আপনি দুটো সাপোর্ট পেলে আপনার জন্য অতি মঙ্গল হবে।

পরিশেষে:

আপওয়ার্ক ও ফ্রিল্যান্সার দুটি অনেক ভালো মানের ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস হয়ে থাকে। তবে উপরে আমরা এই দুইটির পুরো বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আর তাই এখন আপনি নির্ধারণ করবেন আপনার জন্য কোনটি ভাল হতে পারে আপওয়ার্ক নাকি ফ্রিল্যান্সার।

তবে এখানে আমরা আরেকটি কথা আপনাদের সাথে শেয়ার করব সেটি হলো, আপনি যদি কোন নতুন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস টি ভালো হবে। এবং আপনি যদি পুরাতন ও অভিজ্ঞ ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য আপওয়ার্ক মার্কেটপ্লেস টি ভালো হবে।

আমাদের আর্টিকেলটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই দয়া করে আপনি আপনার পছন্দমত যেকোন সাইটে একবার শেয়ার করবেন। আপনার করে একটি শেয়ার আমাদেরকে আরো ভালো আর্টিকেল লিখতে উৎসাহিত করবে ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap