গুগল থেকে আয় করার জনপ্রিয় মাধ্যম

গুগল থেকে আয় (earn money from google) করার কথা অনেকেই শুনেছেন। কিন্তু, অনেকেই ঠিক সেভাবে বলতে পারেন না, কীভাবে গুগুল থেকে ইনকাম করা যায়। 

গুগল থেকে আয় করার অনেক উপায় আছে। কিন্তু, আজকের এই লেখাটিতে, গুগল থেকে অর্থ উপার্জন করার ৫টি সর্বাধিক ব্যবহারযোগ্য, উপার্জনযোগ্য ও বিশ্বাসযোগ্য উপায় তুলে ধরা হয়েছে।

এই কাজগুলো করার জন্য আপনার বেশি কিছু করতে হবে না। শুধুমাত্র, নিজের ঘরে বসে অনলাইনে কাজ করবেন। আর, কাজ শেষে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে বুঝে নিবেন আপনার অর্থ।

গুগল থেকে আয় করার এই পদ্ধতিগুলি হল:

১. গুগল অ্যাডসেন্স (google adsense)

২. ইউটিউবে ভিডিও নির্মান (Youtube)

৩. গুগল অ্যাডওয়ার্ডস (Google Adword)

৪. গুগল মতামত পুরস্কার (Google sarvey reword)

৫. ব্লগিং বা ওয়েবসাইট (Blogging or website)

এগুলির মধ্যে বেশ কয়েকটির সাথে আপনি পরিচিত, কিন্তু কিছু সম্পর্কে আপনাদের অনেকেরই তেমন কোন ধারণা নেই। 

তাই, গুগলের এসকল আয় করার মাধ্যম সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা নিয়ে লেখা হলো আজকের এই আর্টিকেলটি। 

গুগল থেকে আয় করার অন্যতম মাধ্যম গুগল অ্যাডসেন্স 

গুগল থেকে অর্থ উপার্জনের জন্য গুগল অ্যাডসেন্স জনপ্রিয় মাধ্যম। আজকের এই দিনে গুগল অ্যাডসেন্সের নাম শুনেনি- এমন মানুষ পাওয়া দুষ্কর। কিন্তু, এদের কেউই ঠিকভাবে বলতে পারে না, কীভাবে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয় করতে হয়। গুগল অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে বিশ্বজুড়ে লাখ লাখ অ্যাডসেন্স প্রকাশক এই অনলাইন থেকে ইনকাম করছেন। এটি ব্যবহার করা খুবই সহজ। প্রকৃতপক্ষে, গুগল অ্যাডসেন্স হলো একটি বিজ্ঞাপন প্রোগ্রাম যা আপনাকে আপনার ওয়েবসাইট, ব্লগ বা ইউটিউব ভিডিওগুলিতে বিজ্ঞাপন চালাতে দেয়। এবং, এই বিজ্ঞাপনগুলোর উপর দর্শকরা ক্লিক করলে, যিনি অ্যাডসেন্স ব্যবহার করছেন, তিনি অর্থ পান। 

আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগে গুগল অ্যাডসেন্স ব্যবহার করবেন কীভাবে?

প্রথমে, আপনাকে একটি ব্লগ (blog) তৈরি করতে হবে। তারপর, সেটিকে আপনার ওয়েবসাইটে website প্রকাশ করতে হবে। অবশ্য, আপনি চাইলে ভিডিও তৈরি করতে পারেন। এবং, সেটিকে ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন। এক্ষেত্রে, লক্ষ রাখতে হবে, ব্লগ পোস্ট এবং ভিডিও আপলোড যেনো নিয়মিত হয়। 

যখন আপনি অ্যাডসেন্স এর জন্য বেসিক প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করতে পারবেন, তখন আপনি এর জন্য গুগলে  আবেদন করতে পারবেন।

এছাড়াও, আপনি গুগল অ্যাডসেন্সের জন্য গুগলের অনুসন্ধান প্রোগ্রামে যোগদান করতে পারেন। এর ফলে, কাস্টম অনুসন্ধান ইঞ্জিনের অনুসন্ধান পৃষ্ঠাগুলিতে আপনার সাইট কিংবা চ্যানেলের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক বিজ্ঞাপনগুলি দেখাবে পরবর্তীতে।

বিজ্ঞাপনের প্রতি ক্লিকের মূল্য (CPC) বিজ্ঞাপনদাতাদের দ্বারা নির্ধারিত হয়। এর জন্য সবাই তাদের ব্লগ কিংবা চ্যানেল গুগলের অনুসন্ধানের প্রথম পৃষ্ঠাগুলিতে রাখার জন্য প্রতিদিন প্রতিযোগিতা করে। আপনি সহজেই SEO এর মাধ্যমে আপনার লেখা বা ভিডিও গুগলের প্রথম পেজে নিয়ে আসতে পারেন ।

একবার আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট অনুমোদিত হয়ে গেলে, আপনার ব্লগ বা আপনার ভিডিওতে অ্যাডসেন্সের  বিজ্ঞাপন দেওয়া শুরু করুন। এর ফলে দর্শকরা অ্যাডসেন্সের বিজ্ঞাপন ক্লিক করলেপ্রতিটি সময় জন্য উপার্জন শুরু করুন। মনে রাখবেন, আপনি যদি আপনার ব্লগিং প্ল্যাটফর্ম হিসাবে ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করেন; তবে, আপনি অ্যাডসেন্স এর জন্য যোগ্য হবেন না। অ্যাডসেন্স প্রোগ্রামের জন্য আপনার নিজস্ব কাস্টমাইজড ডোমেন থাকতে হবে।

ইউটিউবে ভিডিও নির্মান করে গুগল থেকে আয় 

সবাই ভিডিও দেখতে পছন্দ করে। দ্রুত গতির  ইন্টারনেট সংযোগ থাকায় বেশির ভাগ মানুষ ইউটিউবে সময় দিচ্ছে। কেউ বা ভিডিও দেখছে আবার কেউ বা ভিডিও তৈরি করছে। 

ইউটিউব বর্তমান বিশ্বের সব থেকে বড় ভিডিও শেয়ারিং সোশ্যাল সাইট। কেউ বা এখানে সিনেমা দেখে, কেউ বা দেখে নাটক। আবার, কেউ বা দেখে কাটুন। আপনি প্রায় সব ধরনের ভিডিও এখানে পেয়ে যাবেন। কিন্তু, আপনি কি জানেন কারা এই ভিডিও আপলোড করে?

আপনার আমার মতো সাধারণ মানুষেরা ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে। এই ভিডিওর মাঝে আপনি দেখে থাকবেন কোন ভিডিও চলতে চলতে কিছুক্ষণের জন্য বিজ্ঞাপন দেখায়। আর, এই বিজ্ঞাপন থেকেই যে ব্যাক্তি ভিডিও আপলোড করেছে সে গুগল থেকে অনলাইন ইনকাম করে।

আপনিও ইচ্ছে করলে এমন ভিডিও তৈরি ইউটিউবে আপলোড করতে পারেন। যখন আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ১০০০ হাজার সাবস্ক্রাইবার আর ৪ হাজার ওয়াচ টাইম হয়ে যাবে, তখন আপনি গুগল অ্যাডসেন্সের সাথে আপনার চ্যানেল মনিটাইজ করে গুগল থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ 1000 পেজ ভিউ এ ইউটিউব কত টাকা দেয়।

কীভাবে করবেন ইউটিউবের মাধ্যমে গুগল থেকে আয়? 

ইউটিউবের মাধ্যমে গুগল থেকে আয় করার জন্য এই ধাপগুলো মেনে চলুন। 

  1. প্রথমে  ইউটিউবে একটি চ্যানেল তৈরি করুন।
  2. চ্যানেলের জন্য একটি সুন্দর ও আকর্ষণীয় নাম রাখুন।
  3. সুন্দর একটি কভার ফটো লাগান। 
  4. চ্যানেলের জন্য সুন্দর ও আকর্ষণীয় লগো তৈরি করুন।
  5. নিয়মিত ভিডিও আপলোড করুন।
  6. ভিডিওতে কাস্টমস থাম্বনাইল ব্যবহার করুন।
  7. ভিডিওতে টাইটেল, ট্যাগ, ও ডেসক্রিপশন দিন। 
  8. ভিডিওগুলোকে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন।
  9. যেভাবেই হোক ১০০০ হাজার সাবস্ক্রাইবার জোগাড় করুন।
  10. আপনার ইউটিউব চ্যানেলে গুগল এডসেন্সে যোগ করুন। 
  11. যখন আপনার চ্যানেল মনিটাইজ হয়ে যাবে, তখন আপনার চ্যানেলের ভিডিওতে বিজ্ঞাপন আসা শুরু হয়ে যাবে। 

এইসব ধাপগুলো মেনে চললে আপনি ইউটিউবের মাধ্যমে  গুগল থেকে আয় করতে পারবেন। 

গুগল অ্যাডওয়ার্ডসঃ গুগল থেকে আয় করার অন্যতম মাধ্যম

গুগল অ্যাডওয়ার্ডস, গুগোলের একটি সার্ভিস, যা ব্যবহার করে আপনি সহজেই গুগলের প্রথম পাতায় আপনার ওয়েবসাইট দেখাতে পারেন। যদি কেউ তার ওয়েবসাইট গুগলে শেয়ার করতে চায়; তবে, তার জন্য গুগল অ্যাডওয়ার্ডস সার্ভিস খুবই ভালো। এটি ব্যবহার করলে কেউ আপনার ব্লগ সম্পর্কিত কোন কিছু গুগলে সার্চ করলে ডানদিকে বা প্রথম পাতায় আপনার ওয়েবসাইটটি দেখাবে।  

গুগল অ্যাডওয়ার্ডস এর সাহায্যে আপনি যেকোন ধরণের ব্যাবসা শুরু করতে পারেন। এখানে, আপনি আপনার প্রোডাক্টের নাম অনুসারে কিওয়ার্ড রিসার্চ করে তার সার্চ ভলিউমও দেখতে পারবেন। তবে, গুগল অ্যাডওয়ার্ডস এ কোন বিজ্ঞাপন দেখানোর জন্য আপনার কিছু টাকা ব্যয় করতে হবে।

গুগল অ্যাডওয়ার্ডস থেকে কীভাবে ইনকাম করবেন? 

  1. প্রথমে গুগল অ্যাডওয়ার্ডস সাইটে যাবেন।
  2. এখানে, একটি ফ্রি একাউন্ট তৈরি করবেন।
  3. আপনার যে বিজ্ঞাপন দেখাতে চান, সেই বিজ্ঞাপন সম্পর্কিত কিওয়ার্ড খোঁজ করবেন। 
  4. গুগল অ্যাডওয়ার্ডস এর মাধ্যমে আপনার পছন্দমতো বিজ্ঞাপন চালু করবে।

উপড়ের এই ধাপগুলো মেনে চললে আপনি গুগল অ্যাডওয়ার্ডস থেকে টাকা আয় করতে পারবেঙ। 

গুগল মতামত পুরস্কার অ্যাপ

গুগলের পুরষ্কার অ্যাপটি একটি মোবাইল জরিপ অ্যাপ। এখানে, আপনাকে বেশ কয়েকটি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। আর সেই প্রশ্নগুলো নিয়ে প্রতিযোগিতা হবে। প্রতিযোগিতায় যে জিতবে তার গুগল অ্যাকাউন্টে, গুগল পুরুষ্কার হিসেবে নগদ অর্থ প্রদান করবে। এর জন্য আপনাকে পলে স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করতে হবে। তারপর,  আপনার গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে সেখানে সাইন আপ করতে হবে। তারপর, আপনাকে আপনার ক্যাটাগরির উপর ভিত্তি করে একটি প্রাথমিক পরীক্ষা হিসেবে জরিপ হবে। জরিপে আপনার সর্বশেষ কেনাকাটা, আচরণ, আপনার সপ্তাহের চেক-আউট গন্তব্য, আপনার ভ্রমণের বিবরণ ইত্যাদি থাকবে। আপনি যদি সফলভাবে জরিপটি জমা দিতে পারেন; তবে, গুগল মতামত পুরষ্কারগুলি আপনার গুগল ওয়ালেট এ ক্রেডিট হিসেবে পাঠিয়ে দিবে।

গুগল থেকে আয়: ব্লগিং বা ওয়েবসাইট

কোনও প্রকার বিনিয়োগ ছাড়া গুগল থেকে অর্থ উপার্জন করার সেরা এবং সহজতম উপায় হলো ব্লগিং বা ওয়েবসাইট। এক্ষেত্রে, আপনাকে শুধু ওয়ার্ডপ্রেস বা ব্লগার একটি ব্লগিং সাইট তৈরি করতে হবে। তারপর, আপনাকে আপনার ব্লগিং সাইটে বিভিন্ন বিষয়ের উপর ভাল কন্টেন্ট প্রকাশ করতে হবে। আপনি চাইলে কোন পরিষেবা প্রদানকারীর মাধ্যমে একটি ডোমেন হোস্ট করে নিজের ওয়েবসাইট নিজে তৈরি করতে পারবেন। অ্যাডসেন্স, এফিলিয়েট বিপণন, ইত্যাদি ব্যবহার করে গুগল থেকে অর্থ উপার্জনকারার জন্য অনেকগুলি ব্লগ আছে। 

উপরের উল্লেখিত উপায়গুলো মেনে চললে খুব সহজেই আপনি ঘরে বসে উপার্জন করতে পারেন। তাই, আর দেরী না করে আজই শুরু করুন, গুগল থেকে আয় করা। 

সর্বপরি আমাদের পরামর্শঃ আপনি যদি অনলাইনে ইনকাম করতে চান তাহলে যে কোন  একটি মাধ্যম বেছে নিয়ে সে অনুযায়ী কাজ আরম্ভ করে দিন। অবশ্যই আয় করতে পারবেন। সবসময় ভাববেন আপনার মত অন্য কেউ অনলাইন থেকে আয় করতে পারলে আপনি কেন পারবেন না।

আর হ্যা যদি আমাদের সাথে কোন পরামর্শ থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।

You May Like

Leave a Comment