ব্লগ কি ? কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায়

ব্লগিং হচ্ছে একটি অনলাইন ভিত্তিক একটি জনপ্রিয় পেশা। ব্লগিং করে ঘরে বসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করা কোন ব্যাপারই না। ব্লগিং কি ?  কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায় এই বিষয়টি থাকছে আজকের এই আলোচনায়।

পড়ালেখা, চাকরি, অথবা ব্যবসার পাশাপাশি এই কাজটি যে কেউ অনায়াসেই করতে পারবে । ব্লগিং করতে হলে আপনাকে নির্ধারিত কোন সময় দিতে হবে না। আপনি যখন সময় পাবেন তখন কাজ করবেন- এভাবে ব্লগিং করা সম্ভব।

তো বন্ধুরা, আর দেরি কেন ….! আপনি যদি মনে করে থাকেন, অনলাইন থেকে ইনকাম করবেন তবে ব্লগিং হতে পারে আপনার ইনকামের একটি প্রধান উৎস।

এখন কথা হল, কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো ? বন্ধুরা কোনো চিন্তা নেই আমি আজকে এ ব্যাপারটিই আপনাদের সাথে ক্লিয়ার করব।

ব্লগ কি ?  কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো ? ব্লগিং কোথায় থেকে শিখব ? আমি কি ব্লগিং করতে পারব ? ব্লগিং করতে কি কি লাগে ?  ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় ? ব্লগিং করতে কতদিন সময় লাগে ? কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায় ? ব্লগিং করতে কত টাকা খরচ হয় ? এসকল বিষয় থাকছে আজকের এই টিউটোরিয়ালে।

ব্লগ কি কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায়
ব্লগ কি কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায়

তো বন্ধুরা সব বিষয়গুলো ভালভাবে জানতে এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়ার অনুরোধ রইল।

ব্লগ কি? [what is blogging]

এক কথায় বলতে গেলে ব্লগ হলো, ইন্টারনেটে যে কোন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করা। যে ব্যক্তি রা অনলাইনে লেখালেখি করে তাদেরকে ব্লগার বলা হয়। একজন ব্লগার প্রতি মাসে 20 হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারে খুব সহজেই।

ব্লগিং ব্যবসাটি খুবই মজার একটি ব্যবসা। এখানে একবার লেখালেখি করলে সেখান থেকে সারাজীবন ইনকাম করা সম্ভব হয়।

আরও পড়ুন

কিন্তু বন্ধুরা ব্লগিং কিভাবে শুরু করবেন ? সে বিষয়টি নিয়ে সমস্যায় আছেন, নো প্রোবলেম, আজকে এই বিষয়টি নিয়েই আমার আলোচনা।

কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো ? [how to start blogging]

আপনি যদি ব্লগিং করে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চান তাহলে ব্লগ সম্পর্কে ভালোভাবে ধারণা রাখতে হবে। ব্লগ কি কিভাবে কাজ করে এই সম্পর্কে যদি আপনি ভালভাবে না জানান তাহলে ব্লগিং করে বেশিদূর অগ্রসর পারবেন না। আপনি চাইলে আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়ে আসতে পারেন- বাংলা ভাষায় পূর্ণাঙ্গ ব্লগিং টিউটরিয়াল।

এখন কথা হল কিভাবে ব্লগিং শুরু করবো , ব্লগিং শুরু করার জন্য আপনাকে মনস্থির করতে হবে আপনি কি বিষয় নিয়ে অনলাইনে লেখালেখি করতে চাচ্ছেন।

ব্লগিং করার পূর্বে আপনাকে কয়েকটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে সেগুলো হলোঃ

  • আপনি যে বিষয় নিয়ে ব্লগিং করতে চাচ্ছেন সেটি বর্তমান পেক্ষাপটে চাহিদা কেমন
  • ব্লগিং-এর বিষয়টি সম্পর্কে আপনার ধারণা আছে কিনা
  • যে বিষয়ে আপনি লেখালেখি করছেন সে বিষয়ে কেমন কম্পিটিশন রয়েছে
  • আপনি যে বিষয়টি নিয়ে ব্লগিং করতে চান সে বিষয়ে আপনার ইন্টারেস্ট কেমন

ব্লগিং করতে গেলে ব্লগিং এর বিষয়টি সম্পর্কে ইন্টারেস্ট থাকাটা খুব জরুরি। কেননা আপনি যে বিষয়টি নিয়ে লেখালেখি করবেন বা ব্লগিং করবেন সে বিষয়টি সম্পর্কে আপনার যদি ইন্টারেস্ট না থাকে তাহলে গাছ করে মজা পাবেন না।

উপরোক্ত বিষয়গুলো যদি আপনার ঠিক থাকে তাহলে আপনি ঠিকঠাক ভাবে ব্লগিং শুরু করতে পারবেন। আর এর জন্য যা যা প্রয়োজন সবকিছু আমাদের এই আর্টিকেলে দেওয়া রয়েছে। সবকিছু বিস্তারিত জানতে এই আর্টিকেলের শেষ পর্যন্ত পড়তে হবে।

আরও পড়ুন

ব্লগিং কোথায় থেকে শিখব ?

আমরা জানলাম ব্লগিং কি ? ব্লগিং শুরু করার পূর্বে যে বিষয়গুলো জানা প্রয়োজন । কিন্তু কোথা থেকে শিখব ?

আপনার যদি ব্লগিং করে টাকা আয় করার ইচ্ছা থাকে তাহলে সে ইচ্ছাটুকুই আপনাকে ব্লগিং শেখাতে 50% কাজ করবে, বাকিটা আপনার রিসার্স এবং কাজের উপর নির্ভর করবে।

ব্লগিং শিখে অনলাইনে আয় করতে দুই ভাবে শিখতে পারেনঃ

১। ফ্রি ভাবেঃ

ফ্রিতে ব্লগিং শিখতে হলে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও টিউটোরিয়াল এবং ব্লগিং এর জন্য বিভিন্ন ফ্রী কোর্স গুলো আপনাকে আয়ত্ত করতে হবে। এর জন্য গুগল এবং ইউটিউব তো রয়েছেই। আপনি যদি কিছুদিন প্যাকটিস করেন তাহলে আপনি ফ্রিতেই ব্লগিং শিখে নিতে পারবেন এতে আপনার সময় একটু বেশি লাগতে পারে। তবে ফ্রিতে ব্লগিং শিখলে আপনি পেইড কোর্স এর চেয়ে অনেক বেশী কিছু শিখতে পারবেন।

কেননা একটি বিষয় শেখার জন্য আপনাকে কয়েকটি বিষয় শিখে আসতে হবে। কিন্তু আপনি যদি টাকা দিয়ে কোর্স করেন তাহলে আপনাকে বেসিক অংশটুকু ছাড়া কিছু শেখানো হবে না।

তবে আপনি যদি মনে করেন আপনি অল্প সময়ে ব্লগিং শিখে অনলাইন থেকে আয় করতে চান তাহলে পেড কোর্স এর সাহায্য নিতে পারেন।

২। পেইড কোর্স

আপনার আশেপাশে বিভিন্ন ট্রেনিং সেন্টার রয়েছে যেখানে ব্লগিং শেখানো হয়। তবে কোন ট্রেনিং সেন্টারে কতটুকু শিখানো হয় সেটি আপনাকে ভালোভাবে খোঁজখবর নিয়ে জেনে নিতে হবে।

কেননা আপনি যেখান থেকে ট্রেনিং করবেন সেখান থেকে ট্রেনিং করার পর আপনি যদি অনলাইন কাজ করতে না পারেন , তাহলে সে শেখার কোনো দামই নেই।

কোর্স সম্পর্কে আপনার যদি ভাল ধারনা না থাকে তাহলে অবশ্যই যারা জানে তাদের কাছে সাহায্য নিতে পারেন। আরে ব্যাপারে আমাদের কোনো কিছু জিজ্ঞাসা করার থাকলে আমাদের কমেন্ট সেকশনে এসে কমেন্ট করুন আমরা যত দ্রুত সম্ভব আপনাকে রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করব।

কোনটা ভালো- ফ্রি নাকি পেইড

কথা হলো উপরে ব্লগিং শেখার দুইটি মাধ্যম দেখলাম কিন্তু কোন মাধ্যমটি ভালো হবে। আমার মতে আপনি আজ থেকেই বিভিন্ন টিউটোরিয়াল এবং ইউটিউবে ঘাটাঘাটি শুরু করে দিন। প্রয়োজনে যারা জড়িত রয়েছে তাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

বর্তমানে যারা অনলাইন থেকে ইনকাম করছে তাদের বেশিরভাগই আপনাকে সাহায্য করবে। এবং আপনি চাইলে কিছু টাকা খরচ করে একটা কোর্স করে নিতে পারেন।

মনে রাখবেন, যদি কোর্স করে ব্লগিং শিখেন তাহলে সেক্ষেত্রে ব্লগিং এর 10% অর্থাৎ বেসিক বিষয়গুলো আপনাকে শেখানো হবে। বাকি 90% কাজ বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন ভাবে আপনাকে শিখিয়ে দিতে হবে।

এখন আপনিই বিচার করুন আপনি কোনটি করবেন আপনার জন্য কোনটি ভাল হবে।

আমি কি ব্লগিং করতে পারব ?

আপনি একবার মনে মনে ভাবুন যে আমি এই কাজটি করতে পারব কিনা তাহলে এই উত্তরটি আপনি পেয়ে যাবেন। তবে হ্যাঁ আপনি যদি ভাবেন আমাকে এই কাজটি শিখতে হবে এবং এই কাজটি আমাকে করতেই হবে তাহলে আমি বলব আপনি অবশ্যই পারবেন।

কেননা প্রত্যেকটি কাজ মানুষের মন থেকে উৎপত্তি হয়। তাই আপনার মনকে স্ট্রং করে কাজে নামতে হবে। আপনি যদি হেরে যাওয়ার জন্য ভয় পান তবে কখনোই  জয়ী হতে পারবেন না।

তাই ভয় না পেয়ে, কাজ শুরু করে দিন।

ব্লগিং করতে কি কি লাগে ?

ব্লগিং করার জন্য আপনার একটি কম্পিউটার অথবা একটি ল্যাপটপ থাকতে হবে। আর যদি আপনার কাছে ভালো মানের একটি স্মার্টফোন থাকে তাহলেও কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন কিন্তু কষ্ট হবে। কেননা কম্পিউটারের কাজ মোবাইলে বুঝতেই পারছেন।

ব্লগিং করার জন্য যে জিনিস গুলো প্রয়োজনঃ

  • কম্পিউটার বা লেপটপ
  • ইন্টারনেট কানেকশন
  • একটি ওয়েবসাইট (Domain + Hosting + Website )
  • গুগল এডসেন্স বা এফিলিয়েট লিং

আরও পড়ুন:

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় ?

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায় এর নির্ধারিত কোন সীমানা নেই। ব্লগিং করে অনলাইনে আয় এমন একটি মাধ্যম আপনি যত ইচ্ছা তত আয় করতে পারবেন। আপনি যেমন কাজ করবেন, যতটা কাজ করবেন তত ইনকাম করতে পারবেন। তবে হ্যাঁ ব্লগিং সেকশনে আপনি নিত্য নতুন কোন আইডিয়া নিয়ে কাজ করতে এলে খুব দ্রুত সফল হতে পারবেন।

বিভিন্ন ব্লগাররা ব্লগিং করে প্রতি মাসে 20 হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে থাকেন। এবং বেশ কিছু ব্লগার রয়েছেন যারা কোটি টাকার উপরে ইনকাম করবেন।

যেমন,

ব্লগিং করতে কতদিন সময় লাগে ?

পুরোপুরিভাবে ব্লগিং শেখার কোন শেষ সময় সীমা নেই। তবে হ্যাঁ তিন থেকে ছয় মাস কাজ করার পর আপনি ব্লগিং করে ইনকাম শুরু করতে পারবেন। তারপর আপনি একদিকে শিখতে থাকবেন এবং অন্যদিকে আয় করতে থাকবেন এভাবেই বিভিন্ন ব্লগাররা কাজ করে যাচ্ছেন।

কেননা আপনি আজ ব্লগিং এর সম্পূর্ণ কিছু শিখে নিলেন, কিন্তু কাল গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনের বিভিন্ন এলগরিদম পরিবর্তন হয়ে গেল। তখন আপনাকে নতুন করে আবার শিখতে হবে। তাই শেখার কোন শেষ নেই।

তারপরও এখানে কথা থেকে যায়, আপনি কতটুকু সময় দেবেন। আপনি যদি প্রতিদিন 4 থেকে 6 ঘন্টা সময় দিতে পারেন তাহলে তিন থেকে ছয় মাসের মধ্যে আপনি বেসিক লেভেল টা ভালোভাবে দেখে নিতে পারবেন।

অনেকের ক্ষেত্রে আবার এটা এক থেকে দু বছর সময় লেগে যায় আবার অনেকেই 2 থেকে 3 মাসের মধ্যেই শিখে ফেলে। এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করবে আপনার ইচ্ছা এবং চেষ্টার উপর।

আরও পড়ুনঃ

কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায়

ব্লগিং করে আয় করার সেরা মাধ্যমগুলির মধ্যে গুগল এডসেন্স হলো সবার সেরা এবং সবচেয়ে সহজ মাধ্য। এছাড়াও এফিলিয়েট মার্কেটিং, ব্যনার এড সেল, ব্যাকলিংক সেল, স্পন্সর আর্টিকেল ইত্যাদি।

এছাড়াও ব্লগিং মাধ্যমে নিজের পণ্য বিক্রয় করে আয় করা যায়। কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায় এ ব্যাপারে আমাদের আর্টিল রয়েছে সেগুলি দেখে নিতে পারেন।

ব্লগিং করতে কত টাকা খরচ হয় ?

ব্লগিং করতে কোন টাকা খরচ হয় না। আপনি চাইলে ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে ব্লগিং শুরু করতে পারেন। তবে কিছু টাকা খরচ করে ডোমেইন এবং  হোস্টিং কিনে ওয়েবসাইট বানিয়ে ব্লগিং শুরু করলে সবচেয়ে ভালো হয়।

সবশেষে আমাদের পরামর্শ

ব্লগিং পেশা হলো মজার একটি পেশা, এখানে যত দিন যাবে আপনার আয় রোজগার বাড়তেই থাকবে। এবং আরও মজার বিষয় হলো এখানে একবার কাজ করে সারা জীবন আয় করা যায়। তাছাড়াও প্রথমে বেশি সময় লাগলেও পরে এর সময়টা অনেক কমে আসে।

অর্থাৎ একটি পুরাতন ব্লগে প্রতিদিন 2 থেকে 3 ঘন্টা কাজ করেই মাসে 50 থেকে 60 হাজার টাকা আয় করা সম্ভব।

কোন পরামর্শ বা কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায় এ ব্যাপরে আরোও জানতে আমাদের কমেন্ট করুন।

আরও পড়ুন

2 thoughts on “ব্লগ কি ? কিভাবে ব্লগিং করে আয় করা যায়”

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap