ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে

বর্তমানে আমরা যখনই অনলাইনে কোন কিছু খুঁজতে চাই তখনই কোন না কোন ওয়েবসাইটের শরণাপন্ন হতে হয়। এবং প্রত্যেকটি ওয়েবসাইট কোনো না কোনো কারণে তৈরি করা হয়। কেউ অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য, আবার কেউ তাদের ব্র্যান্ড প্রচার করার জন্য, কেউবা আবার অনলাইনে বিভিন্ন সার্ভিস দেয়ার জন্য। এখন কথা হল আমি যদি নিজেই একটি ওয়েবসাইট তৈরি করি তাহলে ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে সেটা জানতে হবে।

হ্যাঁ বন্ধুরা আপনি অনলাইনে ইনকাম করার জন্য হোক, আপনার সার্ভিসের জন্য হোক, আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য হোক, যে কারণেই হোক না কেন আপনার একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা প্রয়োজন। একটি ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগবে বা কিভাবে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় তার বিস্তারিত থাকছে আজকের এই টিউটোরিয়াল।

বন্ধুরা চলুন আমরা চলে যাই আসল আলোচনায়ঃ

ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে?
ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে?

ওয়েবসাইট কি?

আলোচনার শুরুতেই আমাদের জানতে হবে ওয়েবসাইট কি? ওয়েবসাইট হল বর্তমান ইন্টারনেট জগতে আপনার যে কোন তথ্য তুলে ধরার একমাত্র মাধ্যম। এটা কি আপনি আপনার অনলাইন প্রপার্টি বলতে পারেন।

বিভিন্ন ব্যবসায়িক, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অথবা সার্ভিসের জন্য প্রয়োজন হয় অনলাইনে তথ্য জমা করার। যেন একজন ইউজার খুব সহজেই আপনার সম্পর্কে জানতে পারে। ঠিক সে জন্যই প্রয়োজন হবে একটি ওয়েবসাইটের।  সে ওয়েব সাইটে আপনার সকল তথ্য স্টোর করা থাকবে।

কাস্টমারদের চাহিদা অনুযায়ী আপনার উপর থেকে তথ্য খুঁজে নিতে পারবে সহজেই।

ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে

কথা হল আমার একটি ওয়েবসাইটের প্রয়োজন এখন আমি যদি ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাই তাহলে আমার কি কি লাগবে? প্রথমত আপনাকে দেখতে হবে আপনার ওয়েবসাইট কি ক্যাটাগরির এবং তার উপর নির্ভর করবে কি কি বিষয় আপনার ওয়েবসাইটে প্রয়োজন।

তবে হ্যাঁ ওয়েবসাইট এর জন্যই ডোমেইন এবং হোস্টিং এই দুইটি জিনিস অবশ্যই লাগবে। এবং ওয়েবসাইট এর ক্যাটাগরি অনুযায়ী আরো বেশ কিছু জিনিসের প্রয়োজন হয়ে থাকে।

আরও পড়ুনঃ

আমি নিম্নে বিস্তারিত আলোচনা করছিঃ

ডোমেইন কি? কেন প্রয়োজনঃ

ডোমেইন হল ওয়েবসাইটের নাম তথা ঠিকানা। যে ঠিকানাটি সার্চ বারে লিখে সার্চ করলে আপনার ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে। একটি ওয়েব সাইট এর ঠিকানা তৈরী হবে না। আর যদি আপনার ওয়েবসাইটের ঠিকানা না থাকে তাহলে একজন ইউজার কিভাবে আপনার তথ্যগুলো খুঁজে পাবে?

ডোমেইন কোথায় পাবেনঃ ডোমেইন সম্পর্কে জানলাম কিন্তু ডোমেইন কোথায় পাবো? হ্যাঁ বন্ধুরা সেটাও বলছি, বর্তমানে বিভিন্ন সেবাদাতা রয়েছে যারা ডোমেইন এবং হোস্টিং বিক্রয় করে থাকে আপনারা চাইলে তাদের কাছে বাংলা টাকা দিয়ে কিনে নিতে পারেন। অথবা আপনার যদি একটি মাস্টার কার্ড অথবা ইউজ করার মতো কোনো ক্ষমতা থাকে, তাহলে ইন্টার্নেশনাল কোন ওয়েবসাইট থেকে ডোমেইন কিনে নিতে পারেন।

অথবা আপনি চাইলে blogsport.com এর একটি সাব ডোমেইন ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন এটা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে।

আরও পড়ুনঃ

হোস্টিং কি? কেন প্রয়োজনঃ

ওয়েব হোস্টিং হলো আপনার ওয়েবসাইটের ডাটা রাখার জায়গা। যেখানে আপনার ওয়েব সাইটের সকল তথ্য স্টোর করা থাকবে। ওয়েব হোস্টিং ছাড়া একটি ওয়েবসাইট ষ্টোর করা যাবে না।

আমি আরো সহজ করে দিচ্ছি, মনে করুন আপনার নিকটস্থ বাজারে আপনার একটি দোকান রয়েছে। এবং দোকানের একটি চমৎকার নাম দিয়েছেন। যখন কাস্টমার আপনার দোকানের নাম দেখে কোন পণ্য কেনার জন্য যাবে এবং দোকান থেকে পণ্য কিনে নিয়ে আসবে। এখন ধরুন আপনার দোকানের নাম রয়েছে কিন্তু দোকানের কোন জায়গা নেই। তাহলে বিষয়টা কেমন হলো, কেউ কি আপনার ঠিকানায় গিয়ে আপনার কোন অস্তিত্ব পাবে? নিশ্চয়ই না।

ঠিক এরকমই ডোমেইন হল আপনার ওয়েবসাইটের ঠিকানা, এবং ওয়েবসাইট এর যাবতীয় সরঞ্জামাদি অর্থাৎ যে জায়গায় রাখবেন সেটি হলো আপনার দোকান/অর্থাৎ হোস্টিং।

ওয়েব হোষ্টিং কোথায় পাবেনঃ বর্তমানে লুকালি অনেক প্রোপাইটার রয়েছে যারা অল্প খরচে হোস্টিং বিক্রি করে থাকে। অথবা ইন্টার্নেশনাল কোন ভালো প্রোভাইডার এর কাছ থেকে ওয়েব হোস্টিং নিতে পারেন। ওয়েব হোস্টিং মূলত প্রতি বছর বা মাসিক হিসেবে ভাড়া দিয়ে থাকে। প্রতিবছর আপনার ওয়েব হোস্টিং রিনিউ করতে হবে।  আপনি চাইলে যেকোন সময়ে হোস্টিংয়ের প্রোভাইডার পরিবর্তন করতে পারবেন।

এখানে একটি বিষয় লক্ষ্য রাখা উচিত, এমন কোন প্রোভাইডার এর কাছ থেকে হোস্টিং নেয়া যাবে না যার নিজেরই কোন অস্তিত্ব নেই। অর্থাৎ আপনি যার কাছে হোস্টিং কিনলেন, দেখলেন কিছুদিন পর তার ব্যবসা করে দিয়েছে। তখন আপনি সমস্যার সম্মুখীন হবেন।

এবং আপনি চাইলে blogger.com থেকে ফ্রি হোস্টিং ব্যবহার করেই ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন। এছাড়াও আরও বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম রয়েছে সেখান থেকে হোস্টিং নিতে পারেন।

আরও পড়ুনঃ

ওয়েব সাইট এর প্রকারভেদ

ওয়েবসাইট কত প্রকার হয়ে থাকে? এ প্রশ্নটির উত্তর একেক জন একেক রকম ভাবে দিয়ে থাকে। ওয়েবসাইট বিভিন্ন ধরনের হতে পারে আমি নিম্নে কিছু ওয়েবসাইট এর ধরন আলোচনা করলামঃ

পার্সোনাল ওয়েবসাইট

ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে? এ প্রশ্নটির উত্তর ইতিমধ্যে আপনি পেয়ে গেছেন। পার্সোনাল ওয়েবসাইট হলো ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট। একজন ব্যক্তির সম্পর্কে নানা রকম তথ্য করে থাকে। এটি শুধুমাত্র একটি ব্যক্তির পার্সোনাল, পেশাগত, শিক্ষাগত, অভিজ্ঞতা, ভালোলাগা ইত্যাদি বিষয় উল্লেখ করা থাকে।

এরকম ওয়েবসাইট সাধারণত, পাবলিক ফিগার, বা সেলিব্রেটি ব্যক্তিরা তাদের তথ্য দিয়ে তৈরি করে থাকে।

ব্যবসায়িক ওয়েবসাইট

ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান হল একটি ব্যবসার যাবতীয় দিক ভালো-মন্দ তুলে ধরার মাধ্যম। এবং একটি ব্যবসার কি কি ধরনের সার্ভিস রয়েছে সেগুলো উল্লেখ থাকে ওয়েবসাইটে। ব্যবসার পণ্য বা প্রোডাক্ট নিয়ে আলোচনা করা হয় ব্যবসায়ীক ওয়েবসাইটে।

এরকম ওয়েবসাইটে তথ্যগুলো একবার দিয়ে দিলে মাঝেমাঝে আপডেট করলেই হয়ে যায়।

ব্লগ ওয়েবসাইট

এই ধরনের ওয়েবসাইট মূলত অনলাইন থেকে আয় করার জন্য তৈরি করা হয়ে থাকে। এসমস্ত ওয়েবসাইটে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ক্যারিয়ার, বিনোদন, অর্থনীতি, রাজনীতি, এ সকল বিষয়ে প্রতিনিয়ত আলোচনা করা হয়। এবং ব্লগ ওয়েবসাইটগুলো প্রতিদিন নিত্যনতুন তথ্য দিয়ে আপডেট রাখা হয়।

এসমস্ত ওয়েবসাইট আবার বিভিন্ন সিঙ্গেল ক্যাটাগরির জন্যও হতে পারে। যেখানে শুধুমাত্র একটি সিঙ্গেল টপিক নিয়েই বিভিন্ন আলোচনা করা হয়।

যেমন,

  • jit.com.bd
  • dailytk.com
  • nuedu-bd.com
  • techtunes.com.bd ইত্যাদি

নিউজ ওয়েবসাইটঃ

নিউজ ওয়েবসাইটে মূলত ট্রেন্ডিং এ বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়ে থাকে। এসমস্ত ওয়েবসাইটে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ক্যারিয়ার, বিনোদন, অর্থনীতি, রাজনীতি ইত্যাদি অথবা অন্যান্য টপিকের ওপর সাম্প্রতিক যে সমস্ত বিষয়ে আলোচনা হয় সেগুলোই আলোচনা হয়ে থাকে।

নিউজ ওয়েবসাইটগুলোতে প্রতিনিয়ত রিসেন্ট সংবাদ গুলোকে আপডেট করা হয়।

  • প্রথমআলো.কম
  • এনটিভিবিডি.কম
  • ডেইলিইনকিলাব.কম ইত্যাদি

ই-কমার্স ওয়েবসাইট

ই-কমার্স ওয়েবসাইট হল যে সকল ওয়েবসাইট নিয়ে লোকাল ব্যবসা পরিচালনা করা হয়। এসমস্ত ওয়েবসাইট থেকে বিভিন্ন পণ্য অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করা হয়। যেমন, দারাজ, ইভেলি, আলিবাবা, আলি এক্সপ্রেস ইত্যাদি।

আরও পড়ুনঃ ই-কমার্স ব্যবসা করে অনলাইনে আয় করার উপায়।

কিভাবে ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন

আপনি চাইলে ফ্রিতে ও একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন। বর্তমানে অনলাইনে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম রয়েছে যেখানে আপনি চাইলেই খুব সহজেই আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। তবে মনে রাখবেন ফ্রী প্ল্যাটফর্মগুলোতে কোনো না কোনো সীমাবদ্ধতা দিয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ কিভাবে 100% ফ্রিতে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করবেন।

ওয়েবসাইট তৈরি করে আয়

অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন ওয়েবসাইট তৈরি করে অনলাইনে আয় করা সম্ভব কি না। হ্যা, অনলাইনে ইনকামের পদ্ধতি রয়েছে তার ম্যাক্সিমাম ইনকাম গুলি অনলাইনে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকাম করা। আপনার যদি একটি ওয়েবসাইট থাকে তাহলে আপনার সেই ওয়েবসাইট থেকে আপনি বিভিন্নভাবে ইনকাম করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট থেকে আয় করার জনপ্রিয় মাধ্যম গুলো হলঃ

ইত্যাদি জনপ্রিয়।

সর্বোপরি আমাদের পরামর্শঃ

আপনি যদি এখানে খুঁজতে এসে থাকেন যে, ওয়েবসাইট তৈরি করতে কি কি লাগে? তাহলে এতক্ষণে আপনার প্রশ্নের উত্তর পেয়ে গেছেন। সাথে আরো অনেকগুলো প্রশ্নের উত্তর আশা করি আপনার জানা হয়ে গেছে।

এখন আপনি যদি অনলাইন থেকে ওয়েবসাইট তৈরি করে ইনকাম করার কথা ভাবেন, তাহলে আমাদের এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে , যেগুলোর মাধ্যমে ঘরে বসে আয় করতে পারবেন। সেই আর্টিকেলগুলো ভালভাবে পড়ুন, সে অনুযায়ী কাজ করুন অবশ্যই সাকসেস হবেন।

আমাদের এই আর্টিকেলটি যদি আপনার ভাল লাগে তাহলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। আর যদি কোন পরামর্শ বা অভিযোগ থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন।

আরও পড়ুন

Leave a Comment