ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায়

বর্তমান সময়ে আমরা সকলেই বিভিন্ন ডিভাইস যেমন- স্মার্ট মোবাইল, কম্পিউটার বা ল্যাপটপ দিয়ে ফেসবুক ব্যবহার করি।

ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায়
ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায়

আর উক্ত ফেসবুক ব্যবহার করে আমরা বিভিন্ন উপায়ে টাকা আয় করতে পারি। তার মধ্যে উল্লেখ্য যোগ্য হলো ফেসবুক পেজ।

অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান/ কোম্পানি আছে যারা ফেসবুক এর মাধ্যমে পেজ তৈরি করে তাদের পণ্য ও সেবা গুলো প্রমোট করে প্রচার-প্রচার করে এবং বিক্রে করে অনলাইন আয় করে।

এছাড়া ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক ব্যবহার করেও অনলাইন আয় করছে হাজারো মানুষ।

তাই আপনি যদি ফেসবুক থেকে আয় করতে চান। তাহলে আজ আমি আপনাকে জানাব ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায় সম্পর্কে।

তো চলুন এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

আমরা জানি, ব্যক্তিগত ফেসবুক প্রোফাইলের জন্য প্রফেশনাল মোড ফিচার চালু করা হয়েছে। উক্ত পরীক্ষা মূলক বৈশিষ্ট্য এর মাধ্যমে যোগ্য নির্মাতা’রা ফেসবুক পেজ তৈরি না করে ফেসবুক থেকে টাকা আয় করতে সক্ষম হবেন।

এটি ফেসবুক এর মূল কোম্পানি মেটা এর 1 বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ এর অংশ যা নির্মাতাদের জন্যে।

আপনি যদি ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করতে চান। তাহলে আপনাকে প্রথমে জেনে নিতে হবে ফেসবুক প্রফেশনাল মোড আসলে কি। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক।

আরো পড়ুনঃ

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড কি?

ফেসবুক প্রোফাইলে নতুন সংযোজন হচ্ছে প্রফেশনাল মোড। উক্ত প্রফেশনাল মোড ব্যবহার করে মূলত আপনি আপনার ফেসবুক একাউন্ট মানে ব্যক্তিগত প্রোফাইল থেকে আলাদা কোন ফেসবুক পেজ তৈরি না করে টাকা আয় করতে পারবেন।

প্রফেশনাল মোড নির্মাতাদের জন্য বোনাস গুলো নির্মাতাদের জন্য তৈরি একটি পৃথক তহবিল দ্বারা প্রদান করা হবে।

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড চালু করলে আপনি দেখবেন কোন প্রোফাইলে কতজন পোস্ট পড়ছে বা দেখতে কোন প্রকার পোস্ট বেশি এনগেজমেন্ট হচ্ছে ইত্যাদি।

আপনি প্রফেশনাল প্রোফাইলে ফেসবুক পেজ উপলব্ধ বিভিন্ন বিশ্লেষন ডাটার মতো তথ্য গ্রহণ করতে পারবেন।

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড কিভাবে কাজ করে?

ফেসবুক প্রোফাইলের জন্য প্রফেশনাল মোড একটি নতুন বৈশিষ্ট্য। ফেসবুক প্রোফাইল এর প্রফেশনাল মোড ফিচার এর উদ্দেশ্য হচ্ছে, ক্রিয়েটরদের গুরুত্ব দিয়ে টাকা আয় এর পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ ইনসাইট প্রদান করা।

উক্ত তথ্য গুলো আপনাকে আপনার সম্প্রদায় কে আরো ভাল ভাবে বুঝতে সহায়তা করবে। যোগ্য নির্মাতারা প্রফেশনাল মোড এর মাধ্যমে রাজস্ব পেতে পারে এবং তাদের দর্শক বাড়াতে শক্তিশালী সরঞ্জাম ব্যবহার করতে পারে।

প্রফেশনাল মোড এর মাধ্যমে ফেসবুক প্রোফাইল এর আয় এর একটি প্রধান উৎস হচ্ছে রিল’স প্লে বোনাস প্রোগ্রাম।

রিল ছোট ভিডিও, অনেকটা টিক ভিডিও মতোন। ফেসবুক টিক মার্কেট ক্যঅপচার করতে রিল’স বৈশিষ্ট্য চালু করেছেন।

এখন ফেসবুক ইউজারদের রিল তৈরিতে উৎসাহিত করার জন্যে রিল তৈরির বোনাস ঘোষণা করেছেন।

রিল প্লে বোনাস প্রোগ্রাম এর অধিনে নির্মাতারা তাদের মাসিক ভিউ এর উপর নির্ভর করে 35,000 মার্কিন ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

রিল’স বৈশিষ্ট্য এনখন সকল দেশে উপলব্ধ না। ফলস্বরুপ ফেসবুক প্রোফাইল ‍গুলোর জন্যে প্রফেশনাল মোড বৈশিষ্ট্য সরানো হলেও রিল প্লে প্রোগ্রাম এর মাধ্যমৈ রাজস্ব স্ট্রিম তৈরি হতে কিছু সময় লাগতে পারে।

প্রফেশনাল মোড এর লক্ষ্য

মেটা সিও আমেরিকা জুকারবার্গ বলেছেন যে, ক্রিয়েটর’রা 2022 সালের মধ্যে 1 বিলিয়ন মার্কিন কোম্পানিতে বিনয়োগ করবে।

উক্ত বিনিয়োগ এর অংশ হবে বিভিন্ন ফান্ড প্লাস, ক্রিয়েটর ফান্ড ও অন্যান্য মনিটরিং প্রোগ্রাম। ব্যাক্তগত ভাবে ফেসবুক প্লাটফর্ম এর স্থান সংকুচিত করতে চায়।

ফেসবুক এর অসংখ্য ক্রিয়েটর থাকলেও এখন পর্যন্ত ফেসবুক নির্মাতাদের বোনাস দিতে বাড়তি কিছু করে নাই। সেই ক্ষেত্রে অন্যান্য প্লাটফর্ম গুলো অনেক এগিয়ে আছে।

ইনস্টাগ্রামে একটি প্রভাবশালী সম্প্রদায় থাকলেও প্রতিযোগিতার কারণ বসত অনেকেই উক্ত বাজারে আগ্রহী হারাচ্ছেন।

এছাড়া ইনস্টাগ্রাম এর প্রতিষ্ঠান নিজেই উক্ত প্রভাবশালী বাজার সম্পর্কে নেতিবাচক মতামত প্রকাশ করেছে।

তবে ইনস্টাগ্রামে একটি অ্যালগরিদম মিক ফিড সিস্টেম যোগ করা হয়েছে। যা ইনস্টাগ্রাম ইউজারদের ব্র্যান্ড ও ব্যবসায়িক পোস্ট এর চেয়ে বেশি পরিবার ও বন্ধু পোস্ট দেখতে সুযোগ প্রদান করে।

ইউটিউব এক দশক এর বেশি সময় নিয়ে নির্মাতাদের সামগ্রী নগদী করণের সাথে অর্থ ভাগ করে আসছে। তাছাড়া কয়েক দিন আগে ইউটিউবের শর্ট ভিডিও ফিচার ঘোষনা করেছে যা ইউটিউব শর্ট ক্রিয়েটরদের বোনাস প্রদান করবে।

কিন্তু ইনস্টাগ্রাম রেভিনিউ জেনারেট করার ফিচার যোগ করা হয়েছে গত বছরে।  এই সকল সমস্যার পাশাপাশি সাম্প্রতিক ফেসবুক নামে কোম্পানি হিসেবে ঝামেলার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বিশ্রী অবস্থানে আছে ফেসবুক।

নির্মাতা’রা হলেন প্লাটফর্ম এর প্রাণ। এমন একটি সত্য যা ফেসবুক অবশেষে উপলব্ধি করছেন। অবশেষৈ নির্মাতারা ফেসবুক পেজ এর পাশাপাশি ফেসবুক প্রোফাইল এর প্রবেশনাল মোডের সাহায্যে বোনা পাবেন। ফেসবুক এর লক্ষ্য হচ্ছে প্লাটফর্মে ইউজারদের আকৃষ্ট করা বোনাস প্রদানের মাধ্যমৈ অনেকটা রাজস্ব ভাগাভাগির মতোন।

পেজ এবং প্রফেশনাল প্রোফাইলের মধ্যে পার্থক্য কি?

ফেসবুক পেজ কিভাবে কাজ করে এই বিষয়ে সকলেই জানি। ফেসবুক পেজ সাধারণ প্রোফাইলের চেয়ে ভিন্ন।

একটি ফেসবুক প্রোফাইল ব্যবহার করে, একাধিক পেজ খোলা যায়। অনেকে তাদের প্রোফাইলকে একটি পেজ হিসেবে ব্যবহার করতে চাই। প্রোফাইলের জন্য প্রফেশনাল মোড এই সমস্যার সমাধান করতে যাচ্ছে।

প্রোফাইল এর জন্য প্রফেশনাল মোড ব্যবহার করে, সাধারণ ভাবে পোস্ট করার পাশাপাশি পেজ ও দর্শক, প্রেফাইল সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ পরিসংখ্যান এর মতো উন্নত পোস্ট বৈশিষ্ট্য আছে। মূলত ফেসবুক পেজ এর সকল ফিচার যুক্ত হতে যাচ্ছে ফেসবুকের প্রোফেশনাল প্রোফাইলে।

মনে করুন একটি পোস্টে মোট প্রতিক্রিয়া, মন্তব্য ও শেয়ার এর পাশাপাশি ফলোয়ার এর বৃদ্ধি ও পর্যালোচনা সময় এর সাথে সাথে করা যায়।

মোট কথা পেজ ও প্রফেশনাল প্রোফাইলের মধ্যে কোন পার্থক্য নাই। ফেসবুক প্রোফাইল এর জন্য প্রফেশনাল মোড চালু করার পর যে কেউ প্রোফাইল অনুসরণ করতে পারবে।

এছাড়া তাদের ফিডে সর্বজনীন সামগ্রী দেখতে পারবে। কিন্তু মজার বিষয় হলো প্রোফাইলের জন্য প্রফেশনাল মোড চালু করার পর পোস্ট এর গোপনীয়তা আগের মতো পাবলিক বা প্রাইভেট রাখা যাবে। যেখানে ফেসবুক থেকে থেকে  কোন পোস্ট ব্যক্তি গত রাখা যায় না।

তার জন্য একজন ব্যক্তির নাম একটি পৃথক প্রোফাইল বা পেজ পরিচালনা করার দরকার পড়ে না। ব্যক্তিগত পোস্ট গুলো বন্ধুদের সাথে শেয়ার করা যায়। এবং সকল অনুসরণকারীদের জন্য সর্বজনীন পোস্ট গুলো।

তার মানে হলো প্রফেশনাল মোড চালু করার পরে ইউজার এর সামগ্রীর গোপনীয়তার উপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ থাকবে।

উক্ত নতুন মোডটি বর্তমান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে শুধু কয়েকটি ফেসবুক প্রোফাইলে পরীক্ষা করা হয়েছে। ফেসবুক এর ভাষ্য মতে, ইতোমধ্যে চালানো উক্ত পরীক্ষার ফলাফল অনেকটা আশানুরুপ।

সকল কিছু ঠিক থাকলে মেটা সকল ফেসবুক ইউজার এর জন্য ফেসবুক প্রফেশনাল মোড বৈশিষ্ট্য চালূ করে দেবে।

পেজের পরিবর্তে কেন প্রফেশনাল মোড চালাবেন?

এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে যে, পেজরে পরবর্তে কেন প্রফেশনাল মোড চালাবো। তার জন্য আপনি একটি উদাহরণ অনুসরণ করুন যেমন-

আপনি একজন শিল্পি ও আপনার একটি ফেসবুক আইডি আছে। আপনি আপনার প্রোফাইলে আপডেট শেয়ার করতে চান।

তবে একই আপডেট আবার আপনার ফেসবুক পেজে শেয়ার করতে হবে।

মানে একই পোস্ট দুইবার করতে হবে। আবার আপনার বন্ধুরা আপনার পেজে অনুসরণ করে তারা একই পোস্ট দুইবার পাবে।

সেই জন্য আপনি যদি ফেসবুক পেজ এর প্রফেশনাল মোড ব্যবহার করেন। তাহলে একটি ছাদের নিচে আপনার বন্ধুদের সাথে যোগাযোগের পাশাপাশি ভক্তদের সাথে আপডেট শেয়ার করতে পারবেন।

Bottom Line হচ্ছে মেট বা ফেসবুক কনটেন্ট তৈরিতে সকলকে আগ্রহী করতে এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছৈ। আর প্রফেশনাল প্রোফাইল মোড ব্যবহার করলে আলাদা পেজ পরিচালনার ঝামেলা করতে হবে না।

ফেসবুক টিকটক এর মতো শক্তিশালী নির্মাতা সম্প্রদায় আছে। এমন প্লাটফর্ম গুলোর থেকে অনেক পিছিয়ে আছ 3 বিলিয়ন এর বেশি ডাউনলোডফেসবুকর চেয়ে বেশি ব্যস্ততার সাথে টিকটক বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া শিল্পে আকর্ষণ অর্জন করছে। আর ফেসবুক তাদের শ্রম এর মূল দিয়ে নির্মাতাদের আকৃষ্ট করার চেষ্টা করছে।

ফেসবুক প্রফেশনাল মোড থেকে আয়

ফেসবুক প্রোফাইলের জন্য এই প্রফেশনাল মোডের মাধ্যমে কি ধরণের আয় করা যায়। এটি নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে। ফেসবুক জারিয়েছে যোগ্য ক্রিয়টর গণ তাদের সিলেক্ট রিল’স এর মাসিক ভিউস এর উপর ভিত্তি করে মাসিক সর্বোচ্চ 35,000 মার্কিন ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবে।

এটি প্রফেশনাল মোড এর আয়ের প্রধান উৎস হতে চলেছে। কিন্তু এই Reels Play প্রোগ্রামে অংশ গ্রহণ করতে ফেসবুক এর তরফ থেকে ইনভাইট পেতে হবে।

আরও পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

সর্ব শেষ আলোচনায় বলা যায় আপনি যদি ফেসবুক থেকে আয় করতে চান। তাহলে ফেসবুক পেজের থেকে ফেসবুক প্রোফাইল প্রফেশনাল মোড ব্যবহার করে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন।

ট্যাগঃ ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায় ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায় ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায়

ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায় ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায় ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা আয় করার উপায়

আমাদের দেওয়া আর্টিকেল আপনার কাছে কেমন লাগলো কমেন্ট করে জানান। আর এই বিষয়ে আপনার বন্ধুকে জানাতে একটি শেয়ার করুন। আমাদের সাথে শেষ পর্যন্ত সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap