ডেবিট কার্ড কি ? ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম

বর্তমান সময়ে সারা বিশ্ব কিন্তু, ধীরে ধীরে ডিজিটালাই হচ্ছে। তাই এই ডিজিটাল হওয়ার অন্যতম কারণ হলো ডিজিটাল পেমেন্ট ব্যবস্থা।

আমরা জানি, বিশ্বের প্রতিটি দেশের সরকার কিন্তু ডিজিটাল পেমেন্ট এর মাধ্যম চালু করে দিয়েছে।

অনলাইন পেমেন্ট বা ডিজিটাল পেমেন্টের জন্য আপনার যে, কোন ব্যাংক একাউন্ট থাকতে হবে।

আপনি যখন কোন ব্যাংক এ নতুন একাউন্ট তৈরি করতে যাবেন। তখন একটি কার্ড এর জন্য আপনাকে ফরম পূরণ করতে হবে।

কিছুদিন পরে সেই কার্ডটি পোস্ট অফিস এর মাধ্যমে আপনার বাড়িতে গিয় পৌছে দেবে।

উক্ত ব্যাংক হতে যে কার্ড প্রদান করা হবে সেটি হতে পারে ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড বা এটিএম কার্ড। আমরা জানি, উক্ত কার্ড গুলোর বিষয়ে অনেকে শুনেছেন।

উক্ত কার্ড গুলো দেখে আপনি হয়তো বুঝতে পারবেন না যে, এটি ডেবিট কার্ড নাকি ক্রেডিট কার্ড নাকি এটিএম কার্ড। তবে উক্ত আলাদা আলদা কার্ডের মধ্যে নাম লেখা থাকে। সেই ভাবে নির্ধারণ করা যায়।

আমরা এই আর্টিকেলে আপনাকে জানাব ডেবিট কার্ড কি? ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম সম্পর্কে। আপনি যদি উক্ত বিষয়ে সঠিক তথ্য জানতে চান, তাহলে নিচে দেওয়া তথ্য গুলো অনুসরণ করুন।

ডেবিট কার্ড কি ? ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম
ডেবিট কার্ড কি ? ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম

ডেবিট কার্ড কি (what is debit card)

ডেবিট কার্ড হচ্ছে- ব্যাংক এর মাধ্যমে প্রদানকৃত একটি কার্ড যার সাহায্যে আপনারা টাকা তুলতে ও জমা করতে পারবেন।

উক্ত কার্ড গুলো পেমেন্ট কার্ড, যা ব্যাংকের সাথে লিংক করা থাকে। ব্যাংকের গ্রাহর’রা ব্যাংকে না গিয়ে যে কোন এটিএম মেশিন থেকে টাকা উত্তোলণ এবং জমা করতে পারে।

এছাড়া আপনারা অনলাইনে ডেবিট কার্ড এর মাধ্যমে টাকা দিয়ে শপিং করতে পারবেন মার্কেটপ্লেস গুলোতে গিয়ে।

আপনি যদি উক্ত বিষয় সঠিক ভাবে অনুসরণ করে থাকেন। তাহলে আপনি ডেবিট কার্ড আসলে কি সেটি জেনে নিতে পারছেন।

আরো দেখুনঃ

ডেবিট করার্ড কত প্রকার ও কি কি ?

ডেবিট কার্ড প্রধানত ৫ প্রকার যথা-

  • Visa ডেবিট কার্ড
  • Master card ডেবিট কার্ড
  • Platinum ডেবিট কার্ড
  • Maestro ডেবিট কার্ড
  • Contactless ডেবিট কার্ড

Visa ডেবিট কার্ড 

ভিসা ডেবিট কার্ড, এটি আমেরিকার একটি কোম্পানি। উক্ত ভিসা কার্ডের মাধ্যমে সারা বিশ্বে যেকোন জায়গায় গিয়ে টাকা লেনদেন করা যায়।

তাই ভিসা ডেবিট কার্ড কে আন্তর্জানিতক ভিসা ডেবিট কার্ড বলা হয়।

Master card ডেবিট কার্ড

ভিসা কার্ড এবং মাস্টার কার্ড এর সে রকম কোন পার্থক্য নাই। মাস্টার কার্ডও একটি আন্তর্জাতিক পেমেন্ট কার্ড।

আপনি উক্ত মাস্টার কার্ড ব্যবহার করেও দেশের বাহিরে গিয়েও কার্ডের মাধ্যমে টাকা উত্তোলণ করতে পারবেন।

Platinum ডেবিট কার্ড

উক্ত Platinum ডেবিট কার্ডটি ভারতের জন্য সীমাবদ্ধ। উক্ত কার্ড এর মাধ্যমে শুধু ভারতের টাকা উত্তলণ ও জমা করতে পারবেন।

এবং অনলাইন শপিং- কেনাকাটা করতে পারবেন। মোট কথা ভারতের বাহিরে এই ডেবিট কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন না।

Maestro ডেবিট কার্ড

মাস্টার কার্ড এর মতো Maestro ডেবিট কার্ড ও একই রকম। উক্ত কার্ড ব্যবহার করে সারা বিশ্বের এটিএম মেশিন এর মাধ্যমে টাকা উত্তোলণ করতে পারবেন।

Contactless ডেবিট কার্ড

উক্ত ডেবিট কার্ড কোন ঝামেলা ছাড়াই টাকা তোলার অনুমতি প্রদান করে। ভারতে State bank axis bank, hdfc bank গুলো এই ডেবিট কার্ড গুলো প্রদান করে থাকে।

ডেবিট কার্ড করতে কি কি লাগে ?

আপনি যদি ডেবিট কার্ড পেতে চান তাহলে আপনার কিছু জিনিস লাগবে। যেমন- ব্যাংক একাউন্ট, জাতীয় পরিচয়পত্র/জন্ম নিবন্ধন, পাসপোর্ট সাইটের রঙিন ছবি।

উক্ত সকল ডকুমেন্ট যদি আপনার কাছে থাকে। তাহলে আপনিও ডেবিট কার্ড করার জন্য আবেদন করতে পারবেন। এবং আবেদন করার জন্য আপনার বয়স হতে হবে ১৮ বছর।

ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম

আপনি যদি ডেবিট কার্ড পেতে চান? তাহলে দুইটি মাধ্যমে ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম পেয়ে যাবেন। যেমন-

  • অনলাইনে ডেবিট কার্ড করার নিয়ম
  • অফলাইনে ডেবিট কার্ড করার নিয়ম

অনলাইনে ডেবিট করার্ড করার নিয়ম

আপনার যদি কোন একাউন্ট থাকে।  কিন্তু কোন ডেবিট কার্ড নাই। সেক্ষেত্রে উক্ত ব্যাংক এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে।

আপনার নাম, ঠিকানা, জাতীয় পরিচয় পত্র, ব্যাংক একাউন্ট নম্বর ইত্যাদি তথ্য গুলো উপস্থাপন করে ডেবিট কার্ড করার আবেদন করতে পারবেন।

অফলাইনে ডেবিট কার্ড করার নিয়ম

আপনি যদি কোন ব্যাংকে নতুন একাউন্ট খোলতে যাবেন। তখন ব্যাংক অফিসার আপনাকে ডেবিট কার্ড করার জন্য অফার করবে।

মানে ডেবিট কার্ড করার জন্য আপনাকে একটি ফরম দেবে। আপনি যদি ডেবিট কার্ড করতে চান।

তাহলে আপনি সেই ফরম সঠিক ভাবে পূরণ করে, নাম, ঠিকনা, জাতীয় পরিচয়পত্র, একাউন্ট নম্বর ইত্যাদি দিয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জমা দিবেন।

তারপরে কয়েক সপ্তাহ পরে, পোস্ট অফিস এর মাধ্যমে আপনার বাড়িতে গিয়ে ডেবিট কার্ড দিয়ে আসবে।

তারপরে আপনি অফলাইনে ডেবিট কার্ড আপনার ব্যাংকে গিয়ে বা এটিএম মেশিন গিয়ে চালু করতে পারবেন।

ডেবিট কার্ড চালু করার পর থেকেই এটিএম কার্ড এ টাকা উত্তোলণ ও জমা করতে পারবেন। এবং অনলাইনে কেনাকাটার জন্য টাকা পে করতে পারবেন ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে।

ডেবিট কার্ড দিয়ে কিভাবে টাকা তুলতে হয়

আপনি যদি ডেবিট কার্ড দিয়ে টাকা তুলতে চান? তাহলে এই কাজটি অনেক সহজ।

ডেবিট কার্ড দিয়ে টাকা তোলার জন্য আপনাকে এটিএম মেশিন এর কাছে চলে যেতে হবে। তারপরে আপনার কার্ডটি এটিএম মেশিনে প্রবেশ করবেন।

এরপরে, আপনাকে ভাষা সিলেক্ট করতে হবে। আপনার সহজ ভাষা যদি ইংলিশ হয় তাহলে সেটি সিলেক্ট করবেন।

তারপর আপনাকে কার্ডের পিন নম্বর দিতে হবে।  তারপরে ডেবিট কার্ড পিন দিয়ে পরবর্তী অপশনে চলে যাবেন।

এখন আপনারা withdraw নামে অপশন দেখতে পারবেন। withdraw তে ক্লিক করবেন।

তার পরে আপনার ব্যাংক একাউন্ট সেভিংস না কারেন্ট সেটি সিলেক্ট করবেন। তারপরে রিসিপ্ট পাওয়ার জন্য Yes অপশনে ক্লিক করবেন।

এরপরে শেষ পর্যায়ে আপনারা কত টাকা তুলতে চান? সেটি আপনারা সেটি লিখবেন তারপরে Correct করবেন। তারপরে দেখতে পারবেন এটিএম মেশিন থেকে টাকা বেরিয়ে আসবে।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা, এই পোস্টে আপনি জানতে পারলেন, ডেবিট কার্ড কি? ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম সম্পর্কে জেনেছেন।

আপনি যদি অনলাইনের মাধ্যমে ডেবিট কার্ড খোলতে চান সেই অপশন পাবেন আর যদি অফলাইনে সরাসরি ব্যাংকে গিয়ে ডেবিট কার্ড করতে চান সেটিও পারবেন।

আমাদের লেখা আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানবেন। আমাদের ওয়েবসাইট থেকে আরো বিভিন্ন কার্ড সংক্রান্ত তথ্য জানতে নিয়েমিত ভিজিট করুন, ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

1 thought on “ডেবিট কার্ড কি ? ডেবিট কার্ড খোলার নিয়ম”

  1. একটি যুগোপযোগী পদ্ধতি। যিনি বুঝবেন তিনি উপকৃত হবেন।

    Reply

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap