IP Address কি ? আইপি এড্রেস দিয়ে কি করা যায় (বিস্তারিত দেখুন)

আমরা জানি, বর্তমান সময়ে যারা স্মার্ট মোবাইল এবং কম্পিউটার এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন তারা সকলেই IP Address আইপি এড্রেস নামে শব্দটি শুনে থাকবেন।

আমরা যখন একটি মোবাইল বা কম্পিউটার ব্যবহার করি তখন সেই ডিভাই গুলোতে আইডি এড্রেস যুক্ত করা থাকে।

বিশেষ করে, আমরা যারা অনলাইনে কাজ করার সময় বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করি সেই সকল ওয়েব সাইট এর আইপি এড্রেস গুলো দেখা যায়।

এবং আপনি যখন কোন ডিভাইস থেকে কোন ব্রাউজার নিয়ে কাজ করবেন, তখন আপনি যদি IP Address লিখে সার্চ করেন তাহলে আপনার ডিভাইসের আইপি ঠিকানা দেখতে পারবেন।

তো আইপি এড্রেস বিষয়ে জানতে হলে আপনাকে প্রথমে আইপি এড্রেস কি এই বিষয়ে জেনে নিতে হবে। তো চলুন IP Address সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

আইপি এড্রেস কে সংক্ষিপ ভাবে IP বলা হয়। আর উক্ত আইপি গুলো মূলত বেশ কিছু সংখ্যার সমন্বয়ে গঠিত।

যার মাধ্যমে আপনি বর্তমান সময়ে কোন জায়গা থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন সেটি সহজ ভাবে দেখা সম্ভব হয়।

IP Address কি ? আইপি এড্রেস দিয়ে কি করা যায় (বিস্তারিত দেখুন)
IP Address কি ? আইপি এড্রেস দিয়ে কি করা যায় (বিস্তারিত দেখুন)

আইপি শব্দটির পূর্ণরুপ হলো ইন্টারনেট প্রডোকল। আমরা বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন প্রকার ডিভাইস ব্যবহার করে থাকি।যেমন- স্মার্ট মোবাইল, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, টেপ ইত্যাদি।

উক্ত সকল ডিভাইস এর ক্ষেত্রে কিন্তু আলাদা আলাদা আইপি ঠিকানা আছে। যে ঠিকানা গুলো মূলত আপনার বর্তমান অবস্থান ও পরিচয় বহন করে থাকে।

তার জন্য সহজ ভাষায় বলা যায় আমরা বরর্তমান সময়ে যারা উক্ত ডিভাইস গুলো ব্যবসার করছি বা কোন নেটওয়্যার্ক এর সাথে যুক্ত থাকি। তাদের আইপি এড্রেস সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা থাকা জরুরী।

তবে, দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমরাদের মধ্যে এখনও অনেক লোক আছেযারা আইপি এড্রেস কি এই সম্পর্কে জানে না।

তাই আজ আমি আপনাকে জানাব আইপি এড্রেস সম্পর্কে সকল বিষয় গুলো আপনার সামনে তুলে ধরব।

তো চলুন উক্ত বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

IP Address কি ?

আইপি এড্রেস নিয়ে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেওয়া আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে, আইপি এড্রেস কি বা আইপি ঠিকানা কাকে বলে।

এর কারণ হলো আপনি উক্ত বিষয়টি বুঝতে পারবেন তখন আপনার পরবর্তী আলোচনা গুলো বুঝতে সুবিধা হবে।

আইপি এড্রেস সহজ ভাবে বলতে গেলে আইপি হলো এক প্রকার বিশেষ ইন্টারনেট প্রটোকল। যে প্রটোকল এর মাধ্যমে একজন অনলাইন বা ইন্টারনেট ইউজারের পরিচয় বহন করে থাকে।

কিন্তু এই সকল রোবটিক উত্তরে হয় তো আপনি কিছু বুঝতে পারবেন না। তবে, আমরা আপনাকে উদাহরণ হিসেবে ‍বুঝিয়ে দেব এই বিষয়টি বুঝতে আপনার কোন কষ্ট হবে না।

আরো পড়ুনঃ

সহজ করে বলতে গেলে, আইপি হচ্ছে কোন তথ্য প্রদান করার বিশেষ একটি মাধ্যম কে বুঝানো হয়। যেমন- মনে করুন- আপনি বর্তমান সময়ে ইউটিউবে কোন একটি ভিডিও দেখতেছেন।তবে এর মানে এই নয় যে, আপনি শুধু মাত্র একাই ইউটিউব ভিডিও দেখতে পারছেন।

আপনি ইউটিউবে যে, ভিডিওটি দেখছেন সেটি কিন্তু একসাথে মিলিয়ন মিলিয়ন মানুষ দেখতেছে।এখন একটি বিষয় চিন্তা করুন যে, এত মিলিয়ন মিলিয়ন লোক একই সময় ইউটিউব ভিডিও দেখার পরেও, ইউটিউব কিভাবে বুঝতে পারছে যে, এক সাথে কত জন লোক এবং কোন স্থান থেকে ভিডিও গুলো দেখছে। আর উক্ত বিষয়টি নির্ধারণ করে থাকে আইপি এড্রেস।

এর কারণ যখন আপনি মোবাইল বা কম্পিউটার দিয়ে ইন্টারনেট বা নেটওয়্যার্ক এর সাথে যুক্ত হবেন, ঠিক সেই সময় নেটওয়্যার্ক থেকে আপনার ডিভাইসে কয়েক সংখ্যক একটি এড্রেস যুক্ত হবে।

আর সেই ঠিকানার মাধ্যমে মূলত আপনার পরিচয় ও আপনার অবস্থান কে নির্দেশ করবে। আর উক্ত মাধ্যম গুলোকেই বলা হয় IP Address.

অনেকে প্রশ্ন করে থাকে যে, আইপি এড্রেস কত বিটেরহয়। তাহলে আপনার উত্তরে বলব আইপি এড্রেস এর দৈর্ঘ্য = ৩২ বিট।

একটি আইপি ঠিকানায় চারটি অক্টেট থাকে এটি ৩২ x ৮ = ২৫৬ ঠিকানা তৈরি করে থাকে। ইন্টারনেট এর জন্য উপলব্দ ২^৩২ = ৪,২৯৪,৯৬৭,২৯৬ আইপি ঠিকানা আছে।

ইন্টারনেট প্রটোকল কি ?

আইপি এড্রেস কি এই আলোচনাতে আমরা প্রটোকল নামে একটি শব্দ বারবার ব্যবহার করেছি। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক ইন্টারনেট প্রটোকল কি? কিভাবে প্রটোকল ব্যবহার করা যায়।

আপনি যদি এই বিষয়ে জেনে থাকেন তবে ভালো। যদি প্রটোকল কি এই বিষয়ে কোন ধারণা না থাকে তাহলে নিচে দেওয়া তথ্য গুলো অনুসরণ করুন।

ডিজিটাল কমিউনিকেশনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা কিছু সেট অফ রূলস এর সমন্বয়কে বলা হয় প্রটোকল।

আপনি যখন কোন একটি ডিভাইস নেটওয়্যার্ক এর সাথে যুক্ত হবেন তখন সেই ডিভাইস থেকে ডাটা গুলো কিভাবে সেন্ড হবে। এবং কিভাবে রিসিভ হবে ও তার পরিমাণ কি থাকবে সেটি কিন্তু প্রটোকল নির্ধারণ করে থাকে।

আইপি এড্রেস কত প্রকার কি কি ?

ইন্টারনেট এর মাধ্যমে সকল ব্যবহারকারীকে একক ভাবে চিহ্নিত করার জন্য মূলত এই আইপি এড্রেস ব্যবার করা হয়।

আর সে জন্য আপনি যখন ইন্টারনেট বা নেটওয়্যার্ক এর সাথে যুক্ত হবেন ঠিক সেই সময় আপনার আইপি ঠিকানা এর প্রয়োজন হবে।

উক্ত আলোচনা্ থেকে আপনি জেনে নিতে পারলেন আইপি এড্রেস আসলে কি। সেই কারণে এবার আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে আইপি এড্রেস কত প্রকার ও কি কি?

ইন্টারনেটের প্রটোকল এর উপর নির্ভর করে, মূলত আইপি এড্রেসকে দুইটি ভাগে ভাগ করা যায় যেমন-

  1. পাবলিক আইপি এড্রেস।
  2. প্রাইভেট আইপি এড্রেস।

উক্ত আইপি এড্রেস গুলোর নাম জানলেই হবে না বরং এ গুলোর কাজ কি ও কেন এই আইপি এড্রেস গুলোকে দুইটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে।

তো চলুন ‍উক্ত দুইটি প্রকার সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

পাবলিক আইপি এড্রেস কি ?

সহজ ভাবে বলতে গেলে, ইন্টারনেট থেকে সরাসরি এক্সে দেওয়া আইপি কে বলা হয় পাবলিক আইপি এড্রেস।

মূলত এর মাধ্যমে কম্পিউটার ডিভাইস গুলোতে সরাসরি ইন্টারনেটের এক্সেস নিতে সক্ষম হয়। তাই এটি সহজ ভাবে বলা যায় যে, সকল আইপি এড্রেস প্রাইভেটের আওতায় অন্তর্ভূক্ত না সে গুলোকেই বলা হয় পাবলিক আইপি এড্রেস।

সচরাচর উক্ত আইপি গুলো সর্বজনীন হয়ে থাকে তাই যে কোন ব্যক্তি এই আইপি এড্রেস গুলো কে ব্যবহার করতে পারবেন।

আরো দেখুনঃ

প্রাইভেট আইপি এড্রেস কি ?

সচরাচর নিজস্ব অফিস আদালত বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, নিজস্ব বাসা গুলোতে প্রাইভেট আইপি এড্রেস গুলো ব্যবহার করা হয়।

এক ব্যক্তিগত আইপি এড্রেস হচ্ছে- একটি ইন্টারনেট প্রটোকল ঠিকানা যা একটি ব্যক্তিগত নেটওয়্যার্ক ব্যবহার এর জন্য সংরক্ষিত।

আইপি ঠিকানার সিংহভাগই সর্বজনীন ও সেগুলো ইন্টারনেট এর সাথে যুক্ত ভিন্ন কম্পিউটারে ইন্টারনেট পরিষেবা প্রদানকারীর মাধ্যমে বরাদ্দ করা হয়ে থাকে।

আপনি যখন নিজের কোন কাজের জন্য বিভিন্ন ডিভাইসের নেটওয়্যার্ক গুলো একটি আইপি’র মধ্যে যুক্ত করা হয় তখন সেই আইপিকে বলা হয় প্রাইভেট আইপি এড্রেস।

IP Address কিভাবে বের করব?

উপরোক্ত আলোচনা থেকে আপনাকে জানানো হয়েছে আইপি এড্রেস কি আইপি এড্রেস কত প্রকার ও কি কি? এখন আপনাকে জানিয়ে দেব, কিভাবে আইপি এড্রেস বের করতে হয়।

আপনি যদি আপনার নিজের আইডি এড্রেস ব্যবহার করতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে একটি ওয়েব ব্রাউজারে প্রবেশ করতে হবে।

তারপরে, আপনাকে গুগলে গিয়ে সেখানে সার্চ করতে হবে What is my ip. আপনি যদি উক্ত দুইটি কাজ সঠিক ভাবে বুঝতে পারেন তাহলে সার্চ করার সাথে সাথে আপনার ডিভাইস এর আইপি ঠিকানা জেনে নিতে পারবেন আপনার আইপি এড্রেস কত। যেমন- এরকম দেখতে পারবেন- 105.99.160.240

আইপি এড্রেস চেক করার লিংকঃ mylocation.org

IP Address দিয়ে কি করা যায় ?

উপরিউক্ত আলোচনা থেকে আইপি এড্রেস কি এই বিষয়ে বিস্তারিত থারণা পেছেন। আমি সহজ ভাবে উক্ত বিষয়ে বুঝানোর চেষ্টা করেছি।

উক্ত বিষয়ে জেনে নেওয়ার পরে, আপনার মনে প্রশ্ন হতে পারে যে, আইপি এড্রেস দিয়ে কি করা যায়।

আপনি নিজের অবস্থান, জায়গা সম্পর্কে জানতে পারবেন। মনে করুন- আপনি ঢাকা থেকে ফেসবুক ব্যবহার করতেছেন। তারপরে আপনি সেই লোকেশনটি দেখে নিতে পারবেন।

আপনি কোন একটি জায়গা থেকে অন্য কোন স্থানে কত পরিমানের দুরত্বে অবস্থান করছেন সেই সম্পর্কেও জেনে নিতে পারবেন।

তার পাশাপাশি কোন একটি স্থান থেকে অন্য একটি স্থানে যেতে কি পরিমাণ সময় লাগবে সেই সম্পর্কেও জেনে নিতে পারবেন।

এছাড়া আপনি কোন কোম্পানির নেট সংযোগ ব্যবহার করছেন সেই কোম্পানির নামটিও জেনে নিতে পারবেন আইপি এড্রেস এর মাধ্যমে।

উক্ত আইপি এড্রেস ব্যবহার করে, অনেক ধরণের পুলিশি কেস গুলোও সহজ ভাবে সমাধান করা যায়। যেমন মনে করুন আপনার একটি স্মার্ট মোবাইল হারিয়ে গেছে, তার পরে পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে আপনার মোবাইল এর আইপি ঠিকানা বের করে সহজেই খুজে বের করতে পারে।

এছাড়া আইপি এড্রেস দিয়ে আরো বিভিন্ন কাজ করা যায়। আপনি যদি উক্ত বিষয়টি মনযোগ দিয়ে থাকেন। তাহলে সঠিক তথ্য গুলো জেনে নিতে পারছেন।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা, আজ আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে আপনাকে জানানো হলো, আইপি এড্রেস কি? আইপি এড্রেস দিয়ে কি কি কাজ করা যায় সেই সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা সমূহ।

আমাদের দেওয়া আর্টিকেল পড়ে আপনার যদি উপকার হয় এবং নতুন কিছু শিখতে পারেন তাহলে আমাদের সাইটে কমেন্ট করে জানাবেন।

আমাদের সাইট থেকে নতুন নতুন আর্টিকেল নিয়মিত পড়তে চাইলে অবশ্যই ভিজিট করুন। ধন্যবাদ।।।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap