মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি?

আমরা জানি, বর্তমান সময়ে অধিকাংশ লোক  স্মার্ট মোবাইল ফোন ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু এই সময়ে বেশি ভাগ সময় মোবাইল ইউজার এর সংখ্যা বেশি দেখা যায় শিক্ষার্থীদের।

তাই বর্তমান সময়ে শিক্ষার্থীরা পড়া শোনায় মনযোগ না দিয়ে মোবাইল আসক্তিতে ভোগছে। মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি এই বিষয়ে আপনাকে বিস্তারিত তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করব।

আপনি যদি মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পেতে চান? তাহলে আমাদের দেওয়া আর্টিকেল শেষ পর্যন্ত মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

আমরা জানি, বর্তমানে মোবাইল ব্যবহার আমাদের দৈন্দিন জীবন যাপন অনেক সহজ হয়ে গেছে। এই সময়ে স্মার্ট মোবাইল ফোন গুলো কম্পিউটারের মতো শক্তিশালী।

সারা পৃথিবী জুড়ে নিজের প্রিয় মানুষ গুলোর সাথে যোগাযোগ করার ক্ষেত্রে একটি মোবাইল ফোনের গুরুত্ব অনেক বেশি।

বর্তমান সময়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা ছাড়াও মোবাইল দিয়ে শিক্ষার্থীরা তাদের মোবাইল ফোন ব্যবহার করে পড়াশোনার কাজ ও সম্পন্ন করতে পারে এছাড়া, ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার কাজে মোবাইল ফোন ব্যবহার করে থাকে।

কিন্তু, মোবাইল ব্যবহারে যখন আমরা অতিরিক্ত করে থাকি সেই সময় সেটি আমাদের জন্য অনেক ক্ষতির কারণ হয়ে দাড়ায়। এছাড়া অতিরিক্ত মোবাইল ব্যবহার করার ফলে স্বাস্থ্যের জন্য অনেক ক্ষতিকারক।

আপনি যখন নিজের মোবাইল প্রয়োজন ছাড়া অতিরিক্ত ভাবে ব্যবহার করবেন তখন বুঝতে হবে আপনি মোবাইলের প্রতি আসক্তি হয়ে যাচ্ছেন।

তার জন্য আপনি যদি মোবাইল আসক্তি  থেকে মুক্তি পেতে চান, তাহলে আজকের এর আর্টিকেল মনযোগ দিয়ে পড়ুন। সঠিক সমাধান পেয়ে যাবেন।

মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি?
মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি?

মোবাইল আসক্তি কি? (What is mobile addiction)

মোবাইল ফোন একটি উৎপাদনশীল হাতিয়ার যে গুলো ব্যবহার করে, আমরা বিভিন্ন উৎপাদনশীল কাজ করার জন্য ব্যবহার করতে পারি।

তবে, মোবাইল অতিরিক্ত ব্যবহার করার ফলে. আপনার কাজকর্ম, পড়াশোনাসহ আরো অন্যান্য সমস্যার সম্মুখিন হতে হবে।

মোবাইল আসক্তি বলতে, আপনি যখন কোন প্রয়োজন ছাড়া অতিরিক্ত মাত্রায় মোবাইল ব্যবহার করবেন তখন তাকে মোবাইল আসক্তি বলা হয়। মানে আপনি মোবাইল ছাড়া কোন কিছুই বুঝার চেষ্টা করেন না।

উক্ত পরিস্থিতিতে আপনার মোবাইল ফোনে থাকা বিভিন্ন অ্যাপ, ইন্টারনেট, ইমেইল ইত্যাদি চালু করে থাকেন।

উক্ত  অতিরিক্ত মাত্রায় মোবাইল আসক্তি হিসেবে আমরা মদ, সিগারেট, জোয়া আরো অন্যান্য নেশার সাথে তুলনা করতে পারি। তার কারণ হলো নেশার মতো মোবাইল আসক্তি একটি মারাত্মক ক্ষতিকারক নেশা।

কোন মানুষ যখন মোবাইল আসক্তিতে ভোগে তখন সেই মানুষ এর কাছে থেকে যদি মোবাইল ফোন সরিয়ে নেওয়া হয় তখন সেই ব্যক্তির কোন কাজে মন বসে না।

মোবাইল ফোনের সাথে এমন অনেক বিষয় গুলো জড়িত আছে। যে গুলোর জন্য লোকেরা না চাইলেও মোবাইল অতির্কিত ব্যবহার করে থাকে।

আরো পড়ুনঃ

সেগুলো হতে পারে যেমন-

  • মোবাইল গেম খেলা
  • মোবাইলে ভিডিও দেখা
  • ইউটিউটিব ভিডিও দেখা
  • সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করা ইত্যাদি।

উক্ত বিষয় গুলো মোবাইল ফোনে অতিরিক্ত ভাবে ব্যবহার করার ফলে লোকেরা বাস্তব জীবন থেকে আস্তে আস্তে বঞ্চিত হয়ে যাচ্ছে। যার ফলে মানুষের জীবনে অনেক ক্ষতির চিহ্ন দেখা যায়

আমি আশা করি উক্ত ভাষ্য অনুযায়ী মোবাইল আসক্তি কি এই সম্পর্কে সঠিক ধারণা নিতে পারছেন।

মোবাইল আসক্তি’র ফলে কি কি ক্ষতি হতে পারে?

মোবাইল আসক্তি কি এই বিষয়ে উক্ত আলোচনায় বিস্তারিত জেনে নিতে পারছেন। আপনি এখন নিম্নোক্ত লেখা গুলো অনুসরণ করে, আপনি জেনে নিতে পারবেন মোবাইল আসক্তির কারণ সমূহ সম্পর্কে।

তো চলুন মোবাইল আসক্তির ফলে কি কি ক্ষতি হতে পারে সে গুলো জেনে নেওয়া যাক। যেমন-

ঘুমের সমস্যা

আপনি যদি অতিরিক্ত মাত্রায় মোবাইল ব্যবহার করেন। তখন আপনার রাতে ঘুমের সমস্যা দেখা দিবে। যখন মোবাইল এর স্কিনে অনেক সময় ধরে তাকানো হয় স্ক্রিন থেকে চলে আসা আলো আমাদের মস্কিষ্কের উপর অনেক বেশি চাপ সৃষ্টি করে যার ফলে রাতে ঘুমের সমস্যা হয়ে থাকে।

আপনি যদি নিয়মিত ভাবে এরকম ভাবে মোবাইল ফোন অতিরিক্ত ভাবে ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ঘুমের সমস্যা হবে পাশাপাশি আপনার স্বাস্থ্য খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

চোখের ক্ষতি

মোবাইল স্ক্রিনের যে, আলো আমাদের চোখের সামনে চালু থাকে সেটি চোখের জন্য অনেক ক্ষতিকর। আপনি যদি অতিরিক্ত মাত্রায় মোবাইল আসক্তিতে ভোগেন তাহলে আপনার চোখের সমস্যা অনেক গুন বেড়ে যাবে।

কাজে মনযোগ নেই

আপনি যখন মোবাইল আসক্তিতে ভোগবেন তখন আপনি কোন কাজে ফোকাস/ মনযোগ দিতে পারবেন না। সব সময় মনে হবে মোবাইলে একটা কিছু করি। এতে করে আপনার কাজকর্মে, পড়াশোনা সহ অন্যান্য কোন কাজেই মন বসবে না।

মস্তিষ্কের উপর চাপ সৃষ্টি

অতিরিক্ত মাত্রায় মোবাইল ব্যবহার করার ফলে, মস্তিস্কের উপর চাপ সৃষ্টি করে। সকল সময় মোবাইল ব্যবহার করার ফরে মস্তিষ্ক একটু বিশ্রাম করার সুযোগ পায় না। এই জন্য মস্তিষ্কের উপর চাপ সৃষ্টি হয়ে থাকে।

যার কারণে আপনার জীবনে বিভিন্ন ধরণের সমস্যা দেখা দিয়ে থাকে। যার ফলে, আপনার মন ভালো থাকবে না, অলসতা দেখা দিবে, সব সময় রাগ রাগ ভাব মনে হবে এছাড়া আরো অনেক গুলো সমস্যা দেখা দিবে।

মানসিক চাপ

অতিরিক্ত ভাবে মোবাইল ব্যবহার করলে আপনার মধ্যে মানসিক চাপ সৃষ্টি হতে পারে। দেখা যায় যারা বেশি পরিমাণের মোবাইল ব্যবহার করে, তারা অন্যান্য স্বাভাবিক ব্যক্তির তোলনায় যে কোন  পরিস্থিতি অনেক বেশি নেগেটিভ চিন্তা করে থাকে এবং অস্থির হয়ে যায়।

আরো পড়ুনঃ

মোবাইল আসক্তির লক্ষণ গুলো কি কি?

আপনি যদিও মোবাইল আসক্তিতে ভোগেছেন কিন্তু নিজেও এর লক্ষণ গুলো জানতে পারছেন না। তাহলে চলুন মোবাইল আসক্তির লক্ষণ গুলো নিচের অংশ থেকে জেনে নেওয়া যাক। যেমন-

যখন আপনার মোবাইল এর ব্যাটারি চার্জ শেষ হয়ে মোবাইল বন্ধ হয়ে যায়, ইন্টারনেট সংযোগ না থাকে, তখন যদি আপনার মন ছটফট করে তাহলে বুঝতে পারবেন, আপনি মোবাইল আসক্তিতে ভোগছেন।

আপনি যখন লেখা-পড়া বা অন্যান্য কাজ ছেড়ে আপনার মোবাইলে অনলাইন চ্যাটিং, গেম খেলা, ভিডিও দেখার ইচ্ছা জাগে তাহলে আপনার অবশ্যই মোবাইল আসক্তি ভর করেছে।

অপ্রয়োজনে সব সময় মোবাইল এর নোটিফিকেশন চেক করা, সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্লাটফর্ম চালু করা, মোবাইলে আসা এসএমএস গুলো চেক করার মতো ইত্যাদি কাজ গুলোই হলো মোবাইল আসক্তির লক্ষণ।

অনেক লোক আছে, যারা রাতে মোবাইল ব্যবহার না করলে উদাসিন হয়ে যায়। মানে তাদের রাতে মোবাইল ব্যবহার না করলে যেন ঘুমই হয় না। মনে রাখবেন এটিও কিন্তু মোবাইল আসক্তির একটি লক্ষণ। উক্ত বিষয় গুলো ছাড়া, মোবাইল আসক্তির অনেক লক্ষণ আছে।

মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তির উপায় গুলো কি কি?

আপনি কি মোবাইল আসক্তিতে ভোগছেন? আপনি কি এই সমস্যার সমাধান জানতে চান। তাহলে আমাদের দেওয়া নিম্নোক্ত লেখা গুলো মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

প্রথমেই বলে রাখি আপনি যদি মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পেতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই মোবাইল ফোন থেকে নিজেকে দূরে রাখতে হবে।

আপনি যত বেশি নিজেকে মোবাইল থেকে দূরে রাখতে পারবেন, ঠিক তত ভালো ভাবে আসক্তি নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারবেন।

মোবাইল থেকে দূরে থাকার উপায় গুলো

আপনি যদি মোবাইল থেকে দূরে থাকেন তাহলেই আসক্তি থেকে মুক্ত পাবেন। সেই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিচের অংশ অনুসণ করুন।

মোবাইল নিজের সামনে রাখবেন না

আপনি যখন লেখা-পড়া করবেন সেই সময়, রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে, প্রয়োজনীয় কাজ করার সময় মোবাইল ফোন দূরে কোথাও সরিয়ে রাখবেন। কিন্তু বাহিরে কোথাও গেলে আপনার মোবাইল ফোন সাথে নিয়ে যাবেন।

আপনার চোখের সামনে যখন মোবাইল ফোন থাকবে না, তখন কিছু সময় এর জন্য হওে কাজে মন বসাতে পারবেন। এরকম ভাবে মোবাইল নিজের থেকে দূরে রেখে আসক্তি থেকে মুক্তি পাবেন।

বই পড়ুন

আপনার কাছে যদি অনেক অবসর সময় থাকে, সেক্ষেত্রে মোবাইল ব্যবহার করা বাদ দিয়ে চেষ্টা করবেন অবসর সময়ে বিভিন্ন বই পড়ার অভ্যাস করবেন।

আপনি যদি মোবাইল ব্যবহার বাদ দিয়ে বই পড়েন তাহলে অনেক উপকৃত হবেন। এতে আপনি অনেক কিছু শিখতে পারবেন, মন ভালো লাগবে, আপনার অবসর সময়ও কেটে যাবে। এছাড়া বই পড়ার অভ্যাস শুরু করতে ধিরে ধিরে মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাবেন।

মোবাইল ব্যবহার করার সময় নির্ধারণ

আপনি যদি মোবাইল আসক্তিতে ভোগে থাকেন। তাহলে আপনাকে আপনাকে অবশ্যই মুক্তির পথ খোজে নিতে হবে।

আর সেই পথ হিসেবে আপনার মোবাইল ব্যবহার করার সময় নির্ধারণ করতে হবে। কারণ আমরা বর্তমান সময়ে ডিজিটাল যুগে বসবাস করি। তাই আমাদের মোবাইল ফোন ছাড়া কোন ভাবে একে অপরের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হবে না।

তাই আমাদের জীবন চলার পথে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতেই হবে। তাই আপনি যাতে মোবাইল আসক্তিতে না পড়েন। সেই জন্য আপনাকে মোবাইল ব্যবহার করার সঠিক সময় নির্ধারণ করে নিতে হবে।

আপনার কাজের প্রয়োজনে যেটুকু সময় মোবাইল দরকার সেই সময় পর্যন্ত ফোন ব্যবহার করুন। তাহলেই দেখতে পারবেন আপনার মোবাইল আসক্তি দূর হয়ে যাচ্ছে।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথা

তো বন্ধুরা, আজ আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জানতে পারলেন, মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় কি কি?

আপনি যদি উক্ত বিষয়গুলো মনযোগ দিয়ে পড়নে। তাহলে মোবাইল আসক্তি সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা নিতে পারছেন।

ট্যাগঃ মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি? মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি? মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি?

মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি? মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি? মোবাইল আসক্তি কি? মোবাইল আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় গুলো কি কি?

এছাড়া, মোবাইল আসক্তি নিয়ে আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে আমাদের জানাতে পারেন। আর আমাদের সাইট থেকে নতুন নতুন বিষয়ে আর্টিকেল পড়তে চাইলে নিয়মিতি ভিজিট করুন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap