ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে)

বর্তমানে আমরা বিভিন্ন স্থানে ভ্রমণের উদ্দেশ্যে বের হলে নিরাপত্তা হিসেবে ট্রেনে ভ্রমণ করতে আগ্রহী থাকি। কারণ সাধারণত বাস, সিএনজি এর মতো ট্রেন কখনও এক্সসিডেন্ট হয় না। তাই মানুষ ভ্রমণ করার জন্য ট্রেন গাড়ি বেছে নেয়।

আপনিও যদি ভ্রমণ ভালোবাসেন, তাহলে আপনিও হয়তো ট্রেন ভ্রমণ করতে আগ্রহী। তাই আপনি যদি ট্রেন ভ্রমণ করতে চান। তাহলে আপনি বাস, সিএনজি এর মতো সরাসরি রাস্তায় গিয়ে ট্রেনে উঠতে পারবেন না।

ট্রেন ভ্রমন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ট্রেন এর টিকিট কাটতে হবে।  আর আমাদের আশে পাশে অনেক লোক আছে যারা গ্রাম অঞ্চলে বসবাস করে, তারা চাইলেও সঠিক সময়ে ট্রেন এর টিকিট কাটতে পারে না। যার ফলে ট্রেন ভ্রমন করা হয় না।

তার জন্য আজ আমি এই আর্টিকেলে আপনাকে জানাব ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ সম্পর্কে জানাব। আপনি যদি উক্ত বিষয়ে বিস্তারিত জানতে চান। তবে নিচে দেওয়া লেখা গুলো সম্পূর্ণ পড়ুন।

আমরা এখানে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য যে মোবাইল অ্যাপ এর বিষয়ে বলব সেটি আপনি সঠিক ভাবে অনুসরণ করলে এবং সঠিক নিয়মে কাজ করতে পারলে ট্রেন ষ্টেশনে গিয়ে ট্রেনের টিকিট কাটতে হবে না। আপনি চাইলে মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করে নিজের ঘরে বসেই ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন।

কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেক লোক আছে যারা মোবাইল অ্যাপ দ্বারা ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম জানে না, এবং ট্রেনের টিকিট কাটার এপ এর নামও জানে না।

ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে)  
ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে)

আপনি আমাদের লেখা গুলো ফলো করে সহজেই এই বিষয় গুলোর ব্যাপারে জেনে নিতে পারবেন। তো চলুন সময় নষ্ট না করে বিস্তারিত আলোচনায় ফিরে যাওয়া যাক।

আপনি যদি নিজের এলকার বাহিরে কোন চাকরি সূত্রেবা পড়াশোনার লক্ষ্যে ঈদের সময়ে বাড়িতে চাওয়ার জন্য অবশ্যই লম্বা লাইন ধরে দাড়িয়ে থেকে ট্রেনের টিকিট কাটতে হয়।

অনেক সময় দেখা যায়, লম্বা লাইনে দারিড়ে থাকার পরেও একটি টিকিট সংগ্রহ করা সম্ভব হয় না। সেই সময় নিজের বাড়িতে ফেরা অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে যায়।

আপনি যদি উক্ত ভোগান্তি থেকে রক্ষা পেতে চান, তাহলে বাংলাদেশ রেলওয়ে অনলাইন ট্রেন এর টিকিট কাটার জন্য আপনাকে একটি মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হবে।

আর উক্ত অ্যাপ ব্যবহার করে নিজের ঘরে বসে যে কোন স্থান থেকে ট্রেনের টিকিট বুকিং দিতে পারবেন। এতে আপনার সময় বেছে যাবে পরিশ্রম ও করতে হবে না।

আরো পড়ুনঃ

তাই চলুন ট্রেনের টিকিট কাটার এপ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ

স্মার্ট মোবাইল দ্বারা অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্যে বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি জনপ্রিয় অনলাইন অ্যাপ ব্যবহার করে খুব সহজে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন।

আর ট্রেনের টিকিট কাজার মোবাইল অ্যাপটি হলো রেল সেবা [Rail Sheba] এই অ্যাপটি আপনি সরাসরি গুগল প্লে স্টোর থেকে ফ্রিতে স্মার্ট মোবাইলে ইনস্টল করতে পারবেন।

তাছাড়া, আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য একটি রেল সেবা অ্যাপ ডাউনলোড করার লিংক প্রস্তুত করে দেব। সেখানে ক্লিক করে ডাউনলোড + ইনস্টল করে নিতে পারবেন।

রেল সেবা অ্যাপস মোবাইলে ডাউনলোড করে ইনস্টল করার পরে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্যে শুরুতে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে।

রেল সেবা অ্যাপটি রেজিস্ট্রেশন করার জন্য আপনার একটি জিমেইল ঠিকানা, মোবাইল নাম্বার, পাসওয়ার্ড, জাতীয় পরিচয়পত্র নং, জন্ম নিবন্ধন নং, পোস্ট কোড ও পূর্ণ ঠিকানা প্রয়োজন হবে।

আর উক্ত তথ্য গুলো সঠিক ভাবে পূরণ করার পরেই সম্পুর্ণ একটি রেল সেবা একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন হয়ে যাবে।

ডাউনলোড করুনঃ ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপ- Rail Sheba

ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম (মোবাইল অ্যাপ)  

আপনি যদি নিরাপদ ভাবে ট্রেন ভ্রমণ করতে চান। এবং নিরাপত্তা ভাবে নিজের ঘরে বসে ট্রেনের টিকিট কাটতে চাতে চাহলে আপনাকে আপনার স্মার্ট মোবাইল থেকে Rail Sheba অ্যাপে যেতে হবে।

তারপরে আপনার মোবাইল/ ইমেইল ও পাসওয়ার্ড দিয়ে অ্যাপটি লগইন করতে হবে। অ্যাপ লগইন করার পরে আপনার সামনে একটি অনলাইন টিকিট কাটার পেজ দেওয়া হবে।

সেই পেজে আপনি কিছু গুরুত্বপুর্ণ অপশন পেয়ে যাবেন। সেগুলো সঠিক ভাবে পূরণ করার ফলেই আপনি যে কোন স্থান থেকে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। ট্রেনের টিকিট কাটার তথ্য যেমন-

প্রথমে From- এখানে আপনাকে সঠিক ভাবে লিখতে হবে আপনি যে ট্রেন স্টেশন থেকে উঠতে চান তার নাম উল্লেখ করবেন।

তারপরে, To- আপনি যে স্থানে যেতে চান সেই ট্রেন স্টেশন এর নাম উল্লেখ করবেন।

তারপরে, Date Of Journey- এখানে কত তারিখে ট্রেনের টিকিট কাটতে চান তার নির্ধারিত তারিখ ও সময় সিলেক্ট করে দিবেন।

তারপরে, Choose Class- এখানে আপনি কি ধরণের ট্রেন ভ্রম করতে চান তার ক্লস সিক্টে করবেন। অনেক ট্রেন ক্লস রয়েছে। আপনার পছন্দ মতো সিলেক্ট করতে পারবেন।

উপরিউক্ত তথ্য গুলো সঠিক ভাবে পূর্ণ করার পরে আপনি নিচের অংশে Find Ticket নামে একটি অপশন দেখতে পারবেন সেখানে ক্লিক কবেন।

আরো পড়ুনঃ

তারপরে উক্ত তথ্য গুলোতে যে সকল বিষয় গুলো পূরণ করবেন সেটির বিস্তারিত তথ্য দেখতে পারবেন। তারপরে, আপনার পছন্দ মতো ট্রেন ক্লাস সিলেক্ট করে, সিট বুকিং করতে পারবেন। এ জন্য আপনাকে মনে রাখতে হবে একজন অ্যাপ ব্যবহারকারী সর্বোচ্চ চারটি ট্রেনের সিট বুকিং করতে পারবে।

ট্রেন সিট বুকিং করার জন্যে উক্ত পেজ থেকে ভিউ অপশন দেখতে পারবেন সেখানে ক্লিক করবেন। সেখানে আপনি যে, টি গুলো গ্রে কালার দেখতে পারবেন, সেগুলো আগেই কেউ বুকিং করে রেখেছে তাই সেগুলো নিতে পারবেন না।

তবে আপনি সেখানে যে সকল সিট সাদা কালার দেখবেন সেগুলো থেকে সিট বুকিং করতে পারবেন। আর আপনার নির্বাচন করা সাদা সিট গুলো বুকিং করার সাথে সাথে সবুজ কালারে রুপান্তরিত হবে।

আর যখন সাদা সিট গুলো সবুক রং ধারণ করেছে তখনই বুঝতে পারবেন আপনার নামে সেই সিট গুলো বুকিং হয়েছে।

উক্ত নিয়মে সিট বুকিং এর কাজ শেষ হলে দেখতে পারবেন Continue Purchase একটি অপশন সেখানে ক্লিক করবেন।

এর পরে আপনাকে আরো একটা পেজ দেওয়া হবে। সেখানে যাত্রীর নাম, মোবাইল নাম্বার, ইমেইল এড্রেস ইত্যাদির তথ্য সঠিক ভাবে দিতে হবে।

এরপরে, আপনি ট্রেনের টিকিট কাটার পেমন্টে অপশন পেয়ে যাবেন। সেখানে আপনি বিকাশ, নগদ, রকেট ইত্যাদির মাধ্যমে টিকিট পেমেন্ট করতে পারবেন।

এর পরে আপনি ট্রেনের টিকিট পেয়ে যাবেন। যা আপনি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন পিডিএফ ফাইল আকারে। আর যখন আপনি ট্রেন ভ্রমন করবেন তখন আপনার কাছে টিকিটটি থাকতে হবে।

টিকিটটি মোবাইলে পিডিএফ ডাউনলোড করে অবশ্যই কম্পিউটারে শেয়ার করে নিয়ে প্রিন্ট করে নিজের কাজে সংগ্রহ করতে হবে।

আরো দেখুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা, আমাদের এই আর্টিকেল থেকে জানতে পারলেন, ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ সম্পর্কে।

এছাড়া কিভাবে ট্রেনের টিকিট কাটতে হবে তার বিষয়ে বিস্তারিত ধারণা। আমরা আপনার সুবিধার জন্য উক্ত ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপ ডাউনলোড করার একটি লিংক শেয়ার করেছি।

যা ডাউনলোড করে আপনার হাতে থাকা স্মার্ট ফোন দিয়ে যে কোন সময় যে কোন জায়গা থেকে ট্রেনের টিকিট কাটতে/ বুকিং করতে পারবেন।

ট্যাগঃ ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে) ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে) ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে)

ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে) ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে) ট্রেনের টিকিট কাটার মোবাইল অ্যাপ (ডাইরেক্ট এখানে)

আমরা আশা করি উক্ত আলোচনা থেকে ট্রেনের টিকিট কাটার বিষয়ে জেনে নিতে পারছেন। আমাদের আর্টিকেল আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন ধন্যবাদ…

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap