সিম নাম্বার গোপন রেখে কল করবেন কিভাবে? – বিস্তারিত!!

কেউ আপনার সিম নাম্বার যদি কোনোভাবে একবার পেয়ে যায় তাহলেই আর দেখে কে! রাতদিন আপনাকে উতক্ত করা নিয়েই ব্যস্ত। আর আপনিও পড়ে যান আরেক মাথাব্যথায়। কিন্তু এই অবস্থায় বিষয়টা যদি একটু মজাদার বানানো যেত? বুঝতে পারছেন তো কি বলছি? হ্যাঁ, সিম নাম্বার গোপন রেখে তাকে কল করে একটু চমকে দেয়ার কথা।

এর মাধ্যমে আপনি চিন্তায় না পড়ে বরং তাকেই এক প্রকার চিন্তায় ফেলতে পারেন। এছাড়াও মাঝে মাঝে আমাদের এক অন্যরকম আশা জাগে কাউকে কল করতে। কিন্তু সে আমার নাম্বার জেনে যাবে এই ভয়ে আর কল করা হয়ে উঠে না, তাই না?

আপনি অস্বীকার করতেই পারবেন না। বিষয়টা নিয়েই আপনিও হয়তো ভেবেছেন। যাই হোক এই দুটো বিষয়ের কিন্তু একটাই সমাধান আর তা হলো সিম গোপন রেখে কাউকে কল করা।

অর্থাৎ আপনি কল করবেন ঠিকই তবে কেউ তা সম্পর্কে জানবে না। চলুন তবে আমাদের আজকের আলোচনার মূল বিষয়ে চলে যাওয়া যাক। আমাদের আজকের আলোচনার হতে যাচ্ছে সিম গোপন করে কল করা নিয়েই-

ফোন নম্বর গোপন রেখে কল করুন।
ফোন নম্বর গোপন রেখে কল করুন।

সিম নাম্বার গোপন রেখে কল করবেন কিভাবে?

সিম নাম্বার গোপন রেখে কল কিছুটা স্বপ্নের মতো তাই না? কেননা কল করব আর মানুষ আর নাম্বার জানবে না তাই আবার হয় নাকি!! তবে এখন কিন্তু এটা আর স্বপ্ন নয়। এখন আপনি বাস্তবেই এই সমস্যার সমাধান খুঁজে ফেলতে পারেন।

প্রযুক্তির কল্যাণে বর্তমানে এই জিনিসটা অনেকটাই সহজ। কেননা এর জন্য তৈরি হয়েছে বিভিন্ন অ্যাপস। আর এই মূল কাজটি হয়ে থাকে কিন্তু একটি ভুয়া নাম্বারকে কেন্দ্র করে। অর্থাৎ আপনি নিজের নাম্বার নয় বরং থার্ড পার্টি অ্যাপস ব্যবহার করে সেখান থেকে একটি ভুয়া নাম্বার ব্যবহার করে কাউকে চমকে দিতে পারেন।

তবে এখানে একটি বিষয় যা আপনাকে সচরাচর বলা হয়ে থাকে , সেটি হলো সব অ্যাপস কিন্তু বিশ্বাস যোগ্য না। আর তাই আপনার কাজটাকে একটু সহজ করে দিতে আমরা আপনাকে কিছু অ্যাপস সাজেস্ট করছি যা আপনি এই কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

অ্যাপসগুলো হলো-

  • Lifehacker
  • Tracebust
  • Spoofcard
  • CallerIDFaker
  • Voxox

এই অ্যাপগুলোর চাহিদা এবং জনপ্রিয়তা অনেক বেশি আর বিশ্বাসযোগ্যও বটে। তবে আমি আপনাকে সাজেস্ট করব ট্রেস বাস্ট অ্যাপটি ব্যবহার করতে।  এই অ্যাপটি তুমুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে শুধুমাত্র এই সেক্টরেই। আর অ্যাপগুলো কিছুদিন এর জন্য আপনি ফ্রি ব্যবহার করতে পারবেন তবে পরে আপনাকে মাসে মাসে টাকা পরিশোধ করতে হবে।

Read More-

কিভাবে অ্যাপসগুলো আপনার পরিচয়কে গোপন রাখবে?

আপনার মনে হয়তো এখন নিশ্চয় প্রশ্ন জেগেছে যে এই অ্যাপসগুলো কিভাবে আপনার পরিচয়কে গোপন রাখবে , তাই না? আসলে এখানে যে আপনার নাম্বার পুরোপুরী গোপন রাখা হবে তা কিন্তু নয়। এটা হচ্ছে আপনার পরিচয়টা গোপন তবে নাম্বার গোপন নয়।

পরিচয় বোলওঁতে বোঝাচ্ছি আপনার যে প্রকৃত নাম্বারটা সেটা গোপন থাকবে রিসিভার আপনার সেই নাম্বারটি জানতে পারবে না। তবে এখানে ব্যবহার করা হবে অন্য একটি নাম্বার অর্থাৎ একটি ভুয়া নাম্বার যা আপনাকে অ্যাপ থেকেই সরবরাহ করা হবে।

আর এই ভুয়া অ্যাপ এর মাধ্যমেই মূলত আপনি নিরাপদ আপনার পরিচত অজ্ঞাত থাকবে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন।

Tracebust সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা-

একটু আগেই আমি আপনাকে বলেছিলাম যে এই সব ফেক কলার বা ভুয়া নাম্বার ব্যবহার করে পরিচয় অজ্ঞাত রাখার অ্যাপগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় কিন্তু ট্রেস বাস্ট। হ্যাঁ। তাই আমি আপনাকে এই অ্যাপটি সমন্ধেই বিস্তারিত বলব এ পর্যায়ে। সাথেই থাকুন-

ট্রেস বাস্ট অ্যাপটি আপনাকে দিনে সর্বমোট ২ টি ফ্রি কল করার সুযোগ দিয়ে থাকে প্র্যাংক নাম্বার দিয়ে।যা আপনি টাকা দিয়ে কেনার মাধ্যমে বাড়াতেও পারেন। এই কলে আপনি যেসব সুবিধা পাচ্ছেন তা হলো-

১০০% ফেক বা ভুয়া কলার আইডি বা ফোন নাম্বার যার মাধ্যমে আপনার পরিচয় অজ্ঞাত থাকবে।

আপনি আপনার সুরক্ষার জন্য নিজের ভয়েসও চেঞ্জ করে নিতে পারেন।

উপরোক্ত সুবিধার পাশাপাশি আপনি কিন্তু উক্ত কলটি সেভ করেও রাখতে পারেন অর্থাৎ রেকর্ড করার সুবিধা থাকছে।

আর এখানে সবচেয়ে বড় সুবিধাটি আমার ভালো লেগেছে তা হলো আপনি ওয়াইফাই কলিং এরও সুবিধা পাবেন । যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়াইফাই ব্যবহার করে নিজের টাকাটা বাচিয়ে ফেলতে পারেন। সত্যিই অনেক অসাধারণ, তাই না? তো দেরি কেন আজই ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

Read More-

 CallerIDFaker কিভাবে ব্যবহার করবেন?

ট্রেস বাস্ট সমন্ধে তো জানলেন তবে এর পাশাপাশি আরো একটি অ্যাপ এর খুব প্রচলন ইদানিং দেখা যাচ্ছে আর তা হলো CallerIDFaker । হ্যাঁ আপনার বন্ধুকে বোকা বানাতে এটিও ব্যবহার করতে পারেন। এ পর্যায়ে আমরা আপনাকে বলব কিভাবে এটি ব্যবহার করে ফেক কল করবেন-

শুরুতেই আপনি কলার আইডি ফেকার অ্যাপটি ইনস্টল করে নিন। ওয়েবসাইটও ব্যবহার করতে পারেন তবে এটি বর্তমানে একটু কাজের ভিতর রয়েছে। তো আপনাকে শুরুতেই ইনস্টল করে নিতে হবে।

এরপর আপনি অ্যাপটির ইন্টারফেস এ চলে যাবেন। সেখানে শুরুতেই আপনাকে আপনার নাম্বার দিতে বলা হবে। আপনি সেখানে নাম্বার দিয়ে দিন, তবে ঘাবড়াবেন না।

আপনার নাম্বারটি দেয়ার পর পরই আপনি যাকে নিয়ে মজা করতে চাচ্ছেন তার নাম্বারটি নিচের অপশনে দিন। এ পর্যায়ে আপনার কাছে চাওয়া হবে আপনি রিসিভারকে কোন নাম্বার প্রদর্শন করতে চাচ্ছেন সেটি। সেখানে মন মতো একটি নাম্বার দিয়ে দিন।

এবার আপনার ভয়েজ পরিবর্তন এর অপশনটি আসবে। সেখান থেকে আপনি ইচ্ছামতো ভয়েস সিলেক্ট করে নিতে পারেন।

এক্কেবারে শেষে আপনি পাবেন রেকর্ড করার অপশন অর্থাৎ পুরো কল জুড়ে যে কথাগুলো হলো তা রেকর্ড করে রাখতে পারেন যাতে পরে তা শুনে বিনোদন নিতে পারেন।

আর এভাবেই উক্ত স্টেপগুলো অনুসরণ করলেই আপনি যে কোন কাউকে ফেক কল করে উতক্ত করতে পারেন। আশা করি বিষয়টি আপনার কাছে পরিষ্কার হয়ে গেছে।

পরিশেষে-

আজকে আমরা জানলাম কিভাবে নাম্বার গোপন রেখে কল করা যায় সে সমন্ধে। আশা করি কখনো যদি আপনার উক্ত বিষয়টির প্রয়োজন পড়ে তবে আপনি উক্ত স্টেপ বা অ্যাপগুলো ব্যবহার করলেই পুরো সমস্যার সামধান পেয়ে যাবেন। তবে এখানে একটা কথা বলে রাখা ভালো যে আপনি কোনো কারণ ছাড়াই এই অ্যাপগুলো ব্যবহার না করেন সে বিষয়ে।

আসলে এই অ্যাপগুলো সব থার্ড পার্টি অ্যাপ যার মানে তেমন কোনো বিশ্বাসযোগ্য সোর্স না। আর আপনাকে যেহেতু এখানে ইমেইল কিংবা ফোন নাম্বার দেয়া লাগছে সেহেতু আপনি অহেতুক কাউকে উতক্ত করতে গেলে নিজেই সমস্যায় পড়তে পারেন। তাই এই দিকে থেকে নিজের নিরাপত্তার কথা একটি বার ভেবে দেখবেন।

আশা করি উক্ত বিষয়গুলো ভালো লেগেছে। এসব কিছুর পরও যদি আপনার কোনো ধরনের কোনো সমস্যা হয়ে থাকে তবে আপনি তা আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন। আর পরবর্তী কি সমন্ধে জানতে চাচ্ছেন তা অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না। একটি বিষয় এখানে জানাতে চাই সেটি হলো আপনি অনলাইন থেকে আয়ের বিষয়ে কৌতূহলী হলে পড়ে আসতে পারেন- অনলাইনে সহজ ভাবে ইনকাম।  ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment