অনলাইনে আয় করার জন্য বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের  প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। আপনি ইচ্ছা করলে যে কোন একটি প্লাটফর্ম কে কাজে লাগিয়ে আপনি অনলাইন থেকে আয় করতে পারবেন ঘরে বসেই।  আজ আমি যে বিষয় টা নিয়ে আলোচনা করব সেটি হচ্ছে অনলাইন থেকে আয় করার সবচেয়ে সহজ উপায়। সবচেয়ে সহজ উপায়ে কিভাবে অনলাইন থেকে আয় করা যায় সে ব্যাপারে আমার আজকের এই টিউটোরিয়ালটি।  যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবো সেটি হলো গুগল এডসেন্স। তো চলুন আমরা জেনে নেই গুগল এডসেন্স টা কি।

 

গুগল এডসেন্স কি?

গুগল এডসেন্স হলো গুগলের একটি এড নেটওয়ার্ক।  যেটি 2003 সালের 18 জুন রিলিজ হয়েছে। গুগল এডসেন্স ব্যবহার করে একজন ব্লগার বা একজন ইউটিউবার অথবা একজন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপস ডেভলপার ঘরে বসে ইনকাম করতে পারে হাজার হাজার ডলার। এখন প্রশ্ন হলো গুগল এডসেন্স কিভাবে এবং কেন আমাদেরকে টাকা দেবে?  বা আমরা কিভাবে গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে পারব? অথবা আমরা কি পরিমানে ইনকাম করতে পারব? তো চলুন আমরা বিস্তারিত আলোচনা করছি।

গুগল এডসেন্স থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করতে পারব?

গুগল এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে একটি ওয়েবসাইট থাকতে হবে।  সে ওয়েবসাইটি হতে পারে ফ্রী ব্লগার প্ল্যাটফর্ম। আপনি চাইলে ব্লগার ইউজ করে একটি ফ্রি ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন এবং সেখান থেকে অ্যাড মনিটাইজ করে গুগল এডসেন্স থেকে আপনি ঘরে বসেই হাজার হাজার ডলার ইনকাম করতে পারবেন।  একটি পেইড ওয়েবসাইট, পেইড ওয়েবসাইট বলতে আমি বোঝাতে চাচ্ছি, যে ওয়েবসাইটটি আপনি কোন ডেভলপার দিয়ে ডিজাইন করে নিয়েছেন এবং আপনার ওয়েবসাইটের জন্য একটি ডোমেইন রেজিস্ট্রেশন এবং হোস্টিং ক্রয় করে সেই নিজস্ব হোস্টিং এ আপনার ওয়েবসাইটটি  তৈরি করে আপনি ব্লগিং করছেন। আপনার ওয়েবসাইট দিয়ে গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করবেন এবং গুগল আপনার ওয়েব সাইটে এড দেখানোর জন্য অ্যাপ্রভাল দেবে তখনই আপনি গুগল এডসেন্স থেকে আপনার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন।

অথবা আপনার একটি ইউটিউব চ্যানেল আছে সেই চ্যানেল দিয়ে গুগল এডসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং গুগল যখন সেই চ্যানেলটিকে অ্যাড মনিটাইজ করার জন্য অ্যাপ্রভাল দিবে  তখন আপনি সেই ইউটিউব চ্যানেল থেকে গুগল এডসেন্স এর এড এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

অথবা আপনি একজন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভলপার গুগল প্লে স্টোরে আপনার অনেকগুলো অ্যাপস রয়েছে আপনি ইচ্ছা করলে সে সমস্ত অ্যাপসে গুগল এডসেন্সের আরেকটি প্ল্যাটফর্ম  ইউজ করে এডমোব ইউজ করে আয় করতে পারবেন।

কত টাকা ইনকাম করা যায়?

এখন প্রশ্ন হলো  আমার একটি ওয়েবসাইট রয়েছে,  অথবা আমার একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে।  এখন আমি গুগল এডসেন্স মাসে কত টাকা ইনকাম করতে পারব।  গুগল এডসেন্স এর ইনকাম টা নির্ভর করবে আপনার ওয়েবসাইট বা আপনার ইউটিউব চ্যানেলে কি পরিমানে ভিজিটর আসছে।  আপনার ওয়েবসাইটে যদি খুব বেশি পরিমানে ভিজিটর থাকে তাহলে আপনি অবশ্যই ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।  আর আপনার ওয়েবসাইটের যদি খুব কম ভিজিটর থাকে তাহলে আপনার ইনকামও স্বাভাবিকভাবেই কম হবে।

গুগল এডসেন্স  কিসের ওপর পে করে?

যখন আপনার একটি ওয়েব সাইটে গুগল এডসেন্স এর এড কোড প্লেসমেন্ট করবেন তখন যে সমস্ত জায়গায় আপনি এদের কোডটি দিয়েছেন। যখন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে আসবে  তখন সেই সকল জায়গায় গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন গুলো প্রদর্শন করবে। এবং যখন কোন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত বিজ্ঞাপন এর উপর ক্লিক করবে তখন সেই বিজ্ঞাপন হতে আপনি কমিশন হিসেবে প্রতি অ্যাড ক্লিক এর জন্য $0.01 থেকে শুরু করে $50.00 পর্যন্ত পেতে পারেন এমনকি এর চেয়ে বেশি ও পেতে পারেন।

গুগল এডসেন্স  এর একটি আর্নিং ক্যালকুলেটরঃ

এখন আপনার ওয়েবসাইটে যদি প্রতিদিন 2 হাজার ভিজিটর থাকে সেখান থেকে যদি 3%  বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে তাহলে আপনার ক্লিক সংখ্যা হবে 60 টি যদি আমরা এবারে যে $0.20  করে ধরি তাহলে আপনার ইনকাম দাঁড়াবে প্রতিদিন $12.00 ডলার X 30 = মাসে $360.00 । আমাদের বাংলাদেশী টাকায় হবে $ 360.00  x 85.00 = BDT 30600.00।

এই ইনকামটা  মোটেও খারাপ নয়।  সেক্ষেত্রে যদি আপনার একটি ওয়েব সাইটে প্রতিদিন ভিজিটর 5000-6000 বা 8000-10000 হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আপনার ইনকাম কত দাঁড়াবে আপনি কল্পনাও করতে পারবেন না।

তবে কথা থেকে যায়,  আপনি যদি বাংলায় ব্লগিং করেন সেক্ষেত্রে প্রতি ক্লিকে 20 সেন্ট করে আপনি পাবেন না।  এমনকি আপনার ভিজিটর অধিকাংশই যদি বাংলাদেশ থেকে আসে বা বাংলাদেশের মত এরকম এশিয়ান কোন কান্ট্রি থেকে আসে তাহলে আপনার সিপিসি বা ক্লিক পার কোস্ট  0.01 থেকে শুরু করে 0.10 এর মধ্যে থাকবে। তাহলে সেক্ষেত্রে আপনার ইনকাম টা কমে যাবে। তবে আপনার ভিজিটর যদি অনেক বেশি হয় তাহলে আপনার ইনকামও বেড়ে যাবে।

কিভাবে গুগল এডসেন্স এর আবেদন করব?

গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করা খুবই সহজ।  প্রথমে এই লিঙ্কে যাবেন- www.google.com/adsense তারপর আপনার ওয়েবসাইটের লিঙ্ক দিয়ে আপনি এপ্লাই বাটনে ক্লিক করুন এবং তাৎক্ষণিকভাবে একটি গুগল এডসেন্স এর কোড জেনারেট হয়ে যাবে সেই কোডটি আপনার ওয়েবসাইটের <head>    ট্যাগ এর মধ্যে প্লেস করে কনফার্ম করুন। প্রাথমিক ভাবে আপনার কাজ শেষ এখন গুগল 6 থেকে 12 ঘণ্টার মধ্যে আপনাকে ইমেইলের মাধ্যমে নোটিফিকেশন দিয়ে জানিয়ে দেবে যে আপনার ওয়েবসাইটে গুগল এডসেন্স এর টার্ম এবং কন্ডিশন এর মধ্যে আছে কিনা।  যদি গুগল এডসেন্স এর মধ্যে আপনার ওয়েবসাইটটি থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাকে গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন ইউজ করার জন্য আপনাকে অনুমোদন দেবে। এবং গুগল অ্যাডসেন্স অ্যাপ্রুভ করবে। তখন আপনি গুগল এডসেন্স ড্যাশ বোর্ডে গিয়ে বিভিন্ন সাইজের বিজ্ঞাপন ক্রিয়েট করতে পারবেন।  এবং সেই কোড গুলো আপনার ওয়েব সাইটের বিভিন্ন জায়গা প্রেস করবেন। যখন ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইটে আসবে যে কিওয়ার্ড বা যে প্রসঙ্গের আর্টিকেল সেই রিলেটেড বিজ্ঞাপন শো করবে। এই ক্ষেত্রে গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন এর উপর ক্লিক করার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

পেমেন্ট কিভাবে পাব?

কয়েক বছর আগ পর্যন্তও গুগল এডসেন্স চেকের মাধ্যমে পেমেন্ট পাঠাতো।  কিন্তু বর্তমানে গুগল এডসেন্স আপনার একাউন্টে সরাসরি ওয়ার ট্রান্সফারের মাধ্যমে টাকা পাঠিয়ে দেবে।  এতে গুগল এডসেন্স পেমেন্ট পাঠানোর পর চার থেকে ছয় দিনের মধ্যে আপনার অ্যাকাউন্টে সম্পূর্ণভাবে এসে যাবে যাবে।  গুগোল অ্যাডসেন্সে আপনাকে কোন ধরনের চিন্তা করতে হবে না। এটা সম্পূর্ণ রিস্ক ফ্রি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here