রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধের উপায়

জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন করার জন্য আবেদন করেন বা ভোটার আইডি কার্ড উত্তোলন করার জন্য আবেদন করেন।

এই ক্ষেত্রে সরকারি ফি জমা দিতে হবে।

আপনারা বিনামূল্যে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন বা উত্তোলন করার কোন সুযোগ পাবেন না।

রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড এর ফি পরিশোধ করা অনেক সহজ। কিন্তু ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন ফি আবেদন ফি সবার জন্য সবসময় হবে।

রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধের উপায়
রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধের উপায়

সেটা কিন্তু নয় একাধিকবার আবেদন করলে ফ্রি এর পরিমাণ বেড়ে যাবে। আবার কিছু কিছু তথ্য সংশোধনের জন্য কম টাকা পরিশোধ করতে হবে।

তাই ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন অথবা আবেদন করার আগে অবশ্যই হিসাব করে নিয়ে জমা দেওয়া উত্তম।

রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড এর ফি পরিশোধের উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে। আমাদের আর্টিকেলটি এখনি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

যাতে করে আপনারা নিজের রকেট অ্যাপ এর মাধ্যমে পরিশোধ করতে পারেন।

নিজের মোবাইল রকেট অ্যাপ দিয়ে, নিজেই ভোটার আইডি কার্ড সংশোধন বা রি-ইস্যু আবেদনের ফি খুব সহজে পরিশোধ করতে পারবেন।

কিন্তু আমাদের মধ্যে এমন অনেক লোক রয়েছে এ বিষয়ে জানেনা বিদায়। বিভিন্ন দোকান প্রতিষ্ঠানে গিয়ে। এনআইডি ফি পরিশোধ করে থাকেন।

এতে করে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশী সময় নষ্ট হয়ে যায়।

তো বন্ধুরা আপনি যদি আপনার রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড যেকোনো ফি পরিশোধের উপায় খুঁজে থাকেন।

তাহলে সঠিক একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেছেন। আমরা আপনাকে এখানে বিকাশ অ্যাপ দিয়ে কিভাবে, এনআইডি কার্ড জমা দিতে হয়। সে বিষয়ে জানাবো।

রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধের উপায়

আপনাদের মোবাইল ফোনের রকেট অ্যাপ থাকলে নিম্নোক্ত পদ্ধতি অনুসরন করে খুব সহজেই এনআইডি সংশোধন ফি এনআইডি রি ইস্যু ফি পরিশোধ করতে পারবেন।

আপনারা এ কাজটি প্রথমে করতে চাইলে মোবাইলে থাকা রকেট অ্যাপ চালু করতে হবে। অ্যাপের মধ্যে অ্যাড মানি, মোবাইল, রিচার্জ বিল-পে ইত্যাদি মেনু দেখতে পারবেন।

তারমধ্যে আপনাদের উপরে ছবি দেওয়ার মতো বিলপে অপশনে ক্লিক করে দিবেন। তাহলে অ্যাপটি নিচের ছবির মত চলে আসবে। যেমন-

এখানে সার্চ বক্সে 1000 টাইপ করতে হবে। আপনারা উপরের ছবিতে যে ভাবে দেখছেন। এলিফ্যান্ট এর বিলার আইডি হচ্ছে 1000।

বিলার আইডি লেখার সাথে সাথে নিচে EC (ইলেকশন কমিশন) বাংলাদেশ লেখা চলে আসবে সেটার উপর ক্লিক করলে নিচের ছবির মত চলে আসবে।

উক্ত পেজে বিলার আইডি লেখা থাকবে। এবং বিলার নেম লেখা থাকবে। তৃতীয় নাম্বার ঘরে এনআইডি নাম্বার লিখতে হবে।

সঠিকভাবে আবেদনকারীর জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর টি লিখবেন। তারপর নিচের ঘরে অ্যাপ্লিকেশন টাইপ সেখানে। ক্লিক করে 1-2-3-4 এই সংখ্যা গুলোর মধ্যে যেকোনো একটি লিখতে হবে।

  • এখন আপনাদের প্রশ্ন হতে পারে যে 1 লিখলে কিসের আবেদন হবে।
  • 2লাখ লাখ আবেদন হবে।
  • এবং 3 লেখলে কিসের আবেদন হবে।
  • এছাড়া 4 আবেদন হবে।

01. এ সম্পর্কে ভালো করে না জানলে ভুল ফি পরিশোধ হয়ে যাবে অ্যাপ্লিকেশন টাইপ এর ঘরে 1 লিখে এনআইডি ফি পরিশোধ করলে ভোটার আইডি কার্ড এর উপরে যে সকল তথ্য লেখা থাকে।

যেমন-

  • নাম
  • পিতার নাম
  • মাতার নাম
  • জন্মতারিখ
  • গ্রাম/মহল্লা
  • জন্মস্থান জেলা ইত্যাদি সংশোধন করার ফি পরিশোধ করা হয়।

02. অ্যাপ্লিকেশন টাইপ এর ঘরে 2 লিখে এনআইডি ফি পরিশোধ করলে এনআইডি কার্ড এর অন্যান্য তথ্য সংশোধন করা যায়।

মানে যে সকল তথ্য ভোটার আইডি কার্ডের উপরে লেখা থাকে না।

যেমন-

  • স্বামী/ স্ত্রীর নাম,
  • পিতা এবং মাতার নাম,
  • এনআইডি কার্ড নম্বর,
  • জন্ম নিবন্ধন এর নম্বর,
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স, টিন নম্বর,
  • পাসপোর্ট নম্বর,
  • শিক্ষাগত যোগ্যতা,
  • মোবাইল নাম্বার ইত্যাদি তথ্য সংশোধন করা যায়।

03. অ্যাপ্লিকেশন টাইপের ঘরে 3 লিখে এনআইডি ফি পরিশোধ করলে যে সকল তথ্য ভোটার আইডি কার্ডের ওপর লেখা থাকে। এবং যে সকল তথ্য ভোটার আইডি কার্ডের উপর লেখা থাকেনা অভয় তথ্য সংশোধন করা যায়।

জাতীয় পরিচয় পত্র এবং অন্যান্য তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন করা যায়।

04. অ্যাপ্লিকেশন টাইপ এর ঘরে 4 লিখে এনআইডি ফি পরিশোধ করলে ভোটার আইডি কার্ড রি ইস্যু বা এনআইডি কার্ড উত্তোলনের আবেদন করা যায়।

Pay For এর জায়গায় নিজের জন্য ফি পরিশোধ করলে Self সিলেক্ট করে দিতে হবে। আর যদি অন্য কারো জন্য ফি পরিশোধ করেন তাহলে আদার্স (Others) সিলেট করতে হবে।

Others সিলেট করলে আবেদনকারীর মোবাইল নাম্বার প্রয়োজন হবে। সেখানে আবেদনকারীর মোবাইল নাম্বারটি লিখতে হবে।

তারপর ভেরিফাইড বাটনে ক্লিক করে দিবেন। তাহলে পেজটি লোড হয়ে নিচের ছবির মত একটি পেজ চলে আসবে দেখুন-

আপনাদের কত টাকা ফি জমা দিতে হবে সেটিই পেলে বলে দেয়া হবে যেমন উপরের ছবিতে দেখতে পাচ্ছেন। আপনি যখন কোনো এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধ করতে যাবেন।

তখন আপনাকে এমন ভাবে দেখানো হবে তারপর OK বাটনে ক্লিক করে দিবেন তাহলে পেজটি লোড হয়ে নিচের ছবির মত আরও একটি পেজ চলে আসবে।

আপনারা উপরে যে ছবিটি দেখতে পারছেন সেখানে, বিলার নেম দেখাবে, এনআইডি কার্ড নম্বর দেখাবে, অ্যাপ্লিকেশন টাইপ দেখাবে, টাকার পরিমাণ এবং যে নাম্বার থেকে বিল পরিশোধ করছেন সেই মোবাইল নম্বরটি দেখানো হবে।

তারপর এখানে রকেট একাউন্টের পিন নম্বর দিতে হবে। এরপর রকেট আইকনের ওপরে চেপে ধরে রাখতে হবে।

তাহলে ফি পরিশোধ হয়ে যাবে এবং পেজটি লোড হয়ে নিচের ছবির মত দেখাবে।

আপনারা এখন উপরে যে ছবিটি দেখতে পারছেন। পরিশোধিত বিলের যাবতীয় তথ্যাদি দেখানো হচ্ছে। আপনারা চাইলে এই ভাষাটি সেভ করে রেখে দিতে পারেন।

এবং অফিসে আবেদন করার সময় প্রিন্ট করে আবেদন এর সাথে সাবমিট করতে পারেন।

জাতীয় পরিচয় পত্র ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য ভোটার আইডি কার্ড রি ইস্যু কিংবা উত্তোলন এর আবেদনের জন্য। নির্ধারিত ফি উল্লেখিত উপায়ে খুব সহজে পরিশোধ করতে পারবেন।

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আজকের আর্টিকেলে আমরা আপনাকে জানিয়ে দিয়েছে রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধের উপায়।

আপনি যদি একজন কম্পিউটার দোকান ব্যবসায়ী হয়ে থাকেন। এবং ভোটার আইডি কার্ড সংক্রান্ত অনলাইন কাজ করে থাকেন্

সেক্ষেত্রে আপনার জেনে রাখা উচিত রকেট অ্যাপ দিয়ে কিভাবে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধ করতে হয়।

আপনার কাছে যদি রকেট অ্যাপ থাকে। তাহলে আপনারা সহজেই এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধ করতে পারবেন।

আর আপনি যদি নিজের পার্সোনাল এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধ করতে চান। তাহলে এই একই নিয়মে সহজেই এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধ করতে পারবেন।

তো বন্ধুরা আমাদের আজকের লেখা আর্টিকেল রকেট অ্যাপ দিয়ে এনআইডি কার্ড ফি পরিশোধের উপায় এখানেই সমাপ্তি ঘোষণা করা হলো।

আমাদের আর্টিকেলটি আপনার কাছে পছন্দ হয়ে থাকলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আর বিশেষ করে এ বিষয়টি আপনার বন্ধুদের জানাতে, এটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap