ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি)

ইউটিউবের বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট : বর্তমান সময়ে আমরা জানি সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম হচ্ছে ইউটিউব। এখন আপনি ইউটিউব এর বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট এর কথা শুনে প্রশ্ন করতে পারেন যে, ইউটিউব এর সাথে পাল্লা দিয়ে কাজ করবে এমনটা কি সম্ভব।

ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি)
ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি)

তবে এই কথা সত্য যে ইউটিউব এর সাথে পাল্লা দেওয়ার মতো ওয়েবসাইট ইউটিউব নিজেই। তবে বর্তমানে এমন কিছু ওয়েবসাইট সম্পর্কে আপনাকে জানাব যেই সাইট গুলোতে আপনি ইউটিউব এর মতো সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

তাই আপনি যদি ইউটিউব এর বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট সম্পার্কে জানতে চান। তবে নিচে দেওয়া তথ্য গুলো শেষ পর্যন্ত মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

আমরা জানি ইউটিউব এর জনপ্রিয়তা যতই দিন যাচ্ছে ঠিক ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভিডিও পাবলিশারদের জন্য নিয়ম গুলোও সেরকম কঠিন হচ্ছে। যাতে করে অনেক ইউটিউবার এর আশা নিরাশা হয়ে যাচ্ছে। তবে একমাত্র ইউটিউব কিন্তু সব কিছু না। ইউটিউব ছাড়াও আরো অনেক জনপ্রিয় প্লাটফর্ম আছে। যেখানে আপনার ভিডিও কনটেন্ট আপলোড করতে পারবেন।

শুধু এটিই নয় ইউটিউবে যে, ভিডিও গুলো আপনি আপলোড করেছেন। সেগুলোও যদি উক্ত ওয়েবসাইট গুলোতে আপলোড করেন তাহলে আপনার আরো আয় বাড়বে নিঃসন্দেহে।

তো চলুন সময় নষ্ট না করে ইউটিউব এর বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

আরও দেখুনঃ

ইউটিউবের বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

আপনি যদি ইউটিউব এর বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম খুজে থাকেন। তাহলে সঠিক একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেন। কারণ আজ আমি আপনাকে জানাব ইউটিউব বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং সাইট গুলোর সম্পর্কে।

আপনি উক্ত সাইট গুলোতে আপার ক্রিয়েট করা ভিডিও গুলো সহজেই আপলোড করতে পারবেন। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট এর তালিকা গুলো যেমন-

  • Dailymotion
  • Vimeo
  • Metacafe
  • Dtube
  • Veoh
  • Intermet Archive video section
  • IGTV

তো চলুন উক্ত ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম গুলোর বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

1. Daily motion | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

Dailymotion ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্মটি ইউটিউব এর মতো জনপ্রিয় একটি ওয়েবসাইট। উক্ত ওয়েবসাইট এর ইন্টারফেস প্রায় ইউটিউব এর সাথে মিল রয়েছে।

আপনারা এখানে ইন্টারফেস হেসেবে হোম পেজে সকল ট্রেন্ডিং ভিডিও গুলো পেয়ে যাবেন। আর এখানে ক্যাটারি অনুযায়ী ভিডিও গুলো পেয়ে যাবেন।

তাছাড়া সার্চ বক্স ব্যবসার করে আপনার পছন্দ মতো ভিডিও গুলো দেখতে পারবেন। ভিডিও পাবলিশার’রা এখানে সর্বোচ্চ চার জিবি ফাইল আপলোড করতে পারবে। আর সর্বোচ্চ ভিডিও দৈর্ঘ্য হবে 60 মিনিট পর্যন্ত। ইউটিউব এর মতো রেজুলেশন 1080 পিক্সেল আপলোড করা যাবে।

অন্যদিকে ইউটিউব এর মতো এই ওয়েবসাইটে নিজস্ব কিছু প্রাইভেসি পলিসি রয়েছে। তবে এখানে কপিরাইট নিয়ে ইউটিউব এর মতো কোন স্ট্রিক রুল নেই। যার ফলে পাবলিশারদের জন্য একটি অনেক ভাল দিক।

Dailymotion সব থেকে ভাল দিক হচ্ছে এখানে আপনি ভিডিও আপলোড করে এড দেখে ইনকাম করতে পারবে। প্রায় ইউটিউব এর মতো।

Dailymotion ওয়েবসাইটে পেয়ে যাবেন- হাই কোয়ালিটি কনটেন্ট। Dailymotion সাইটে লেআউট ইউটিউব এর মতো। এই জন্য সহজেই সাইটটি ব্যবহার করা যায়। এখানে রুলস অনেক সহজ ও আপনার ভিডিও রিমুভ হওয়ার কোন ভয় থাকে না। আপনি যদি এটি ব্যবহার করতে চান। তাহলে এই লিংকে www.dailymotion.com প্রবেশ করুন।

2. Vimeo | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

ভিডিও হোস্টিং ওয়েবসাইট এর জন্য ভিমিও আরও একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট। উক্ত ওয়েবসাইট সব চেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ আর্টিস্ট ও ছবি নির্মাতাদের জন্য। উক্ত ওয়েবসাইট মূলত মিউজিক, সিনেমাটোগ্রাফি, ডান্স এছাড়া আরো অনেক ক্রিয়েটিভ কাজ করার সুযোগ আছে।

আপনার যদি ক্লাসিক শর্ট ভিডিও, স্নেপশর্ট বা এক্সপেরিমেন্টাল মিউকি ক্লিপ বিষয়ে আগ্রহ থাকে। তবে আপনাকে এই ওয়েবসাইটে Welcome. কারণ এই ওয়েবসাইটে রুলস হিসেবে এখানে আপনি 4k আল্ট্রা HD মানের ভিডিও গুলো দেখতে পারবেন।

Vimeoর সচেয়ে খারাপ দিক হচ্ছে এখানে 500MB এর বেশি ফাইলে আপলোড করা যায় না। আপনি যদি পেমেন্ট দিতে আগ্রহী থাকেন। তাহরে 5 জিবি পর্যন্ত ভিডিও আপলোড করতে পারবেন।

ভিমিও ভিডিও শেয়ারিং কেন ব্যবহার করবেন। কারণ পরিষ্কার ও সুন্দর ইন্টারফেস যেখানে সকল ক্যাটাগরি অনুযায়ী পাওয়া যায়। অনেক ভালো ভিউয়ার এক্সপেরিয়েন্স পাওয়া যায়।

তাই আপনি উক্ত ওয়েবসাইটে ভিডিও শেয়ারিং করতে পারেন। আপনার সুবিধার জন্য সাইটটির লিংক vimeo.com দেওয়া হলো।

3. Metacafe | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

আপনি যদি ইউটিউব এর মতো ভিডিও শেয়ার করতে চান। তাহলে অনেক পুরাতন একটি স্ট্রিমিং ওয়েবসাইট হচ্ছে Metacafe. এই Metacafe ওয়েবসাইট 2003 সাল থেকে ইন্টারনেটে রাজত্ব করে যাচ্ছে। যখন ইউটিউব এর জন্ম হয় নাই। উক্ত ওয়েবসাইট এর মূল ফোকাস 60 সেকেন্ড এর ক্লিপ ভিডিওর দিকে।

Metacafe এ প্রায় 40 মিলিয়ন ভিউয়ার আছে। আপনি যদি প্রফেশনাল ভাবে কমপ্লেক্স ভিডিও তৈরি করতে চান। তাহলে এই ওয়েবসাইট আপনার জন্য না। কারণ যারা রেগুলার শর্ট ভিডিও তৈরি করতে চাই তাদের জন্য ইউটিউব এর বিকল্প হিসেবে এই Metacafe ওয়েবসাইট ভাল হবে।

আরও পড়ুনঃ

4. Dtube | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

Dtube একটি নতুন ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট। উক্ত Dtube ওয়েবসাইটটি ইউটিউব এর বিকল্প হিসেবে অনেক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এই সাইটে আপনি সকল ক্যাটাগরিতে ভিডিও পেয়ে যাবেন।

ট্রেন্ডিং থেকে শুরু করে জনপ্রিয় শীর্ঘ সকল প্রকার ভিডিও। তাছাড়া আপনি এখানে যে, কোন ভিডিও সেভ করে রাখতে পারবেন এতে করে সেই ভিডিও গুলো দেখতে পারবেন। তাই এটি ব্যবহার করতে চাইলে ভিজিট করুন।

5. Veoh | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

ইউটিউব এর মতো Veoh একটি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসইট। এখানে অনেক সহজে আপনার পছন্দের ভিডিও আবিষ্কার করতে পারবেন। অন্য সকল ওয়েবসাইট এর মতো এখানে ভিডিও দৈর্ঘ নিয়ে কোন সমস্যা নেই।

আপনি যদি বড় বড় মুভি বা শো দেখতে পছন্দ করে তাহলে এই সাইটটি আপনার জন্য। এখানে বিভিন্ন মুভি টিভি সিরিজ সহ আরো অনেক কিছু পেয়ে যাবেন। তাই এটি ভিজিট করে দেখতে পারেন।

6. Intermet Archive video section | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

উক্ত ওয়েবসাইট এর নাম শুনেই বুঝতে পারছেন যে ওয়েবসাইট মূলত কিসের ভিত্তিতে তৈরি করা হয়। ইউটিউব এর বিকল্প ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট হিসেবে উক্ত ওয়েবসাইট এর তুলনা হয় না।

আপনি এখানে স্পেসিফিক ভাবে ভিডিও সার্চ করতে পারবেন। বিভিন্ন ফিল্টার সেটিং রয়েছে যেমন- ভাষা, টপিক, সাবজেক্ট। এখানে আপনি ভিডিও আপলোড করে তাদের কন্ট্রিবিউট করতে পারবেন।

7. IGTV | ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট

ইউটিউব এর সাথে পাল্লা দিয়ে এখন নতুন একটি ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম চলে আসছে যার নাম হলো IGTV. এই ওয়েবসাইটে শুধু ভার্টিকেল ভিডিও দেখতে পারবেন।

ওয়েবসাইট এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে করে সহজেই স্মার্ট মোবাইল থেকে ভিডিও স্ট্রিমিং করা যায়। এখন আপনি বুঝতেই পারছেন ইনস্টাগ্রাম এর মতো একটি জনপ্রিয় ওয়েবসাইট এর মালিকানা যেখানে সেখানে তো আর কিছু বলার থাকে না। অবশ্যই এটি ইউটিউব এর বিকল্প হিসেবে কাজ করতে পারবেন।

আরও দেখুনঃ

শেষ কথাঃ

তো আপনি এই পোস্টের মাধ্যমে জেনে নিতে পারলেন ইউটিউবের বিকল্প 7 টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে। আপনি যদি ইউটিউব ছাড়া ভিডিও দেখতে চান। তাহলে উক্ত যে, কোন ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারেন।

ট্যাগঃ ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি) ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি) ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি)

ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি) ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি) ইউটিউবের বিকল্প ৭ টি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট (দেখেনিন এখনি)

তাই আপনি যদি উক্ত পোস্ট পড়ে উপকৃত হোন তাহলে অবশ্যই একটি কমেন্ট করে জানাবেন। আর এই ওয়েবসাইট থেকে প্রতিদিন আর্টিকেল পড়তে চাইলে ভিজিট করুন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap