ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে)

ডোমেইন নেম কেনা-বেচা করে আয় : আপনি যদি অনলাইন থেকে টাকা আয় করার উপায় খুজে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য অনেক পথ খোলা রয়েছে। কারণ অনলাইনে কাজ করার মতো অনেক প্লাটফর্ম আছে।

ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে)
ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে)

তাই আজ আমি আপনাকে জানাতে যাচ্ছি ঘরে বসে অনলাইন আয় করার মাধ্যম ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয়। আপনি যদি ডোমেইন নেম কেনা বেচার ব্যবসা শুরু করতে চান। তাহলে প্রচুর পরিমাণের লাভ করতে পারবেন।

কিন্তু আমাদের মধ্যে এমন অনেক লোক আছে যারা উক্ত পদ্ধতিতে আয় করার বিষয়ে অজানা। আপনি যদি ঘরে বসে আয় করতে চান। তাহলে আপনার জন্য অনেক জনপ্রিয় একটি কাজ হবে ডোমেইন কেনা বেচা করে আয়।

তাই এই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে চাইলে নিচে দেওয়া তথ্য গুলো শেষ পর্যন্ত মনযোগ দিয়ে পড়ুন।

ডোমেইন নেম কেনা বেচার জন্য আপনার অবশ্যই ডোমেইন সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। তাছাড়া কোথায় থেকে ডোমেইন নেম ক্রয় করবেন আবার কোথায় বিক্রি করবেন ইত্যাদি সম্পর্কে। আর আপনি এই সকল তথ্য এই পোস্টেই পেয়ে যাবেন।

আমরা আশা করি আমাদের পোস্ট অনসুণ করে আপনি সহজেই ডোমেইন কেনা বেচার ব্যবসাটি পরিচালনা করতে পারবেন। তো চলুন সময় নষ্ট না করে বিস্তারিত আলোচনায় যাওয়া যাক।

ডোমেইন নেম কি ?

আপনি যদি ডোমেইন নেম কেনা বেচা করতে চান। তাহলে আপনাকে প্রথমে ডোমেইন নেম কি এই বিষয়ে জানতে হবে। ডোমেইন নেম হলো একটি ওয়েবসাইট এর ঠিকানা। সাধারণত ওয়েবসাইট গুলো বিভিন্ন সার্ভার কম্পিউটার এ সেভ করা থাকে।

উক্ত কম্পিউটার গুলোতে পৃথিবীর যে কেউ প্রবেশ করতে পারে। কিন্তু সেখানে প্রবেশ করতে চাইলে নির্দিষ্ট কিছু কোড টাইপ করার দরকার হয় যেমন- 421.25.48.5 এরকম কোড কে বলা হয় আইপি এড্রেস

এখন সমস্যা হলো বিশ্বের কোটি কোটি ওয়েবসাইট রয়েছে এতো গুলো কোড কিভাবে মনে রাখবে মানুষ। তার জন্য সহজ সমাধান তৈরি করা হয় ডোমেইন নেম।

মানে উক্ত কোড গুলোর পরিবর্তানে jit.com.bd এরকম ডোমেইন নামে রাখা হয়। .com, .net, .org হচ্ছে ডোমেইন এক্সটেনশন আর bd, in হচ্ছে কান্ট্রিকোড। উক্ত ডোমেইন নেম গুলোতে শুধু অক্ষর, নাম্বার ও হাইফেন চিহ্ন ব্যবহার করা যায়।

আমি আশা করি যে, ডোমেইন আসলে কি এই বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা গ্রহণ করতে পারছেন। যদি না বুঝে থাকেন তাহলে উক্ত আলোচনা আরো একবার পড়ে নিন।

আরও পড়ুনঃ

ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয়

অনেক লোক আছে যারা ব্যক্তি গত, কোম্পানি, প্রতিষ্ঠানের জন্য ওয়েবসাইট বানাতে চাইলে অবশ্যই ডোমেইন এর প্রয়োজন হয় মানে ডোমেইন কিনতে হয়।

ডোমেইন নেম ক্রয় করার জন্য বর্তমান সময়ে অসংখ্য ওয়েবসাইট/ কোম্পানি রয়েছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে কোম্পানি ডোমেইন ক্রয় করবে ডোমেইন কেনা বেচার ওয়েবসাইট থেকে তবে আমরা কিভাবে আয় করব।

আপনার যদি এরকম প্রশ্ন হয়ে থাকে। তাহলে কয়েকটি বিষয়ে আলোচনা করলে আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন। আমরা জানি কয়েক বছর পূর্বে facebook.com ডোমেইন টি ক্রয় করেছে। তবে ডোমেইনটি কোন ডোমেইন কেনা বেচার ওয়েবসাইট এর অধিনে ছিল না। ডোমেইন ছিল একটি ছেলের কাছে যে কিনা এই ডোমেইন আগেই কিনে রেখেছিল।

পরবর্তীতে ফেসবুক যখন এটি কেনার ইচ্ছা করে তখন সেই ছেলেটি 8.5 মিলিয়ন ডলার দিয়ে বিক্রি করে দেন। তাছাড়া বর্তমান সময়ে জনপ্রিয় মোবাইল নির্মাতা কোম্পানি যেমন- শাওমি তাদের mi.com ওয়েবসাইট একই ভাবে 3.6 মিলিয়ন ডলার এর বিনিময়ে কিনে নেন।

এখন চিন্তা করে দেখুন আপনি যদি শাওমি কোম্পানি তৈরি হওয়ার আগে mi.com নামে ডোমেইন কিনে রেখে দিতেন তাহলে কি অবস্থা হতো। কি পরিমাণের টাকা আয় করতে পারতেন।

তাই এমন সময় আসবে আপনি যদি বাছাই করে এমন কিছু জনপ্রিয় ডোমেইন গুলো কিনে রেখে দিতে পারেন। তাহলে মানুষের বিভিন্ন কোম্পানি এবং ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে খূজবে ডোমেইন ক্রয় করার জন্য। আপনি অল্প দামে ডোমেইন কিনে হিউজ পরিমাণের বেশি টাকায় সেই ডোমেইন টি বিক্রি করতে পারবনে।

তো এখন চলুন মূল আলোচনায় ফিরে যাওয়া যাক। প্রফেশনাল ভাবে ডোমেইন নেম কেনা বেচা করার বিষয়ে। প্রথমে বলে রাখি উক্ত কাজকে সাধারণত ডোমেইন পাকিং বা ডোমেইন ফ্লিপিং বলা হয়ে থাকে।

বর্তমান সময়ে ডোমেইন কেনার ওয়েবসাইট গুলো তাদের ওয়েবসাইট থেকে ডোমেইন ক্রয় করার পরে, সেটি আবার অন্যদের কাছে বিক্রি করার সুবিধা প্রদান করে থাকে। সে রকম কিছু ওয়েসাইট হলো-

উপরিউক্ত ওয়েবসাইট থেকে আপনি প্রথম দিকে সাত থেকে দশ ডলার দিয়ে এক বছরের জন্য ডোমেইন কিনে নিতে পারবেন। এখন এই ডোমেইন কে আপনি আপনার ইচ্ছা মতো দাম দিয়ে তাদের ওয়েবসাইটেই বিক্রি করতে পারবেন। এবং ডোমেইন বিক্রি হওয়ার পরে ওয়েসবাইট এ সরাসরি টাকা জমা হয়ে যাবে।

এছাড়া আপনি অন্যান্য ডোমেইন কোম্পানি থেকে ডোমেইন ক্রয় করে নিয়ে বিক্রি করার জন্য আপনার নিজস্ব ওয়েবসাইটে ডোমেইন বিক্রির নোটিশ দিতে পারেন।

যেমন আপনি কোন কোম্পানি থেকে একটি ডোমেইন নেম 10 ডলার দিয়ে কিনেছেন। এখন আপনি সেটি 100 ডলার দামে বিক্রি করতে চান। যদি উক্ত ডোমেইন কারো পছন্দ হয় তাহলে অবশ্যই ক্রয় করবে। তাহলে বুঝতেই পারছেন একটি ডোমেইন বিক্রি করার ফলে আপনে 90% লাভ করতে পারবেন।

ডোমেইন নেম কেনা বেচার টিপস

আপনি যে কোন ব্যবসায় সফলতা অর্জন করতে চাইলে অবশ্যই কিছু টিপস এন্ড ট্রিক্স অনুসরণ করতে হবে। সেই ভাবে ডোমেইন নেম কেনা বেচা করার জন্য কিছু নিয়ম অনুসরণ করতে হবেই। তো চলুন এই বিষয়ে কিছু টিপস সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

আরও পড়ুনঃ

সঠিক টার্গেট নির্ধারণ করা-

আপনি যদি ডোমেইন নেম বিক্রির ব্যবসা করতে চান। তাহলে আপনাকে অবশ্যই সেই লোকদের টার্গেট করতে হবে যারা ওয়েবসাইট তৈরি করতে আগ্রহী থাকে। এছাড়া আপনার ক্রয় করা ডোমেইন গুলো কি ভিত্তিক হবে। আপনি টার্কেট নিতে পারেন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম থেকে শুরু করে ই-কমার্স, কোম্পানি, কল-কারখানা মানুষের নাম ইত্যাদি নিয়ে।

এখন এই জন্য অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা করতে হবে মানে ডোমেইন এর নাম নির্ধারণ করতে হবে। অনেক লোক আছে যারা পছন্দ হওয়া স্বত্ত্বেও দাম বেশি হলে সে অন্য কোন ডোমেইন কিনতে পারে। তাই এমন কিছু টার্গেট করুন যারা আপনার ডোমেইন কিনতে বাধ্য থাকবে।

এক্সপায়ার্ড ডোমেইন ক্রয় করুন-

বর্তমান সময়ে অনেক ওয়েবসাইট এর মালিক যারা ডোমেইন এর মেয়াদ শেয় হয়ে যায় কিন্তু কাজ না করার ফলে সেগুলো আর রিনিউ করে না অনেক সময় মনে থাকে না। সেই সকল ডোমেইন কিনে নিতে পারলে আপনি অনেক বেশি লাভবান হবেন।

কারণ উক্ত এক্সপায়ার্ড ডোমেইন গুলোতে আপনি অনেক ফিচার পেয়ে যাবেন। যেমন- ডোমেইন অথরিটি। একটি পুরাতন ডোমেইনে আগে থেকে যে অথরিটি থাকে সেগুলো দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করলে অনেক ভালো সফলতা পাওয়া যায়।

তাই আপনি এক্সপাওয়ার্ড ডোমেইন কিনে নিয়ে সেই ভাবে সেগুলো বিক্রির জন্য প্রস্তুত করবেন যাতে করে গ্রাহক আগ্রহের সাথে ডোমেইন গুলো ক্রয় করে।

বিভিন্ন মার্কেট রিসার্চ করুন-

আপনি যদি ডোমেইন নেম কেনা বেচা করতে চান। তাহরে আপনাকে অবশ্যই নিয়মিত বিভিন্ন মার্কেট রিসার্চ করতে হবে। জানতে হবে মানুষ কোন প্রকার ডোমেইন গুলো বেশি কিনছে সেই বিষয়ে নজর রাখতে হবে।

সঠিক কিওয়ার্ড ডোমেইন সিলেক্ট করুন-

আপনি যদি ডোমেইন কেনা বেচা করতে চান। তাহলে আপনার মূল টার্গেট থাকবে আপনার সঠিক কিওয়ার্ড সিলেক্ট করা। যেমন একজন গাড়ী বিক্রির ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাইলে গাড়ী সম্পর্কিত কিওয়ার্ড বেশি প্রাধান্য দিতে হবে। তাছাড়া সঠিক কিওয়ার্ড এসইও র‌্যাংক এর জন্য অত্যন্ত জরুরী।

আপনি যদি সঠিক কিওয়ার্ড এর ডোমেইন গুলো কিনে রাখতে পারেন। তাহলে দ্রুত সেগুলো সেল করতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আজ আমাদের এই পোস্টের মাধ্যমে জেনে নিতে পারলেন ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করার সঠিক গাইডলাইন। আপনি যদি সত্যিই ডোমেইন ক্রয় করে বিক্রি করার ব্যবসা করতে চান। তাহলে অনেক পরিমাণের লাভ করতে পারবেন। যার প্রমাণ আপনি উক্ত আলোচনাতে জেনে নিয়েছে।

ট্যাগঃ ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে) ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে) ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে)

ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে) ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে) ডোমেইন নেম কেনা বেচা করে আয় করুন (ঘরে বসে)

আমাদের দেওয়া আর্টিকেল আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই একটি কমেন্ট করে জানাবেন। আরে এই ওয়েবসাইট থেকে দৈনিক আর্টিকেল পড়তে চাইলে ভিজিট করুন ধন্যবদা।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap