স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস | অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড

অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড : আপনারা বাংলাদেশ থেকে ভোটার হওয়ার পর স্মার্ট কার্ড কি পেয়েছেন। যদি না পেয়ে থাকেন।

তবে, অনলাইনে স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস দেখেছেন। আপনার স্মার্ট কার্ড তৈরি হয়েছে কিনা।

আপনারা হয়তো স্মার্ট কার্ড চেক করে, দেখেননি কারণ অনেকেই রয়েছে, তারা জানে না। স্মার্ট কার্ড চেক করার নিয়ম, কি কি উপায়ে স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস দেখা যায়।

স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস | অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড
স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস | অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড

এছাড়া অনলাইনে অনেকে জানার চেষ্টা করে, যে স্মার্ট কার্ড কিভাবে পাবো। এবং অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার উপায় কি।

তো বন্ধুরা আপনারা যদি এই বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে চান, তাহলে সঠিক একটি প্রবেশ করেছেন।

কারণ আজ আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে, স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস এবং অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানিয়ে দেব।

তো বন্ধুরা আপনারা যারা অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করতে আগ্রহী। তারা আমাদের আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

স্মার্ট কার্ড চেক করার নিয়ম কি ?

অনলাইনের মাধ্যমে স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস জানা অনেক সহজ কাজ। আপনারা নিজের ঘরে বসে স্মার্ট কার্ড চেক করে দেখতে পারবেন।

কোন ভোটার এর স্মার্ট কার্ড তৈরি হয়েছে কিনা। তা জানার জন্য আপনারা তিনটি উপায় এখানে জেনে নিতে পারবেন।

এখন কথা হচ্ছে, স্মার্ট কার্ড চেক করে কি তথ্য পাওয়া যায়। যেমন- স্মার্ট কার্ড চেক করে বক্স নাম্বার এবং কম্পার্টমেন্ট নাম্বার জানা যায়।

একটি স্মার্ট কার্ডের বক্সে ১০ টি কম্পার্টমেন্ট রয়েছে। কত নম্বর বক্সের কত নম্বর কম্পার্টমেন্টে আপনার স্মার্ট কার্ড রয়েছে সেটি জানা যাবে।

এছাড়া বক্স নাম্বার এবং কম্পার্টমেন্ট নাম্বার জানতে পারলেই নিশ্চিত হওয়া যাবে যে, স্মার্ট কার্ড আপনার নামে তৈরি হয়েছে কিনা।

স্মার্ট কার্ড চেক করার ০৩ টি নিয়ম জানতে, নিচে দেওয়া তথ্য গুলো ধাপে ধাপে অনুসরণ করুন।

যেমন-

১ নম্বরে : যারা নতুন ভোটার হয়েছেন এবং যাদের কাছে ভোটার নেমন্তন স্লিপ রয়েছে। তাদের স্মার্ট কার্ড চেক করতে হলে, মোবাইল নাম্বার থেকে একটি মেসেজ পাঠাতে হবে। মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করতে হবে-

এন আই ডি < স্পেস> ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নম্বর < স্পেস> জন্ম তারিখ। তারপর এটি পাঠিয়ে দিতে হবে 105 নম্বরে।

উদাহরণ স্বরূপঃ NID 1234567810 01-01-2000 ‍Send to it 105 Number.

আপনারা উক্ত নিয়মে মোবাইল এসএমএস করার পর ফিরতি মেসেজে আপনার স্মার্ট কার্ড এর বক্স নাম্বার এবং কম্পার্টমেন্ট নাম্বার প্রেরণ করবে।

আর আপনার যদি স্মার্ট কার্ড তৈরি না হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে মেসেজে বলে দেবে, আপনার স্মার্ট কার্ড টি এখনো তৈরি করা হয়নি।

যাদের কাছে ১০ ডিজিট বা ১৭ ডিজিট এর জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার রয়েছে। তাদের ক্ষেত্রে স্মার্ট কার্ড চেক করতে হলে, মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করতে হবে।

যেমন-

SC < স্পেস> NID < স্পেস> 10 ডিজিট বা 17 ডিজিট এন আই ডি নাম্বার। তারপর মেসেজটি পাঠিয়ে দিতে হবে ১০৫ নম্বরে।

উদাহরণ স্বরূপঃ  SC NID 1234567810 / 12345678910111217 Send to it 105 Number.

আপনারা এরকম ভাবে মেসেজ পেরন করার পর ভিত্তি মেসেজে আপনার স্মার্ট কার্ড এর বক্স নাম্বার এবং কম্পার্টমেন্ট নাম্বার প্রেরণ করা হবে।

আপনার যদি স্মার্ট কার্ড তৈরি না হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে মেসেজে আপনাকে বলে দেয়া হবে, কোন প্রকার স্মার্ট কার্ড এখনো তৈরি হয়নি।

২ নম্বরে : জাতীয় পরিচয় পত্র / ভোটার নিবন্ধন স্লিপ নম্বর নিয়ে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে জানাতে হবে। আপনার স্মার্ট কার্ড চেক করে দেখতে যে, স্মার্ট কার্ড এসেছে কিনা।

আপনি সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে না গিয়ে যদি অন্য কোন উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে স্মার্ট কার্ড চেক করে দেওয়ার কথা বলেন।

তবে স্মার্ট কার্ড চেক করে দিতে পারবে যদি তারা সদয় হয়ে, স্মার্ট কার্ড চেক করে দেয়। তাহলে ভালো, আর না দিলে। আপনার নির্দিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে, অবশ্যই স্মার্ট কার্ড চেক করে দেখতে হবে।

৩ নম্বরে : বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে স্মার্ট কার্ড চেক করা যায়। অনলাইনের মাধ্যমে স্মার্ট কার্ড চেক করার নিয়ম সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত তথ্য আমাদের এই ওয়েবসাইটে আগেই জানিয়ে দিয়েছি।

আপনার চাইলে সেই আর্টিকেলটি অনুসরণ করে, সহজেই অনলাইনে জাতীয় পরিচয় পত্র স্মার্ট কার্ড চেক করে নিতে পারবেন।

কিভাবে স্মার্ট কার্ড পাবো ?

আপনার যদি কোনভাবে অনলাইনের মাধ্যমে স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করতে না পারেন সে ক্ষেত্রে স্মার্ট কার্ড কিভাবে পাবেন যদি আপনার স্মার্ট কার্ড তৈরি হয়ে থাকে।

তাহলে আপনারা সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে পেয়ে যাবেন। কারণ নির্বাচন অফিসে স্মার্ট কার্ড চলে, আসলে তারা সঠিক সময়ে বিতরণ করে দেয়।

অফিস কর্তৃপক্ষ এলাকার বিভিন্ন জায়গায় ক্যাম্পেইন করে, গণহারে স্মার্ট কার্ড বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন। গণহারে স্মার্ট কার্ড বিতরণ শেষ হলে, স্মার্ট কার্ড গুলো অফিসে থেকে বিতরণ করা হয়।

তাই জাতীয় পরিচয় পত্র স্মার্ট কার্ড বিতরণ কালে যদি স্মার্ট কার্ড আপনি গ্রহণ করতে না পারেন। সে ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করে নিতে পারবেন।

নতুন স্মার্ট কার্ড সংগ্রহের জন্য অবশ্যই পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড জমা দিয়ে দিতে হবে।

অনলাইনে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড ?

অনেকেই প্রশ্ন করে থাকে যে আমার স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড কিভাবে করব। কিংবা স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করার উপায় কি? কিন্তু এটি সম্পূর্ণ একটি ভুল ধারণা তার কারণ অনলাইন থেকে স্মার্ট কার্ড কখনোই ডাউনলোড করা সম্ভব হয় না।

নতুন ভোটারদের সাময়িক জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করা সম্ভব হয়। সেটি রঙিন পিডিএফ ফর্ম থাকে্ অনলাইন থেকে সাময়িক জাতীয় পরিচয় পত্র কার্ড প্রিন্ট করে বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা যায়।

তো স্মার্ট কার্ড তো প্রিন্ট করে লেমিনেটিং করার বস্ত্র নয়। কারণ স্মার্ট কার্ড এর ওপর মেশিন রিডিবল একটি চিপ বসানো থাকে।

যেখানে একজন ভোটার এর প্রায় ২৮ প্রকার তথ্য সংরক্ষিত রয়েছে সুতরাং যারা বলেন স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করতে চায়। তাদেরকে বলব স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করা তো যায় না। বরং এটি একটি ভুল প্রশ্ন।

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আপনার যারা স্মার্ট কার্ড চেক করতে চান বা ডাউনলোড করতে চান? সে বিষয়ে, আপনারা উপরের আলোচনাতে বিস্তারিত তথ্য পেয়ে গেছেন।

তো আপনারা চাইলে অনলাইনের মাধ্যমে স্মার্ট কার্ড চেক স্ট্যাটাস সম্পর্কে জেনে নিতে পারবেন। কিন্তু আপনারা কোন ভাবে, অনলাইন থেকে স্মার্ট কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন না।

স্মার্ট কার্ড হাতে পেতে চাইলে আপনাকে সরাসরি উপজেলা নির্বাচন কমিশনে যোগাযোগ করতে হবে।

তো বন্ধুরা আমাদের আর্টিকেলটি আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

আর আমাদের ওয়েবসাইট থেকে নিয়মিত জাতীয় পরিচয় পত্র সংক্রান্ত নতুন নতুন ভিজিট করুন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap