ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায়

ড্রপশিপিং বিজনেস কি : বর্তমান সময়ে যারা অনলাইন নিয়ে ঘাটাঘাটি করেন, তারা অনেক সময় শুনে থাকবেন যে ড্রপশিপিং বিজনেস বা ব্যবসা সম্পর্কে।

লোকেরা এ বিষয়ে জানার পর এ ব্যবসাটি করার জন্য আগ্রহী হয় কিন্তু অনেক লোক রয়েছে যারা এ বিষয়ে না জানতে পেরে চিন্তিত। আজ আমাদের আর্টিকেলে আপনাকে জানাবো ড্রপসিপিং বিজনেস কি ব্যবসা করে আয় করার সহজ উপায় সম্পর্কে।

আপনি যদি ড্রপ শিপিং সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান তাহলে আমাদের দেওয়া আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায়
ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায়

ড্রপশিপিং বিজনেস কি ?

ড্রপিং এর ধারণা বোঝা অনেক সহজ ব্যবসা করেন তিনি সাপ্লাই এর কাছ থেকে প্রোডাক্ট নিয়ে সরাসরি কাস্টমারের কাছে পৌঁছে দেন। এ ব্যবসাটি মূলত একটি খুচরা ব্যবসার মাধ্যমে যিনি করেন তিনি ভাল মানের লাভ করতে পারেন।

আপনাকে সহজ করে বলতে গেলে মনে করুন আপনি কোন একটি পণ্য বা প্রোডাক্ট নিয়ে ব্যবসা শুরু করেছেন। এক্ষেত্রে আপনাকে সরাসরি সরবরাহ করা বা জমা করা হবে না। বরং আপনি কাস্টমার কাছ থেকে অর্ডার পাওয়ার পর সেই, পণ্যগুলো সরবরাহকারী সাপ্লায়ার থেকে প্রোডাক্ট সরাসরি কাস্টমারের কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন।

জেনি সাপ্লায়ার অর্থাৎ ড্রপ শিপিং করছেন তাকে কখনো সরাসরি কোন প্রোডাক্টের ব্যবস্থাপনা নিয়ে চিন্তা করতে হয় না জেনে ড্রপসিপিং ব্যবসা করেন তিনি হলেন সেলার।

কিন্তু কাজ সহজ হলেও প্রতি সেল এর ক্ষেত্রে লাভ করেন সেলার। এর কারণ শাপলার থেকে যে দামে প্রোডাক্ট কেনা হয় কাস্টমারের কাছে তার চেয়ে বেশি দামে প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করতে পারেন একজন সেলার।

আশা করি আপনি উক্ত আলোচনা থেকে ড্রপ শিপিং বিজনেস মূলত কি সে বিষয়ে ধারনা নিতে পেরেছেন। বস্তা কোন ত্রুটি মনে হলে উপরের আলোচনা করেনি তাহলে সঠিক ধারণা পেয়ে যাবে আসলে ড্রপ শিপিং ব্যবসা আসলে কি।

আরো পড়ুন-

ড্রপশিপিং এর সুবিধা

বর্তমান সময়ে ড্রপসিপিং ব্যবসার অনেক সুবিধা রয়েছে। লোকেরা ব্যবসা করার জন্য খরচ বাঁচাতে ড্রপ শিপিং কে বেছে নিয়ে থাকে এছাড়া অনেক ক্ষেত্রে জমা থাকা প্রোডাক্ট খালি করতে ব্যবহার করা হয় ড্রপ শিপিং কে।

তো চলুন ড্রপ শিপিং এর বিস্তারিত তথ্য মানে আরো সুবিধা সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

প্রোডাক্ট স্টোর করতে হয়না

ড্রপ শিপিং এর সব থেকে বড় সুবিধা হচ্ছে একজন সেলারের, কোন প্রোডাক্ট স্টোর করে রাখতে হয় না মানে প্রোডাক্ট সেল করার জন্য কোন নির্দিষ্ট স্থানের প্রয়োজন হয় না।

এর মাধ্যমে একাধিক সুবিধা পাওয়া যায় প্রথমত জমা রাখার ফলে ঘটিত সম্ভাব্য ক্ষতিসমূহ এড়ানো যায়। এবার প্রোডাক্ট জমা রাখার যে অর্থ খরচ হতে পারে তা মার্কেটিং বা অন্যান্য কাজে লাগানো সম্ভব।

শিপিং করতে হয়না

ড্রপ শিপিং করার ক্ষেত্রে প্রোডাক্ট শিপিং করা নিয়ে চিন্তা করতে হয় না একজন সেলারকে। বেশিরভাগ সময় একটি নির্দিষ্ট ফি নেওয়া সাপ্লায়ার যার বিনিময়ে শিপিং তারা সম্পন্ন করে থাকে।

নিজের শিপিং করা থেকে, উক্ত শিপিং ফি এর মাধ্যমে শিপিং করানো অধিক লাভজনক।

আরো পড়ুন-

ক্ষতির সম্ভাবনা কম

ড্রপ শিপিং ব্যবসা করতে গেলে এখানে ক্ষতির সম্ভাবনা অনেক কম থাকে। যেহেতু ড্রপ শিপিং ব্যবসায় কোন আইটেম অর্ডার করে জমা রাখা হয়না তাই অতিরিক্ত বা কম আইটেমের থাকার ফলে সাধিত ক্ষতির সম্ভাবনা কম।

তার জন্য কাস্টমারের যথাযথ ডিমান্ড অনুযায়ী প্রোডাক্ট সাপ্লাই করা হয়। এতে করে অতিরিক্ত বা কম আইটেম থাকার ফলে সাধিত, ক্ষতির সম্ভাবনা অনেক কম পরিমাণে থাকে। এছাড়া আপনি সবসময় একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ পণ্য বিক্রি করার সুযোগ পাবেন।

ঝুঁকি কম

ড্রপশিপিং বিজনেস শুরু করতে লক্ষ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করা প্রয়োজন পড়ে না। প্রডাক্ট সাপ্লাইয়ের কাজ থেকে আর সেলার শুধুমাত্র কাস্টমার এর ওয়ার্ড এর প্রোডাক্ট সরবরাহ কাজ করেন। মানে আর্থিক ক্ষতির বড় কোনো ঝুঁকি থাকে না।

ড্রপশিপিং এর অসুবিধা

কাস্টমারের বা সেলার উভইয়ের জন্য বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ড্রপ শিপিং এর সুবিধা রয়েছে। কিন্তু ড্রপ শিপিং বিজনেস কিছু নেতিবাচক দিক আছে। প্রথমত প্রডাক্ট শিপিং এর সম্পূর্ণ কাজ সাপ্লায়ার করে থাকে তাই একজন সেলারের এই বিষয়ে কোন ভূমিকা থাকে না। তার জন্য সাপ্লায়ার দায়ভার পড়ে যায়।

বিক্রিত পণ্য কিন্তু একজন সেলারের নিজের পরখ করে দেখার সুযোগ থাকেনা। তার জন্য প্রোডাক্টের কোয়ালিটি সম্পর্কে একজন সেলারের জানা থাকা প্রায় অসম্ভব একটি কাজ। এমনকি অজান্তে lowquality আইটেম সেল করার, মাধ্যমে বড় সমস্যায় পড়তে পারেন একজন সেলার।

এছাড়া একজন সাপ্লাই এর কোন প্রোডাক্টের স্টক শেষ হয়ে গেলে সে ক্ষেত্রে একজন সেলার সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকে। ড্রপ শিপিং যেহেতু প্রতিটি প্রোডাক্ট আলাদাভাবে কেন হয় তাই খুচরা দামে প্রোডাক্ট এর দাম বেশি থাকে। এজন্য লাভের সুযোগ থাকলেও ঝুঁকে সম্ভাবনা কম থাকে।

দুনিয়ার সবথেকে বড় সমস্যা ওপর নিয়ন্ত্রণ না থাকায় মাধ্যমে কাস্টমার অসন্তোষ এর মত ঘটনা ঘটতে পারে। তার জন্য বিশ্বাস করা যায় শুধুমাত্র থেকে প্রোডাক্ট নেওয়া উচিত।

ড্রপশিপিং কিভাবে কাজ করে ?

কিভাবে কাজ করে, এ বিষয়ে জানার আগে আসলে কিভাবে কাজ করে এটি আসলে আবশ্যক।  না করে সরাসরি প্রক্রিয়াজাতকারী উৎপাদনকারী থেকে কাস্টোমারের কাছে পৌঁছানোর ব্যবসাগুলো করা হয় তাকে বলা হয়।

মনে করুন আপনি ড্রপশিপিং ব্যবসা করতে আগ্রহী তার জন্য আপনাকে অনুসরণ করতে হবে যেমন-

  • সাপ্লায়ার খুঁজে বের করতে হবে।
  • যে সকল প্রোডাক্ট সেল করবেন তা নির্ধারণ করতে হবে।
  • খুচরা দাম এর ব্যানারে পণ্যগুলো অনলাইন প্রদর্শন করতে হবে।
  • আপনি চাইলে আপনার একটি ওয়েবসাইট ফেসবুক পেজের মাধ্যমে পণ্য প্রদর্শন করতে পারবেন।
  • ড্রপ শিপিং ব্যবসা বেশি বেশি প্রচার করুন।
  • তারপর কাস্টমার এর কাছ থেকে গ্রহণ করতে পারবেন।
  • সাপ্লায়ারকে কাস্টমারের পর্দা সম্পর্কে অবগত করতে হবে।
  • অর্ডার শিপিং প্রক্রিয়া শুরু করতে নির্দেশ প্রদান করতে হবে।
  • কাস্টমার প্রোডাক্ট হাতে পেয়েছি কিনা তা নিশ্চিত করতে হবে।
  • কাস্টমারের কোন প্রকার জিজ্ঞাসা সমস্যা থাকলে সেটি বিবেচনা করতে হবে।

আপনি যদি এই সকল কাজ একযোগে করতে পারেন তাহলে আপনি ড্রপ শিপিং ব্যবসায় টিকে থাকতে পারবেন।

আরো পড়ুন-

ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায়

আপনি যদি ড্রপ শিপিং ব্যবসা করে আয় করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনারা অনেক উপায় পেয়ে যাবেন যেমন আমরা উপরে কিছু, দিকনির্দেশনা আপনাকে জানিয়েছি এখন আমরা পুরোপুরি ভাবে, আপনাকে জানাব। কিভাবে ডক্সেপিন ব্যবসা করে ইনকাম করতে পারবেন।

আপনি যদি সত্যিই ড্রপশিপিং ব্যবসা করে ইনকাম করতে চান? তাহলে আমরা আপনাকে পরামর্শ দিব আপনি বিভিন্ন বড় বড় কোম্পানির কাছ থেকে বিভিন্ন প্রোডাক্ট অল্প দামে ক্রয় করে, নিজের ফেসবুক পেজে সেই পণ্য বিক্রি করার জন্য প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যান।

বর্তমান সময়ে লোকেরা, ফেসবুকের মধ্যে বেশি আসক্ত থাকে তাই আপনি যদি আপনার ড্রপ শিপিং বিজনেস এর প্রোডাক্ট গুলো দ্রুত বিক্রি করতে চান তাহলে ফেসবুক পেজটি আপনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

ব্যবসা করার জন্য আপনি ফেসবুক পেজে পাশাপাশি আপনার নিজের নামে, একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে। আপনার ব্যবসার নামে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে, সেখানে আপনার প্রোডাক্ট গুলো ছবি আকারে প্রস্তুত করে পাবলিশ করতে পারেন। এতে করে আপনি দ্রুত ভাবে আপনার প্রোডাক্ট গুলো বিক্রি করতে পারবেন।

আপনি যদি ড্রপ শিপিং ব্যবসা করতে চান তাহলে, যেকোনো একটি মাধ্যম অনুসরণ করে আপনারা ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারেন আর এই ব্যবসাটি অনলাইন ভিত্তিক করলে আপনি বেশি টাকা উপার্জন করা আশা রাখতে পারেন।

আরো পড়ুন-

শেষ কথাঃ

আমাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনারা জানতে পারলেন ড্রপ শিপিং ব্যবসা কি, এবং কিভাবে ড্রপ শিপিং ব্যবসা করে আয় করা যায়। আপনি যদি ব্যবসা করতে আগ্রহী থাকেন। তাহলে অন্যান্য ব্যবসা করার চিন্তা মাথা থেকে মুছে দিয়ে, আজ থেকেই ড্রপ শিপিং ব্যবসা শুরু করে দিন এতে লাভ হওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে।

আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন বিশেষ করে এই বিষয়টি আপনার বন্ধুদের জানাতে একটি শেয়ার করে দিবেন।

ট্যাগঃ ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায় ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায় ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায়

ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায় ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায় ড্রপশিপিং বিজনেস কি ? ড্রপশিপিং ব্যবসা করে আয় করার উপায়

বিশেষ করে আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি যদি নিয়মিত আর্টিকেল পড়তে চান তাহলে অবশ্যই ভিজিট করবেন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap