ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন?

বর্তমান সময়ে আমরা যারা অনলাইনে বর্তমান সময়ে আমরা দেখে থাকি অফিস-আদালতের যে সকল কম্পিউটার দিয়ে কাজ করা হয় সেগুলো বেশিরভাগ ডেস্কটপ থাকে। আর যারা ব্যক্তিগতভাবে কাজ করার জন্য, কম্পিউটার ব্যবহার করে তারা ল্যাপটপ কম্পিউটার বেশি অংশে ব্যবহার করে থাকে।

ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন?
ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন?

তাই আপনি যদি কম্পিউটার ব্যবহার করতে চান তাহলে কোন কম্পিউটার কিনবেন, ডেস্কটপ ল্যাপটপ কম্পিউটার। বর্তমান সময়ে যারা সৌখিনভাবে কম্পিউটার ব্যবহার করতে চায় তারা সবসময় ল্যাপটপ ব্যবহার করে।

আপনিও যদি অন্য লোকদের মতো বেশি সুবিধা ভোগ করতে চান সে ক্ষেত্রে আপনার জন্য আমরা সাজেস্ট করব ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনুন। বর্তমান সময়ে যারা কম্পিউটার দিয়ে কাজ করতে চাই।

সেজন্য অবশ্যই তাদেরকে একটি কম্পিউটার বাছাই করে নিতে হয় কিন্তু নতুন অবস্থায়, অনেক লোক আছে যারা সঠিক কম্পিউটার বাছাই করতে পারেনা।

তাই আজ আমাদের আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনাদের জানাতে চাচ্ছি ডেস্কটপ কম্পিউটার নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার? কোনটা কিনবেন? আপনি যদি এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য পেতে চান তাহলে আমাদের দেওয়া আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত অনুসরণ করুন।

বর্তমান সময়ে যারা নিজের ঘরে বসে অফিশিয়াল কাজ করে থাকে সেক্ষেত্রে তারা ডেস্কটপ কম্পিউটার ব্যবহার করে তারা এটিকে লাভজনক হিসেবে বিবেচনা করে।

একটি ল্যাপটপ ব্যাবহার করা জনপ্রিয়তা দিন দিন বেরাজার ব্যাপারটা কিন্তু আমরা সকলেই জানি। তার কারণ একটি ল্যাপটপ ব্যবহার পরে যা যা সুবিধা আছে সেগুলো অবশ্যই চোখ দিয়েছে।

তার জন্য আপনি যদি নিজের ঘর বা অফিসের কাজ করার জন্য কোনটা ভালো হবে সে ব্যাপারে ভাবছেন- বেস্ট অফ কম্পিউটার নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার। তাহলে এই আর্টিকেলটি শুধুমাত্র আপনার জন্য

ডেস্কটপ কম্পিউটার ল্যাপটপ কম্পিউটার কোনটা কিনলে ভালো হবে। ডেস্কটপ কম্পিউটারে কি কি এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারে কি কি আছে। এছাড়া কম্পিউটারের সুবিধা এবং অসুবিধা গুলো কি কি? সেই বিষয়ে আপনারা পুরোপুরিভাবে ধারণা নিতে পারেন।

তো চলুন সময় নষ্ট না করে বিস্তারিত আলোচনায় ফিরে যাওয়া যায়।

ডেস্কটপ কম্পিউটার না ল্যাপটপ কম্পিউটার | কোনটা ভালো এবং কেন ?

আমাদের আলোচনা থেকে ল্যাপটপ কম্পিউটার না ডেস্কটপ কম্পিউটার এই দুটোর মধ্যে কোনটা কিনবেন। এ প্রশ্নের উত্তর জানার জন্য আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কি? এছাড়া কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ এর মধ্যে কি কি পার্থক্য আছে।

সবশেষে আপনাকে জেনে নিতে হবে, ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের সুবিধা গুলো কি কি? তো চলুন মূল আলোচনায় যাওয়া যাক।

ডেস্কটপ কম্পিউটার কি ?

ডেস্কটপ কম্পিউটার হল এক ধরনের ডিভাইস যা বিভিন্ন ডিজিটালাইজড ডাটা এর মাধ্যমে ইনফর্মেশন গ্রহণ করে তারপর বিভিন্ন প্রোগ্রাম, সফটওয়্যার, প্রসেসর ব্যবহার করে আমাদের সমাধান প্রদান করে।

একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার সম্পূর্ণভাবে কাজ করার জন্য বিভিন্ন অংশে প্রয়োজন পড়ে এই অংশগুলো এক্সটার্নাল হার্ডওয়ার এবং ইন্টার্নাল হার্ডওয়ার বলা হয়।

কিন্তু উক্ত হার্ডওয়ার্স গুলো ল্যাপটপেও পাওয়া যায় যদিও ল্যাপটপের ক্ষেত্রে সবটাই একসাথে সংযুক্ত থাকে। এতে করে ল্যাপটপের ক্ষেত্রে আপনার অধিক জায়গা প্রয়োজন পড়ে না।

তবে ডেস্কটপ কম্পিউটারের ক্ষেত্রে সব হার্ডওয়ার আলাদাভাবে সিপিইউ কেবিনেট এর ভেতরে থাকে। এছাড়া ডিসপ্লে পাওয়ার জন্য স্কিনে আলাদাভাবে থাকবে।

যার ফলে আপনার অধিক বেশি জায়গা প্রয়োজন এবং যেকোন একটি জায়গা স্থায়ীভাবে রাখতে হবে এ ধরনের ডেস্কটপ পিসি। সাধারণত কম্পিউটার রাখার জন্য আপনার একটি টেবিল বা ডেস্কের দরকার হবে। তাই এধরনের পার্সোনাল কম্পিউটার গুলোকে ডেস্কটপ কম্পিউটার বলা হয়।

তবে ডেস্কটপ কম্পিউটার কি সেটা আপনি অনুসরণ করে অবশ্যই বুঝতে পেরেছেন যদি না। বুঝে থাকেন তবে দয়া করে আরও একবার লেখা গুলো অনুসরন করুন।

ল্যাপটপ  কি ?

আপনার উপরের আলোচনা ডেস্কটপ কম্পিউটার বিষয়ে ধারণা নিতে পেরেছেন। এখন আপনার পালা হচ্ছে ল্যাপটপ কি। ল্যাপটপ কম্পিউটার এমন একটি পোর্টেবল কম্পিউটার ডিভাইস যা সম্পূর্ণভাবে ডেস্কটপ কম্পিউটারের মত সমানভাবে কাজ করে থাকে।

একটি ল্যাপটপের ক্ষেত্রে সকল প্রকার হার্ডওয়ার্স একসাথে যুক্ত করা থাকে। যেমন ডিসপ্লে দেখার জন্য এলইডি স্ক্রিন, কিবোর্ড, মাউস, সবকিছু একসঙ্গে যুক্ত করা থাকে।

আর সব থেকে মজার বিষয় হচ্ছে আপনি যদি ডেস্কটপের মাধ্যমে অফিশিয়াল বা ব্যক্তিগত কাজ করেন। সেক্ষেত্রে আপনি অল্প জায়গার মধ্যেই আপনার ল্যাপটপটি রেখে যে কোন কাজ সহজেই সম্পন্ন করতে পারবেন। এটি কিন্তু আপনারা ডেস্কটপের মাধ্যমে সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না।

ডেস্কটপ কম্পিউটার এর তুলনায় ল্যাপটপ স্ক্রীন সাইজ অনেক ছোট আকার হয় তাই ল্যাপটপ আপনি যেকোন জায়গায় নিয়ে ভ্রমণ করতে পারবেন। এবং যেকোন জায়গায় সহজেই ওপেন করে ব্যবহার করতে পারবেন। আশা করি আপনি বুঝতে পারছেন যে ল্যাপটপ আসলে কি।

আরো পড়ুনঃ

ডেস্কটপ কম্পিউটার এর সুবিধে কি কি ?

আগেই বলেছি বর্তমান সময়ে, অফিসিয়াল কাজ করার জন্য লোকেরা সব সময় ডেস্কটপ কম্পিউটার প্রাধান্য দিয়ে থাকে বেশী। ডেস্কটপ কম্পিউটারের অনেক সুবিধা রয়েছে সেগুলো আমরা নিচের অংশের ধাপে ধাপে আলোচনা করব। যেমন-

Upgrade Hardware anytime

আপনারা এই ডেস্কটপ কম্পিউটার থেকে লাভজনক সুবিধা ভোগ করতে পারবেন সেটি হচ্ছে আপগ্রেড। এর মানে যে কোনো সময় আপনি আপনার কম্পিউটারে যেকোনো হার্ডওয়ার পরিবর্তন করে, আবার পুনরায় হার্ডওয়ার যুক্ত করতে পারবেন। তাও আবার নিজে নিজেই।

মনে করুন আপনি বাজার থেকে একটি হার্ডডিক্স কিনে নিয়েছেন নিজের কম্পিউটার স্পেস অধিক পরিমাণে বাড়িয়ে নেয়ার জন্য। এরকমভাবে, আপনার কম্পিউটারের র্যাম বাড়ানোর জন্য উন্নত মানের একটি র‌্যাম ক্রয় করেছেন।

এছাড়া আপনারা উন্নতমানের প্রসেসর লাগানো বা ভালো মানের মনিটরের স্ক্রিন লাগানো, গ্রাফিক্স কার্ড লাগানো এরকমভাবে সবকিছুই আপনারা ইচ্ছামতো যেকোনো সময় পরিবর্তন করে নিতে পারবেন।

Possible to use larger display screen

ডেস্কটপ কম্পিউটার গুলো ব্যবহার করলে আপনার অধিক বড় মানের ডিসপ্লে ব্যবহার করতে পারবেন। বিশেষ করে গেম খেলার জন্য গেমাররা এবং ভিডিও এডিটিং কাজ করার জন্য বা অন্যান্য বিভিন্ন উদ্দেশ্যে মানুষ একটি 22 ইঞ্চি বা তার চেয়েও বেশি এলইডি, এলসিডি মনিটর ব্যবহার করার চিন্তা করে থাকে।

তার জন্য আপনি যদি নিজের প্রয়োজন হিসেবে একটি বড় স্ক্রিন ব্যবহার করতে চান তাহলে সেটা শুধুমাত্র ডেক্সটপ কম্পিউটারের ক্ষেত্রে সম্ভব।

Cheaper than laptops & tablets

ডেস্কটপ কম্পিউটার আপনার ল্যাপটপ বা ট্যাবলেট এর তুলনায় অনেক কম টাকা খরচ করেই ক্রয় করতে পারবেন। ল্যাপটপ 50,000 টাকা দিয়ে পাবেন।

আর সেই হার্ডওয়ার কনফিগারেশনের ডেস্কটপ কম্পিউটার আপনি মাত্র 20 থেকে 25,000 টাকার মধ্যেই কিনে নিতে পারবেন এটি হচ্ছে ডেক্সটপ এবং ল্যাপটপের মধ্যে পার্থক্য।

এক্ষেত্রে মনে রাখবেন, ল্যাপটপ বা ট্যাবলেট গুলোর তুলনায় একই ক্ষমতার ডেস্কটপ কম্পিউটার গুলোর দাম অনেক অল্প থাকে।

Can be assembled as per needs

আপনার বাজেট এবং প্রয়োজন হিসেবে হার্ডওয়ার একত্রিত করে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার তৈরি করে নিতে পারবেন এতে আপনার কাজের বা প্রয়োজনের হিসাবেই টাকা খরচ করতে হয়।

যেগুলো জিনিস বাহারের আপনার প্রয়োজন নাই সেগুলো অপ্রয়োজনে টাকা খরচ করার প্রয়োজন পড়ে না আর আপনি যদি একটি ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনবেন সে ক্ষেত্রে আপনার যা দাম হবে তাই দিয়ে কিনতে হবে।

আরও পড়ুনঃ

ল্যাপটপের সুবিধ কি কি ?

আপনি এতক্ষণ ডেস্কটপ কম্পিউটারের সুবিধা গুলো জেনে নিয়েছেন এখন আপনার জানার পালা হচ্ছে ল্যাপটপ এর সুবিধা গুলো কি কি? আপনি যদি ল্যাপটপের সুবিধা গুলো সম্পর্কে জানতে চান তাহলে নিচে দেওয়া ধাপগুলো অনুসরণ করুন যেমন-

Easy to carry

যেকোনো জায়গা থেকে নিজের কাজ করতে চান তবে আপনার জন্য অনেক কার্যকরী একটি ডিভাইস হিসেবে বিবেচিত হবে। এই সুবিধাটি ল্যাপটপের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনার ল্যাপটপ সহজে যেকোনো জায়গায় বহন করতে পারবেন এবং যেকোন জায়গায় যে কোন অবস্থাতে আপনি ল্যাপটপে কাজ করতে পারবেন।

Battery for backup

আপনারা অবশ্যই জানেন যে কোন ল্যাপটপ ব্যাটারি থাকে এবং সে ব্যাটারির সাহায্যে বিদ্যুৎ সংযোগ ছাড়াই আপনারা দীর্ঘ চার থেকে ছয় ঘণ্টার মত ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন।

অনেক লোক রয়েছে যারা এই একটি সুবিধার জন্যই ল্যাপটপ কেনার জন্য আগ্রহী হয়ে থাকে বেশি।  ল্যাপটপের মধ্যে থাকা ব্যাটারি আপনার চার্জে দিয়ে ল্যাপটপ ব্যবহার করার সুযোগ পাবেন। তারপর ব্যাটারি চার্জ হয়ে গেলেও দীর্ঘ সময় নিয়ে বিদ্যুৎ ছাড়াই ল্যাপটপ ব্যবহার করতে পারবেন। আলাদাভাবে ল্যাপটপের আলাদা আলাদা ব্যাটারি ব্যাকআপ ক্ষমতা দেওয়া থাকে।

Stylish & slim

ল্যাপটপ কম্পিউটারের অধিক প্রচলনের জন্য জনপ্রিয়তার কারণ হচ্ছে ল্যাপটপ গুলো দেখতে অনেক সুন্দর হয় এবং অনেক স্লিম হয় মানে হালকা হয়। তাই এ সময়ে লোকেরা ল্যাপটপ কম্পিউটার কেনার জন্য আগ্রহী থাকে বেশি অংশ।

Powerful

ল্যাপটপ বা ল্যাপটপের মডেল গুলো অনেক শক্তিশালী হয়ে থাকে যার ফলে যেকোনো কাজ আপনারা অনেক সহজেই এবং কোন প্রকার ঝামেলা ছাড়াই করতে পারবেন কিন্তু একটি ল্যাপটপ এ কি কি হার্ডওয়্যার কনফিগারেশন থাকবে সেটি আগে থেকে নির্ধারিত হয়ে থাকে।

আরো পড়ুনঃ

ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের মধ্যে পার্থক্য

আপনি এতক্ষণ উপরোক্ত আলোচনা ডেস্কটপ কম্পিউটারের সুবিধা এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের সুবিধা সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এখন আপনার প্রশ্ন হতে পারে যে, ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের মধ্যে পার্থক্য কি?

ডেক্সটপ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের মধ্যে পার্থক্য সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

বেস্ট অফ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের মধ্যে পার্থক্য আছে। ল্যাপটপের তুলনায় ডেস্কটপ কম্পিউটারের দাম তুলনামূলক কম থাকে।

ল্যাপটপ কম্পিউটার আপনার বিদ্যুৎ ছাড়া তার ব্যাটারি ব্রেকআপ এর মাধ্যমে প্রায় অনেক সময় পর্যন্ত ধারণ ক্ষমতা রাখে। কিন্তু বিদ্যুৎ ছাড়া ডেক্সটপ কম্পিউটার ব্যবহার করা সম্ভব হয় না।

একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার এর হার্ডওয়্যার কনফিগারেশন আপনি নিজের প্রয়োজন এবং বাজেট হিসাব করতে পারবেন কিন্তু ল্যাপটপের ক্ষেত্রে এটি কোনোভাবেই সম্ভব না।

ডেস্কটপ কম্পিউটারের ক্ষেত্রে যে কোনো সময় আপনি হার্ডওয়্যার বা ফাংশনগুলো অপগ্রেট বা ডাউগ্রেড করে নিতে পারবেন কিন্তু ল্যাপটপের ক্ষেত্রে এটি এমন সুবিধাজনক নয়।

একটি ল্যাপটপ কম্পিউটার ব্যবহার করার জন্য আপনার বেশি জায়গা প্রয়োজন হবে না। তাছাড়া যেকোনো জায়গায় নিয়ে শুয়ে বসে ল্যাপটপ ব্যবহার করার সুবিধা পাবেন। কিন্তু একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার ব্যবহার করার জন্য আপনার অনেক বেশি জায়গা প্রয়োজন হবে যার ফলে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় নিয়ে ওতটা সম্ভব হবে না।

ল্যাপটপ কম্পিউটার আজকাল অনেক দামি হয় এবং কম দামে ভালো ল্যাপটপ পাওয়া সম্ভাবনা রয়েছে। এক্ষেত্রে আপনি যদি একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনতে চান তাহলে আপনার বাজেট অনুযায়ী বর্তমান সময়ে মাত্র 10 থেকে 15 হাজার টাকা দিয়ে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনে নিতে পারবেন।

ডেস্কটপ কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ কম্পিউটারের মধ্যে পার্থক্য গুলি আপনি জানতে পারলেন এখন আপনার উপর নির্ভর করে আপনি কোন কম্পিউটার কনফিগারেশন কিনতে চান। তবে আমরা যে পার্থক্য আছে এগুলো ছাড়া আরও অনেক পার্থক্য রয়েছে আপনারা ধীরে ধীরে বুঝতে পারবেন।

ল্যাপটপ নাকি ডেস্কটপ কোনটা কিনলে ভালো হবে?

উপরের আলোচনা থেকে আপনারা জানতে পারলেন ল্যাপটপ এবং ডেস্কটপ কম্পিউটারের মধ্যে সুবিধা এবং পার্থক্যগুলো সম্পর্কে। এই ক্ষেত্রে নিজের প্রয়োজন চাহিদা এবং বাজেটের উপর নির্ভর করে।

কম্পিউটার না ল্যাপটপ দুটির মধ্যে কোনটি কিনবেন সেটি আপনারা বেছে নিতে পারেন। তারপরও আমরা আপনাকে সাজেস্ট করবো কোন ডিভাইস কিনলে আপনার জন্য বেস্ট হবে।

আপনি যদি গেমিং করতে পছন্দ করেন বা ভিডিও এডিটিং এর মত ভারি ভারি কাজগুলো করতে চান তাহলে আপনার জন্য ল্যাপটপ তেমন একটা সুবিধাজনক হবে না।

কারণ গেমিং করার জন্য আপনার অনেক কিছু এডভান্স হার্ডওয়ার লাগানোর দরকার হয়। এক্ষেত্রে একটি ডেস্কটপ কম্পিউটারে আপনার জন্য সুবিধা বলে প্রমাণিত হবে। কিন্তু গেমিং এর জন্য অনেক এডভান্স গেমিং ল্যাপটপ আছে যদিও সেগুলোর দাম অনেক বেশি।

তবে আপনার যদি একটি পোর্টেবল ডিভাইস যা আপনার যেকোনো জায়গায় নিয়ে গিয়ে যে কোন সময় ব্যবহার করতে পারবেন সে ক্ষেত্রে আপনারা ল্যাপটপ কম্পিউটার আপনার জন্য ভালো হবে।

এছাড়া বিদ্যুৎ সংযোগ ছাড়া যদি আপনি ঘন্টার পর ঘন্টা কাজ করার সুবিধা পেতে চান তাহলে অবশ্যই ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনে নিতে পারেন।

মোট কথা হচ্ছে আপনার ডেক্সটপ যদি ভালো লাগে এবং অল্প টাকা দিয়ে কিনতে চান সেক্ষেত্রে আপনি ডেস্কটপ কম্পিউটার কিনেনি আর যদি আপনার বেশি টাকা থাকে খরচ করার মত সে ক্ষেত্রে আপনি ল্যাপটপ কম্পিউটার কিনবেন।

আরো পড়ুনঃ

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আজ আমাদেরকে আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনাকে জানানো হলো ডেক্সটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার। কোনটা কিনব। আমাদের আলোচনাতে আপনারা দুইটি ডিভাইসের বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে যেন নিয়েছেন। এখন আপনার উপর নির্ভর করবে আপনি কোন কম্পিউটার কি আপনার কাজের জন্য ব্যবহার করতে চান।

ট্যাগঃ ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন?

ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন?ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ কম্পিউটার ? কোনটা কিনবেন?

আমাদের এখানে ক্লিক করে আপনার যদি বিন্দুমাত্র উপকার হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই একটি কমেন্ট করে জানাবেন আর বিশেষ করে এ বিষয়টি আপনার বন্ধুদের জানাতে একটি শেয়ার করে দিবেন।

আমাদের এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি যদি দৈনিক আর্টিকেল পড়তে চান তাহলে ভিজিট করেন ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন

Leave a Comment

Share via
Copy link
Powered by Social Snap